RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ২০ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ৬ ১৪২৭ ||  ০৫ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সিরাজগঞ্জে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৬৯ বস্তা চাল জব্দ

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৫৮, ২৩ নভেম্বর ২০২০  
সিরাজগঞ্জে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৬৯ বস্তা চাল জব্দ

সিরাজগঞ্জের সয়দাবাদ ইউনিয়নে কালো বাজারে বিক্রি হয়ে যাওয়া খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ১০ টাকা কেজির ৬৯ বস্তা চাল জব্দ করেছে প্রশাসন। এ ঘটনায় তিন কালো বাজারিকে খুঁজছে পুলিশ। 

সোমবার (২৩ নভেম্বর) বিকেলে উপজেলার ১০নং সয়দাবাদ ইউনিয়নের দুখিয়াবাড়ী পূর্বপাড়ার তিনটি বাড়ি থেকে এসব চাল জব্দ করা হয়।

জানা গেছে, ১০ টাকা কেজি দরের চাল তালিকাভুক্ত উপকারভোগীদের মাঝে বিক্রি করা হয়। এরমধ্যে বেশকিছু বস্তা চাল পাচারের জন্য রমজান আলী ওরফে ভাষার বাড়িতে ২৬ বস্তা, শ্রী মানিক চন্দ্রের বাড়িতে ২৩ বস্তা ও আমজাদ হোসেনের বাড়িতে ২০ বস্তা চাল রাখা হয়েছে। ওই তিন জনের বাড়িতে তালাবদ্ধ করে রাখা ওইসব চালের খবর প্রকাশ হয়ে পড়লে সেখানে গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত হন। পরে গণমাধ্যমকর্মীরা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি জানায়।

খবর পেয়ে সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রহমত উল্লাহ ঘটনাস্থলে যান। এসময় ওই তিনটি বাড়ি থেকে পৃথকভাবে রাখা ৬৯ বস্তা চাল জব্দ করা হয়। জব্দকৃত চাল ইউনিয়ন পরিষদে সংরক্ষণ করা হয়েছে।

এদিকে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির সয়দাবাদ ইউনিয়নের ডিলার মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন, রুবেল, সবুজ, হালিম ও রকেট সরকারি চাল কালো বাজারে বিক্রির বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ‘অনেক স্বচ্ছল ব্যক্তি ডিলার পয়েন্ট থেকে চাল কিনে বাইরে বিক্রি করে দেন। আমরা কার্ডধারী ছাড়া কাউকে চাল দেই না।’

সয়দাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান মো. নবীদুল ইসলাম জানান, হতদরিদ্রদের দেওয়া ১০ টাকা কেজি দরের চাল সিন্ডিকেটের হাতে চলে যাচ্ছে। তাই বিষয়টি সঠিকভাবে যাচাই-বাছাই করে প্রকৃত রহস্য উদঘাটনের দাবি জানাই।

সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রহমত উল্লাহ বলেন, ‘হতদরিদ্রদের দেওয়া ১০ টাকা কেজি দরের চাল বাড়ি নিয়ে মজুদ করা হয়েছে শুনে ঘটনাস্থলে যাই। চাউলগুলো জব্দ করা হয়েছে। জব্দকৃত চালগুলো ইউনিয়ন পরিষদে সংরক্ষণে রেখে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অধিদপ্তর ও স্থানীয় ইউপি সদস্যকে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

অদিত্য রাসেল/সনি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়