ঢাকা     বুধবার   ০৬ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ২২ ১৪২৯ ||  ০৬ জিলহজ ১৪৪৩

বিএনপি মিথ্যা বানানোর কারখানা: প্রধানমন্ত্রী

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:০৯, ২৩ জুন ২০২২   আপডেট: ১৬:৫৭, ২৩ জুন ২০২২
বিএনপি মিথ্যা বানানোর কারখানা: প্রধানমন্ত্রী

আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ফাইল ফটো)

বিএনপি সরকারের শাসনামলে বিভিন্ন প্রকল্পে দুর্নীতির কারণে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন থেকে সরে যাওয়ার উদাহরণ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘যাদের আপাদমস্তক দুর্নীতিতে ভরা, তারা কিভাবে দুর্নীতি নিয়ে কথা বলে।’

বিএনপিকে ‘মিথ্যাবাদীদের দল’ অভিহিত করে তিনি বলেছেন, ‘তারা মিথ্যা বলতে ও বানাতে ভালো পারে।’

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলটির ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন তিনি।

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আজকে পদ্মা সেতু নিয়ে তারা কথা তুলেছে। সেখানে দুর্নীতির অভিযোগ এনেছিল বিশ্বব্যাংক। খালেদা জিয়ার আমলে সিদ্দিরগঞ্জ পাওয়ার প্ল্যান্টে দুর্নীতির দায়ে বিশ্বব্যাংক কিন্তু অর্থায়ন বন্ধ করে দিয়েছিল। পরবর্তীতে আমেরিকার গোয়েন্দা সংস্থা এটা বের করেছিল যে, কোন প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে খালেদা জিয়া ও তার ছেলেরা ঘুষ নিয়েছিল। ঢাকা-ময়মনসিংহ রোড করার সময়ে দুর্নীতির দায়ে বিশ্বব্যাংক অর্থ বন্ধ করেছিল।’

‘তাদের চরিত্র এই। তারা বিদেশে যে টাকা পাচার করেছিল, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে সেই টাকার কিছু অংশ ফেরত এনেছে। এরপরও তাদের মুখ থেকে এত বড় কথা কিভাবে আসে। তবে মিথ্যা কথা বানানো এবং মিথ্যা কথা বলার কারখানা যদি থেকে থাকে, সেটা হচ্ছে বিএনপি।’

সিলেটে বন্যায় মানুষের জন্য আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা কাজ করে যাচ্ছে, কিন্তু বিএনপি নেতারা কোথায়, সে প্রশ্ন তুলে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আজকে বন্যা হয়েছে। বন্যায় বিএনপির কোনো নেতা কেউ কোনো সাহায্য দিয়েছে? দেয়নি। ঢাকায় বসে বসে নানা কথা বলে বেড়াচ্ছে।’

‘কিন্তু আওয়ামী লীগের নেতারা অনেক দুর্গম এলাকায়, যেখানে কেউ পৌঁছাতে পারছে না, সেখানেও ত্রাণ বিতরণ করে যাচ্ছে, উদ্ধারকাজ করে যাচ্ছে। প্রত্যেকে নিজের জায়গা থেকে কাজ করে যাচ্ছে। সেটা নিয়ে তাদের আবার সমালোচনা। বিএনপি বন্যার্তদের জন্য কিছুই করতে পারেনি, এখানে বসে তারা মায়াকান্না করে যাচ্ছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘পদ্মা সেতু নিয়ে বিএনপি কিভাবে প্রশ্ন তোলে, যাদের আপাদমস্তক দুর্নীতিতে ভরা? এতিমের অর্থ আত্মসাৎ করে সাজা পেয়েছে খালেদা জিয়া। শুধু এতিমের টাকা কেন, নাইকো, গ্যাটকো এরকম অনেক কেস ঝুলে আছে। এসব কেসে সে তো কখনো কোর্টেও যেতে চায়নি, যায়নি। প্রত্যেকটি প্রজেক্টে দুর্নীতি করে খালেদা জিয়া, তারেক জিয়া, কোকা টাটা বানিয়েছে।’

‘এই দুর্নীতি করে যদি টাকা না বানাতো, বিদেশে এত বিলাসবহুল জীবনযাপন করে কী করে? কত টাকা খরচ করে সেখানে কোম্পানি খুলেছে। সেই কোম্পানিতে সে লিখেছে ব্রিটিশি নাগরিক। এক বছর পর সেটা সংশোধন করে আবার বাংলাদেশের নাগরিক লিখেছে। কারণ, মিথ্যা লেখাতে ধরা পড়ে যায়। যখন আমরা কথা তুলেছি, একটা সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে ব্রিটিশরা কিভাবে নাগরিকত্ব দেয়। কাজেই সেটা পরিবর্তন করে বাংলাদেশের নাগরিক লিখেছে। সেই তথ্য তো আমাদের কাছে আছে। শুধু এই তথ্যই না, আরও অনেক তথ্য আছে।’

আওয়ামী লীগ নিজের ভাগ্য গড়েত আসেনি, দেশের মানুষের ভাগ্য গড়তে এসেছে, দাবি করে দলের সভাপতি বলেন, ‘এ দেশের মানুষের যত অর্জন, সবই আওয়ামী লীগের হাত ধরে। আওয়ামী লীগ যখনই সরকারে এসেছে, এ দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হয়েছে।’

‘১৯৯৬ সালে সরকারের এসে যতটুকু অর্জন করেছিলাম, বিএনপি ক্ষমতায় এসে দেশকে জঙ্গি-সন্ত্রাস ও দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন বানিয়েছিল। পাঁচবার দেশকে দুর্নীতিতে এক নম্বর করেছিল। সেই ভাবমূর্তি বাংলাদেশের জন্য কতটা অসম্মানজনক। সেই স্থান থেকে বাংলাদেশকে বিশ্বে একটা সম্মানজনক স্থানে নিয়েছি। বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা আমরা পেয়েছি’, বলেন তিনি।

অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

পারভেজ/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়