Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ২৪ জুলাই ২০২১ ||  শ্রাবণ ৯ ১৪২৮ ||  ১২ জিলহজ ১৪৪২

মারাত্মক রোগের ৬ লক্ষণ

এস এম গল্প ইকবাল || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:২৬, ৮ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ০৯:৪০, ৮ নভেম্বর ২০২০
মারাত্মক রোগের ৬ লক্ষণ

শরীর লক্ষণ প্রকাশ করে, কারণ সে চায় আপনি বাঁচার তাগিদে চিকিৎসকের কাছে ছুটে যান অথবা চিকিৎসা করেন। মায়ো ক্লিনিকের ফ্যামিলি মেডিসিন ফিজিশিয়ান জেনিফার মেনার্ড বলেন, ‘কিছু রোগ ও আঘাতের দ্রুত চিকিৎসা হওয়া প্রয়োজন, অন্যথায় এমন ক্ষতি হতে পারে যা পূরণ করা সম্ভব নয়।’

এখানে এমনকিছু লক্ষণ দেয়া হলো যেগুলো ইঙ্গিত করতে পারে যে শরীর বড় সমস্যার সম্মুখীন হয়েছে অথবা হতে চলেছে। লক্ষণগুলো দেখলে চিকিৎসকের কাছে যেতে দেরি না করাই ভালো।

* স্ট্রোকের উল্লেখযোগ্য উপসর্গ হচ্ছে- গাল বেঁকে যাওয়া, বাহুতে দুর্বলতা ও অস্পষ্ট কথা। স্ট্রোকের উপসর্গ দেখলে জরুরি সেবা পেতে একমুহূর্তও দেরি করা উচিত নয়। স্ট্রোকের সবচেয়ে প্রচলিত ধরন হচ্ছে- ইস্কেমিক স্ট্রোক। এটা মৃত্যু ঘটাতে পারে। মার্সি মেডিক্যাল সেন্টারের ফ্যামিলি মেডিসিন ফিজিশিয়ান রুথ এম. ব্রোকাটো বলেন, ‘চিকিৎসকেরা স্ট্রোকের উপসর্গ প্রকাশের প্রথম এক ঘণ্টাকে গোল্ডেন আওয়ার বলেন, কারণ এসময়ের মধ্যে চিকিৎসা করলে সর্বোত্তম ফল পাওয়া যায়।’

* হাত বা পায়ে যন্ত্রণা হলে, কালশিটে পড়লে ও ফুলে গেলে অবিলম্বে চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। হাড় ভেঙে যাওয়ার কারণে এটা হলে দুই দিনের মধ্যে চিকিৎসা করতে হবে। আমেরিকান অ্যাকাডেমি অব অর্থোপেডিক সার্জনসের মুখপাত্র স্টুয়ার্ড জে. ফিশার বলেন, ‘ভাঙা হাড়ের চিকিৎসা করতে দেরি করলে ভুল পজিশনে হাড়ের নিরাময় হতে পারে।’ হাড় ভেঙেছে কিনা নিশ্চিত না হলেও চিকিৎসক দ্বারা মূল্যায়ন ও এক্সরে করা উচিত। অন্যদিকে হাড় ত্বক ভেদ করে বের হয়ে গেলে অবিলম্বে জরুরি বিভাগে যেতে হবে।

* ওজন কমানোর কোনো পদক্ষেপ ছাড়াই ওজন কমে গেলে আপনার কাছে এটাকে আশীর্বাদ মনে হতে পারে। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে- ওজন কমানোর প্রচেষ্টা ছাড়াই ওজন সাড়ে চার কেজি বা এর বেশি কমে গেলে তা প্রাণনাশক রোগের লক্ষণ হতে পারে। লিনকন মেডিক্যাল অ্যান্ড মেন্টাল হেলথ সেন্টারের পেরিনাটাল সার্ভিসেসের পরিচালক কেসিয়া গেথার বলেন, ‘পদক্ষেপ ব্যতীত ওজন হ্রাস পেলে তা ওভারিয়ান ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে।’ ওভারিয়ান ক্যানসারকে নীরব ঘাতক বলা হয়, কারণ সাধারণত রোগটি ছড়িয়ে না পড়া পর্যন্ত উপসর্গ প্রকাশ পায় না।’

* ডা. গেথারে মতে, ঘনঘন বদহজম ও বুকজ্বালা কার্ডিওভাস্কুলার তথা হৃদরোগের একটি লক্ষণ হতে পারে। হৃদরোগে সবসময় স্পষ্ট লক্ষণ প্রকাশ নাও পেতে পারে। তাই বারবার বদহজম ও বুকজ্বালা করলে চিকিৎসককে বলা ভালো।

* তিলের আকার অথবা রঙে পরিবর্তন আসলে যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসককে দেখান। ত্বকের ক্যানসারের বিধ্বংসী ধরন ম্যালিগন্যান্ট মেলানোমার অন্যতম লক্ষণ হচ্ছে- তিলের রঙ অথবা আকারে পরিবর্তন সাধন। বায়োপসি বা আল্ট্রাসাউন্ড দিয়ে এই ক্যানসার শনাক্ত করা যায়।

* একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া হচ্ছে- পানি পানের প্রয়োজনে শরীর আপনাকে তৃষ্ণা অনুভব করায়। কিন্তু পর্যাপ্ত পানি পানের পরও প্রতিনিয়ত অস্বাভাবিক তৃষ্ণার অনুভূতি ভালো কিছু নয়। ডা. গেথার জানান যে অতিরিক্ত তৃষ্ণা ডায়াবেটিসের লক্ষণ হতে পারে। উচ্চ রক্ত শর্করার মাত্রা শরীরে পানির ভারসাম্য নষ্ট করে বিধায় তৃষ্ণা পায়।

ঢাকা/ফিরোজ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়