RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২১ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ৭ ১৪২৭ ||  ০৬ জমাদিউস সানি ১৪৪২

করোনা সংক্রমণ রোধে এলো নাকের ড্রপ

ফিচার ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৪৬, ২৩ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৯:৩৮, ২৩ নভেম্বর ২০২০
করোনা সংক্রমণ রোধে এলো নাকের ড্রপ

প্রতীকী ছবি

বিশ্বজুড়ে মহামারি করোনাভাইরাসের দাপট এখনো অব্যাহত রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রাণঘাতী এই ভাইরাস মানুষের শরীরে প্রবেশ করে নাক দিয়ে। যে কারণে ভাইরাসটি প্রতিরোধে এবার নাকের একটি নতুন ড্রপ বা স্প্রে তৈরি করেছেন বিজ্ঞানীরা। তাদের দাবি, ড্রপটি করোনা সংক্রমণ ঝুঁকি ৭৮ শতাংশ কমাতে সক্ষম। ‘টাফিক্স’ নামক এই ড্রপ নাকে একবার ব্যবহারে পাঁচ ঘণ্টা পর্যন্ত করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষা মিলবে।

ইসরায়েলের ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানি নাসুস ফার্মার তৈরি টাফিক্স বিশ্বের অনেক দেশে বিক্রি শুরু হয়েছে। নাসুস ফার্মার সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডা. ডালিয়ো মেগিদো বলেন, ‘মাস্কের বিকল্প নয় টাফিক্স, তবে এটি অতিরিক্ত একটি সুরক্ষা ব্যবস্থা।’ তার মতে, ‘ফেস মাস্ক স্পষ্টভাবেই সংক্রমণ প্রতিরোধে সহায়তা করে। কিন্তু ১০০ শতাংশ সুরক্ষা দিতে পারে না। এক্ষেত্রে অতিরিক্ত সুরক্ষা নিশ্চিত করবে টাফিক্স। গণপরিবহণ, বাজার এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মতো উচ্চ জনসমাগম যেখানে রয়েছে সেখানে ড্রপটি করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে কার্যকর।’

এই স্প্রে বা ড্রপ নাকের ভেতর বিশেষ একটি আবরণ তৈরি করে যা ভাইরাসকে মেমব্রেনে পৌঁছাতে বাধা দেয়। এছাড়া ড্রপটিতে সামান্য সাইট্রিক অ্যাসিড থাকায় নাকের পিএইচ মান-এ হালকা পরিবর্তন হয়, ফলে নাকের ভেতরে প্রবেশ করা করোনাভাইরাস ধ্বংস হয়ে যায়। যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীদের ল্যাব ট্রায়ালের দেখা গেছে, টাফিক্স করোনাভাইরাস ধ্বংসে ৯৯.৯ শতাংশ কার্যকর। তবে বাস্তবিক পরীক্ষার ফল অনুসারে, কোনো ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই ড্রপটি করোনা সংক্রমণ ঝুঁকি ৭৮ শতাংশ পর্যন্ত হ্রাস করতে পারে।

এই গবেষণার নেতৃত্বদানকারী অধ্যাপক বারবারা মান বলেন, ‘আমাদের জানা মতে, এই প্রথম মাস্ক ব্যবহারের বাইরে কোভিড-১৯ সংক্রমণ রোধ করার কোনো ব্যবস্থা কার্যকর হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে। করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি উল্লেখযোগ্য মাত্রায় কমাতে পারে টাফিক্স।’

ডা. ডালিয়ো মেগিদো জানান, করোনার টিকা নিয়ে সম্প্রতি সুখবর শোনা যাচ্ছে। নিকট ভবিষ্যতে হয়তো টিকা চলে আসবে। কিন্তু তার আগ পর্যন্ত সুরক্ষিত থাকতে স্বাস্থ্যবিধি ব্যবস্থা গ্রহণের বিকল্প নেই। সামনে শীতকালের মতো কঠিন সময় আসছে। এ সময় করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি আরো বেড়ে যেতে পারে। এছাড়া টাফিক্স কেবল শ্বাসতন্ত্রের নির্দিষ্ট একটি রোগের ওষুধ নয়, এটি ইনফ্লুয়েঞ্জসহ বায়ুবাহিত অন্যান্য ভাইরাস থেকেও সুরক্ষা দেবে।  

মিরর অনলাইনের খবরে বলা হয়েছে, যুক্তরাজ্যের বাজারে টাফিক্স মিলছে ১৩.৯৯ পাউন্ড মূল্যে।

ঢাকা/ফিরোজ/তারা

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়