Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৭ জুলাই ২০২১ ||  শ্রাবণ ১২ ১৪২৮ ||  ১৪ জিলহজ ১৪৪২

৯৮টি দেশের মুদ্রা রয়েছে ফখরুলের সংগ্রহশালায়

এইচ মাহমুদ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:২৯, ১৩ জুন ২০২১   আপডেট: ১২:৩৫, ১৩ জুন ২০২১
৯৮টি দেশের মুদ্রা রয়েছে ফখরুলের সংগ্রহশালায়

সখের মানুষ ফখরুল হাসান। নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার আমিরগঞ্জ ইউনিয়নের দক্ষিণ মির্জানগর গ্রামে তার বাড়ি। বর্তমানে রাজধানী ঢাকায় একটি বে-সরকারি কোম্পানিতে কর্মরত আছেন। পাশাপাশি তিনি ‘চিৎ প্রকর্ষ’ নামে একটি সাহিত্যি ম্যাগাজিনের সম্পাদকও।

তার বাবা হাফেজ আব্দুল ওয়াহাব। মারা গেছেন ফখরুল হাসান ছোট থাকতেই। তাই বড় ভাই বরেণ্য সাংবাদিক ড.আব্দুল হাই সিদ্দীকের কাছেই বড় হন তিনি। ছাত্রজীবন থেকেই ফখরুল একজন সৌখিন মনের মানুষ। তিনি বিভিন্ন আর্থ-সামাজিক সংগঠনের সঙ্গেও জড়িত রয়েছেন।

বাড়িতে তার মরহুম বাবা-মায়ের উৎসর্গে নিমার্ণ করেছেন একটি স্মৃতিস্তম্ভ। এর সাথে রয়েছে একটি সংগ্রহশালা নামে একটি কক্ষ। এ সংগ্রহশালায় রয়েছে বিভিন্ন লেখক ও সাহিত্যিকদের লেখা বইসহ প্রায় হারিয়ে যাওয়া গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যের বিভিন্ন জিনিসপত্র। এছাড়া রয়েছে বিশ্বের ৯৮টি দেশের মুদ্রা-কয়েন এবং পাকিস্তান আমল থেকে শুরু করে বর্তমান বাংলাদেশের সব ডাকটিকিট।

সরেজিমনে গিয়ে দেখা যায়, আমিরগঞ্জ ইউনিয়নের দক্ষিণ মির্জানগর গ্রামের সামনে দিয়ে প্রবাহিত মেঘনার শাখা নদী। ছোট ছোট নৌকায় করে মানুষ নদীর এ পাড় থেকে অন্যপাড়ের বিভিন্ন গ্রামে আসা-যাওয়া করছেন। আবার জেলেরা জাল ফেলে মাছ ধরছেন। নদীর মাঝ দিয়ে গ্রামবাসী স্বেচ্ছায় নিমার্ণ করেছেন একটি দৃষ্টিনন্দন কাঠের সাঁকো। দেখে মনে হবে প্রকৃতি যে কত সুন্দর! আর এ শাখা নদীর কূল ঘেঁষে প্রতিষ্ঠিত মির্জানগর মধ্যপাড়া আর্দশ প্রাথমিক বিদ্যালয়।

এ বিদ্যালয়ের চতুর্দিকে সবুজের সমারোহ। নানা জাতের গাছপালায় ভরপুর পরিবেশ। ছায়া সুনিবিড় সুন্দর পরিবেশ। তারই পেছনে দেখা মেলে ফখরুল হাসানের সংগ্রশালাটি। এসময় কথা হয় তার সঙ্গে। তিনি জানান, ১৯৮৮ সালে তার মামা হাফেজ কেরাম আলী তাকে ঈদের সালামি হিসেবে কয়েকটি নতুন এক টাকার নোট উপহার দেন। এ টাকাগুলো তিনি খরচ না করে বইয়ের ভেতরে রেখে দেন। এই থেকে তার সখ জাগে বাংলায় বিভিন্ন রাজত্বকালে যে টাকা ও মুদ্রা বের হয়েছে, তা তিনি সংগ্রহ করে রাখবেন। এভাবে তিনি বাংলাদেশ তথা ভারতীয় উপমহাদেশের সব টাকা ও কয়েন ধীরে ধীরে সংগ্রহ করতে শুরু করেন। তার কাছে বিভিন্ন সময়ে দেশে যে স্মারক টাকা বের হয়েছে, সে নোটও রয়েছে।

এছাড়াও তার কাছে রয়েছে মালয়েশিয়া, ভারত, পাকিস্তান, থাইল্যান্ড, সৌদি আরব, ইন্দোনেয়িশা, মালদ্বীপ, সিঙ্গাপুর, আমেরিয়া, ব্রাজিল, কোরিয়া, চায়নাসহ পৃথিবীর প্রায় ৯৮টি দেশের মুদ্রা। 

মির্জানগর আর্দশ ছাত্র সংঘের সাবেক সভাপতি ইকবাল আহম্মেদ বলেন, ফখরুল হাসানের যে অদম্য ইচ্ছা শক্তি রয়েছে, সত্যিই তা প্রশংসনীয়। প্রকৃতপক্ষে তিনি একজন সাদা মনের মানুষ ও সংগ্রাহক। তার এ সংগ্রহশালায় বর্তমান প্রজন্মের অনেক কিছু শিক্ষণীয় রয়েছে। এর মাধ্যমে তারা অতীতকে সহজে অনুভব করতে পারবেন বলে আমি মনে করি।

নরসিংদী/মাহি 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়