Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শুক্রবার   ১৪ মে ২০২১ ||  চৈত্র ৩১ ১৪২৮ ||  ০১ শাওয়াল ১৪৪২

২০০ অনাহারি বানরকে খাবার দিলেন ইউএনও 

রফিক সরকার || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:৫৩, ৪ মে ২০২১   আপডেট: ১৩:৫৪, ৪ মে ২০২১
২০০ অনাহারি বানরকে খাবার দিলেন ইউএনও 

চলমান লকডাউনে অনেকটা না খেয়েই কাটাচ্ছে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বরমী বাজারের বানর। বাজার-ঘাট ও মানুষের চলাচল সীমিত হওয়ায় বেশ কিছু দিন খাবারের অভাবে ছিল বানরগুলো।

কিন্তু বানরের খাদ্য সংকটনের কথা শুনে এগিয়ে এলেন শ্রীপুরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাশলিমা মোস্তারী। তিনি জেলার শ্রীপুর উপজেলার বরমী বাজারের প্রায় ২০০ বানরের খাবার সরবরাহ করেন। ইউএনওর দেওয়া খাদ্য উপাদানের মধ্যে ছিল কলা, রুটি ও কেক।

তাশলিমা মোস্তারী বলেন, ‘বানরগুলো সাধারণত বাজারের দোকানপাট, এলাকার বাসিন্দাদের বাসা-বাড়ি থেকে যা পায়, তা থেকেই নিজেদের খাদ্যের যোগান দিয়ে থাকে। বানরের সংখ্যার তুলনায় এ খাদ্য অনেকটাই অপ্রতুল। এদিকে চলমান লকডাউনে খাদ্য সংকট আরও বেড়েছে। প্রাণীদের কথা ভেবে নিজ উদ্যোগে আমি অভুক্ত বানরের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার চেষ্টা করেছি।’

এসময় বরমী ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন, স্থানীয় ইউপি সদস্য ও বাজার পরিচালনা পরিষদের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন বলেন, ‘বরমী বাজারে বানর বসবাসের ইতিহাস অতি প্রাচীন। হাজার হাজার বানর ছিল এ বাজারে। খাদ্য সংকটসহ নানা কারণে বানরের সংখ্যা কমে গেছে।’ তবে প্রকৃত সংখ্যা তিনি বলতে পারেননি।

শ্রীপুর বাজারের কাপড় ব্যবসায়ী বাবুল হোসেন বলেন, ‘বাজারে বানরের নির্ধারিত কোনো খাবার নেই। বাজারের বিভিন্ন দোকানপাট, বাসিন্দাদের বাড়ি ঘরে হানা দিয়ে, শুকাতে দেওয়া কাপড়-চোপর, হালকা আসবাবপত্র টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যাওয়ার সময় কেউ খাবার দিয়ে সেগুলো ফেরত পায়। খাদ্য সংকটে ভুগলে সাধারণত এভাবেই খাবারের অভাব মেটায় বানরগুলো।’

অপর ব্যবসায়ী জাকির হোসেন বলেন, ‘চলতি লকডাউনের কারণে বানরগুলোর খাদ্য সংকট চরমে পৌঁছেছে।’

বানরগুলোর জন্য খাবারের স্থায়ী বন্দোবস্তের ব্যাপারে ঊর্ধতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে একটা উপায় খুঁজে বের করা হবে বলেও জানান ইউএনও তাশলিমা মোস্তারী।

গাজীপুর/মাহি 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়