ঢাকা, শুক্রবার, ২৭ চৈত্র ১৪২৬, ১০ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

‘রসুন বা থানকুনি পাতার সঙ্গে করোনাভাইরাসের সম্পর্ক নেই’

মুছা মল্লিক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-১৯ ২:৩২:৪৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-১৯ ৩:৫৩:২৬ পিএম

বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ (করোনাভাইরাস) ভয়াবহ গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে। চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা এখনো এর প্রতিষেধক আবিষ্কারে সক্ষম হননি, যদিও গবেষণা থেমে নেই। সঠিক পরামর্শের অভাবে অনেকেই হতাশ হয়ে পড়ছেন। করোনা সম্পর্কিত নানা বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন আইইডিসিআর-এর সাবেক চিফ সায়েন্টিফিক অফিসার ডা. সওকত আরা বিথী। কথোপকথনে ছিলেন রাইজিংবিডির প্রদায়ক মুছা মল্লিক।

রাইজিংবিডি: কোভিড-১৯ আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে অন্যদের মধ্যে কীভাবে ছড়িয়ে পড়ে?

ডা. সওকত আরা বিথী: সংক্রমিত ব্যক্তির হাঁচি, কাশি, লালা ও নাকের নিঃসরণের মাধ্যমে করোনাভাইরাস ছড়ায়। তখন ওই ব্যক্তির একদম কাছে থাকলে করোনা সংক্রমণ হতে পারে। আক্রান্ত ব্যক্তির শ্বাস-প্রশ্বাসজনিত কণার মধ্যে ভাইরাসটি থাকে। কণাটি ভারি হওয়ায় বাতাসে ভেসে বেড়াতে পারে না বরং মানব শরীর থেকে হাঁচি-কাশির মাধ্যমে বের হয়ে এটি মাটি বা অন্য কোনো জায়গায় অবস্থান করে। সেখান থেকেও করোনা সংক্রমণ হতে পারে। মানুষের হাঁচি কাশির ক্ষুদ্র ড্রপলেট এই ভাইরাসের বাহক।

রাইজিংবিডি: এ ক্ষেত্রে রোগীর উপর কি অ্যান্টিবায়োটিক ব্যাবহার করা যাবে?

ডা. সওকত আরা বিথী:  না। অ্যান্টিবায়োটিক ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে কাজ করে, ভাইরাসের বিরুদ্ধে নয়। তবে বেশি অসুস্থ রোগীদের একইসঙ্গে ব্যাকটেরিয়াজনিত ইনফেকশনও হতে পারে। তাদের চিকিৎসার জন্য অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার করা যেতে পারে।

রাইজিংবিডি: করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে রেহাই পেতে সাধারণ মানুষের কী করা প্রয়োজন?

ডা. সওকত আরা বিথী: আইইডিসিআর-এর নির্দেশ অনুযায়ী সকল নিয়ম-নীতি মানলে নিরাপদ থাকা অসম্ভব কিছু নয়। যেমন-

• সাবান দিয়ে ঘন ঘন হাত ধুবেন অথবা অ্যালকোহলযুক্ত হ্যান্ড রাব ব্যবহার করতে পারেন।

• জ্বর, সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে দূরে থাকবেন। অবস্থার অবনতি হলে নিকটস্থ হাসপাতালে যোগাযোগ করুন।

• জনসমাগম হয় এমন স্থানে যাবেন না।

• একইসঙ্গে হাঁচি-কাশি দেয়ার সময় কনুই ভাঁজ করে নাক এবং মুখ ঢাকবেন অথবা টিস্যু ব্যবহার করবেন এবং সেটা ঢাকনাযুক্ত বিনে ফেলবেন।

• অপরিষ্কার হাতে চোখ, নাক, মুখ স্পর্শ করবেন না।

• আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শ এড়িয়ে চলবেন।

• অসুস্থ হলে ঘরেই অবস্থান করুন।

• কারো সঙ্গে হ্যান্ডশেক ও কোলাকুলি করা থেকে বিরত থাকবেন।

• জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বিদেশ ভ্রমণ এড়িয়ে চলুন।

• বাইরের জুতো বাসায় ঢোকানো যাবে না। বাইরে পরা পোশাক নিয়মিত ধুয়ে ফেলতে হবে। বাইরে থেকে এসে ভালো করে সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে। ঘরের ফার্নিচার, মেঝে নিয়মিত জীবাণুনাশক দ্রবণ(যেমন অ্যালকোহলযুক্ত বা ক্লোরিন-পানি) দিয়ে মুছতে হবে।

রাইজিংবিডি: কর্মস্থলে কী করা উচিত?

