ঢাকা     শুক্রবার   ১২ আগস্ট ২০২২ ||  শ্রাবণ ২৮ ১৪২৯ ||  ১৩ মহরম ১৪৪৪

দর্শকদের মন কাড়ছে রেডিয়েন্ট ফিশ ওয়ার্ল্ড

রেজাউল করিম, গাজীপুর || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:৪৩, ৫ আগস্ট ২০২২   আপডেট: ১২:৪৫, ৫ আগস্ট ২০২২
দর্শকদের মন কাড়ছে রেডিয়েন্ট ফিশ ওয়ার্ল্ড

রেডিয়েন্ট ফিশ ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশের প্রথম মেরিন ফিশ অ্যাকুরিয়াম।

এযেন সাগর ও মিঠা পানির বর্ণিল রাজত্ব। নান্দনিক শিল্পকর্ম ও বৈদ্যুতিক ঝলমলে আলোয় তৈরি হয়েছে জলচর প্রাণীদের এক আশ্চর্য জগৎ। কয়েকশ প্রজাতির সামুদ্রিক মাছ ও প্রাণীদের সংমিশ্রণে গড়া সৈকতের শহর কক্সবাজারের রেডিয়েন্ট ফিশ ওয়ার্ল্ড এখন হয়ে উঠেছে সাগর তলদেশের জীবন্ত প্রতিচ্ছবি।

অ্যাকুরিয়ামে ভেসে বেড়াতে দেখা যায় হাঙ্গর

রেডিয়েন্ট ফিশ ওয়ার্ল্ড  বাংলাদেশের প্রথম মেরিন ফিশ অ্যাকুরিয়াম। প্রতিদিন শতশত দর্শনার্থী এ মাছের রাজ্য দেখতে ছুটে আসেন। এই ফিশ ওয়ার্ল্ডে প্রবেশ মূল্য ৩০০ টাকা। তবে শিশুরা বিনা মূল্যেই প্রবেশ করতে পারে। প্রতিদিন সকাল ৯ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত খোলা থাকে এই ফিস ওয়ার্ল্ড।

রেডিয়েন্ট ফিস ওয়ার্ল্ড নির্মাণে সময় লেগেছে প্রায় দুই বছর। রেডিয়েন্ট গ্রুপ প্রায় একশো কোটি টাকা ব্যয় নির্মাণ করেছে ফিস ওয়ার্ল্ডটি। লোনা পানি ও মিঠা পানির মাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছের সংগ্রহ শালা এটি। 

অ্যাকুরিয়ামের ভেতরের দৃশ্য

কক্সবাজার শহরের ঝাউতলা এলাকায় ৮০ শতক জমির উপর ৪ তলা ভবনের  তৃতীয় তলা জুড়ে এই অ্যাকুরিয়াম অবস্থিত। শতাধিক ছোট-বড় অ্যাকুরিয়ামে কয়েকশো প্রজাপতি সামুদ্রিক মাছ ও প্রাণীদের সংরক্ষণ করা হয়েছে। এই অ্যাকুরিয়ামে থাকা মাছগুলোর মধ্যে রয়েছে হাঙ্গর, পাঙ্গাস, থাই সরপুটি, মহাশোল বা গজার, কোরাল, পুঁটি, কুরুমা স্প্রিং, লাল কাঁকড়া, রাইল্যা, কামিলা, বাগদা ও গলদা চিংড়ি, স্টিং রে, আফ্রিকান মাগুর, দেশিয মাগুর, ফলি, পটকা, ভোল কোরাল, অক্টোপাস, কামিলা, বিদ্যুৎ মাছ, ব্ল্যাক কিং, নীলরঙা ভোল, বাইল্লা, রাজকাঁকড়া, স্টার ফিস, স্টোন ফিস, জেলি ফিসসহ নানা প্রজাতির সামুদ্রিক প্রাণী। 

পর্যটকদের আকর্ষণ করে সমুদ্রের নানান প্রজাতির মাছ

শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এই অ্যাকুরিয়ামে মাছের সৌন্দর্য উপভোগ করতে করতে নিমিষেই পর্যটকদের কয়েক ঘণ্টা কেটে যায়। অ্যাকুরিয়ামে থাকা কৃত্রিম প্রবাল ও কৃত্রিম ঝর্না আর বর্ণিল আলোকসজ্জা যে কাউকে মুগ্ধ করে। 

মাছের রাজ্যে ঘুরে বেড়াতে গিয়ে ভিন্ন বিনোদনের স্বাদও নিতে পারেন পর্যটকরা। এখানে রয়েছে লাইফ ফিশ রেস্টুরেন্ট, দেশি-বিদেশি নানা প্রজাতির পাখি, শিশুদের খেলার জায়গা, ছবি তোলার আকর্ষণীয় ডিজিটাল কালার ল্যাব, মার্কেটিং করার জন্য বিভিন্ন দোকান। এছাড়া উন্মুক্ত ছাদে রয়েছে প্রাকৃতি উপভোগের সুব্যবস্থা। 

সমুদ্র তলদেশের জীবন্ত প্রাণীদের এমন দৃশ্য দেখা সত্যি অসাধারণ। এখানে এসে সৃষ্টিকর্তার সৃষ্টির অপার রহস্যের সমুদ্রের প্রাণীদের একাংশ দেখে চক্ষু হয় শীতল আর মনটা ভরে ওঠে সজীবতায়।

রেজাউল/ মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়