ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩০ আষাঢ় ১৪২৭, ১৪ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

আর্থিক সংকট, ঈদের আনন্দ নেই পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারীদের

নুরুজ্জামান তানিম : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৫-২৩ ২:৩৬:২১ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৫-২৩ ৫:৫৪:১৬ পিএম

করোনার কারণে সবকিছু বন্ধ।  চলছে সাধারণ ছুটি।  বন্ধ রয়েছে পুঁজিবাজার। ঈদের মাত্র কয়েকদিন বাকি।  কিন্তু করোনার কারণে কষ্টে রয়েছেন  পুঁজিবাজারের বিনিয়োগকারীরা।

করোনার প্রভাবে সাধারণ ছুটির আওতায় প্রায় দুই মাস ধরে পুঁজিবাজার বন্ধ রয়েছে।  বিনিয়োগকারীদের হাতে নেই টাকা।  এ পরিস্থিততে পুরো পরিবারের তিনবেলা খাবার জুটানো তাদের কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে।  এবারের ঈদকে কেন্দ্র করে বিনিয়োগকারীদের মনে নেই কোনো আনন্দ।

জানা গেছে, অনেক বিনিয়োগকারীদের আয়-রোজগার কেবলমাত্র পুঁজিবাজারের ওপর নির্ভরশীল। তাদের অধিকাংশই অর্থ সংকটে রয়েছেন।  বাজার বন্ধ থাকায় ব্রোকারেজ হাউজ ও মার্চেন্ট ব্যাংকে বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও) অ্যাকাউন্টে উত্তোলনযোগ্য (ম্যাচুয়েড) টাকা থাকা সত্বেও তা উঠাতে পারেনি বিনিয়োগকারীরা।  হাতে টাকা না থাকোয় এবারের ঈদে অনেক বিনিয়োগকারী তাদের স্ত্রী, সন্তাদের প্রয়োজন মেটাতে পারছেন না।  আর এ কষ্টের কথা মুখ ফুটেও কাউকে বলতে পারছে না। তাই ঈদের পর দ্রুত পুঁজিবাজার খুলে দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষসহ সরকারের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন বিনিয়োগকারীরা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পুঁজিবাজার বন্ধ থাকায় বর্তমানে অনেক বিনিয়োগকারী অর্থ কষ্টে ভুগছেন।  ঈদ পরবর্তীতে বাজার খুলে না দেওয়া হলে বিনিয়োগকারীদের সংকট আরো তীব্র হবে।  তাই বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ বিবেচনা করে পুঁজিবাজার দ্রুত খুলে দেওয়া উচিত।

জয়তুন সিকিউরিটিজ ইন্টারন্যাশনালের বিনিয়োগকারী মো. আতাউর রহমান রাইজিংবিডিকে বলেন, আমার উপার্জনের একমাত্র অবলম্বন পুঁজিবাজার।  করোনার প্রভাবে পুঁজিবাজার বন্ধ থাকায় এখন আয়-রোজগার বন্ধ। পরিবার নিয়ে চরম আর্থিক সংকটে দিন পার করছি।  দুই মাসের ঘর ভাড়াও দিতে পারিনি।

জাহাঙ্গীর কবির সিকিউরিটিজের বিনিয়োগকারী জোবায়ের ইসলাম রাইজিংবিডিকে বলেন, পুঁজিবাজার বন্ধ থাকায় একটি টাকাও বিও হিসাব থেকে উঠাতে পারিনি। গত দুই মাস ধরে অনেক কষ্টে দিন পার করছি।  কয়েক দিন পর ঈদ। এবার ঈদে পরিবার পরিজনকে কিছুই কিনে দেওয়ার সামর্থ নেই।  তাদের মুখের দিকেও তাকাতে পারি না। এ মুহূর্তে বেচেঁ থাকার জন্য সরকারের কাছে আর্থিক প্রণোদনা দাবি করছি।

বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক কাজী আব্দুর রাজ্জাক রাইজিংবিডিকে বলেন, অনেক বিনিয়োগকারী আছেন যাদের আয়ের পুরোটাই পুঁজিবাজারের ওপর নির্ভরশীল। তারা টাকা উঠাতে না পেরে মানবেতর জীবনযাপন করছেন।  বিনিয়োগকারীদের জন্য সরকারের কাছে আর্থিক প্রণোদনার দাবি করছি। আসন্ন বাজেটে মহামারি করোনাভাইরাসজনিত ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার নিমিত্তে ন্যূনতম  আগামী পাঁচ বছরের জন্য নিঃশর্তে কালো টাকা বিনিয়োগের সুযোগ দেওয়া হোক।  পাশাপাশি বিনিয়োগকারীদের আর্থিক ক্ষতি পূরণের জন্য মার্জিন অ্যাকাউন্টের সুদ চলতি বছরের মার্চ থেকে ডিসেম্বর মওকুফের দাবি জানাচ্ছি।


এনটি/সাইফ