ডা. সওকত আরা বিথী: অফিসের চেয়ার, টেবিল, টেলিফোন, কীবোর্ড, হাতের সংস্পর্শে আসে এমন সকল জায়গা অ্যালকোহল বা ক্লোরিনযুক্ত জীবাণুনাশক দিয়ে নিয়মিত মুছতে হবে। সচারাচর হ্যান্ডশেক হতে বিরত থাকুন।

রাইজিংবিডি: করোনাভাইরাসের ঝুঁকি সম্পর্কে জানতে চাই?

ডা. সওকত আরা বিথী: করোনাভাইরাস সংক্রমণ যে কারো হতে পারে। তবে বৃদ্ধরা বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ে। বিশেষ করে বৃদ্ধ ব্যক্তির যদি একইসঙ্গে অ্যাজমা বা শ্বাসকষ্টজনিত রোগ, হৃদরোগ অথবা ডায়াবেটিস থাকে তাহলে তার অসুস্থ হওয়ার আশঙ্কা অনেক বেশি। সহজ কথায় যাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম তারাই বেশি ঝুঁকির মুখে রয়েছেন। এছাড়া স্বাস্থ্যসেবা দানের সঙ্গে জড়িত পেশাজীবীদের করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি অনেক বেশি।

রাইজিংবিডি: যে সব রোগী পূর্বে নিউমোনিয়ার ভ্যাক্সিন নিয়েছেন তাদের করোনা আক্রান্ত হবার আশঙ্কা কতটুকু?

ডা. সওকত আরা বিথী:  হ্যাঁ, হতে পারে। নিউমোনিয়ার ভ্যাক্সিন যেমন নিউমোকক্কাল ভ্যাক্সিন বা হিমোফিলাস ইনফ্লুয়েঞ্জা টাইপ বি এর ভ্যাক্সিন, নতুন এই করোনাভাইরাসের বিপরীতে আপনাকে সুরক্ষা দিবে না। নতুন এই ভাইরাস প্রতিরোধের বিশেষ কোনো উপাদান এই ভ্যাক্সিনে নেই।

রাইজিংবিডি: বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিশেষ এই ভাইরাস মানুষের মুখ এবং নাক দিয়ে প্রবেশ করে। আমাদের প্রশ্ন হলো, কেউ যদি মাউথওয়াশ ব্যবহার করে, তবে কি তার থেকে এই ভাইরাস ছড়ানোর আশঙ্কা আছে?

ডা. সওকত রা বিথী: করোনা মুখের লালার মাধ্যমে ছড়াতে পারে। মুখের অন্যান্য জীবাণু ধ্বংসে মাউথওয়াশের ভূমিকা থাকলেও করোনা প্রতিরোধ বা প্রতিকারে মাউথওয়াশের কোনো ভূমিকা নেই।

রাইজিংবিডি: রসুন বা থানকুনি পাতার কথাও আমরা শুনছি। 

ডা. সওকত আরা বিথী: রসুন এবং থানকুনি পাতা একটি স্বাস্থ্যকর খাবার। অনেক জীবাণু ধ্বংসে এর ভূমিকা আছে। তবে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে এদের ভূমিকা নেই বললেই চলে।

রাইজিংবিডি: অ্যালকোহল খেলে কি শরীরের ভেতরে প্রবেশ করা করোনাভাইরাস  নিমূর্লের সম্ভাবনা রয়েছে?

ডা. সওকত আরা বিথী: না। করোনাভাইরাস শরীরের যে জায়গায় বাসা বাঁধবে সেখানে পান করা অ্যালকোহল পৌঁছাবে না।

রাইজিংবিডি: শীত বা গ্রীষ্মকালের তাপমাত্রার উপর এই ভাইরাসের বিশেষ প্রভাব রয়েছে কি?

ডা. সওকত আরা বিথী:  না। এরকম কোনো তথ্য বৈজ্ঞানিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়নি। তবে এ নিয়ে গবেষণা চলছে।


ঢাকা/তারা