RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ১৪ ১৪২৭ ||  ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ফের তৎপর জঙ্গিরা, সতর্ক গোয়েন্দারা

মাকসুদুর রহমান || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৪৪, ২৪ নভেম্বর ২০২০  
ফের তৎপর জঙ্গিরা, সতর্ক গোয়েন্দারা

প্রতীকী ছবি

দীর্ঘদিন নিস্ক্রিয় থাকার পর ফের তৎপরতা শুরু করেছে জঙ্গিরা।  প্রতিবেশী একাধিক রাষ্ট্রে থাকা জঙ্গিদের সঙ্গে যোগাযোগ করে শক্তি বাড়িয়ে দেশে নাশকতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে তারা।  সম্প্রতি সিরাজগঞ্জ থেকে ৪ জঙ্গি আত্মসমর্পণের পর এমন তথ‌্য জানিয়েছেন গোয়েন্দারা। 

শনিবার (২১ নভেম্বর) বিকেলে র‌্যাপিড অ‌্যাকশন ব‌্যাটলিয়ন (র‌্যাব)-এর লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ বলেন, ‘গত সপ্তাহে তথ্য ছিল, নব্য জেএমবি দেশের উত্তর অঞ্চলে সাংগঠনিক কার্যক্রম শুরু করেছে।  খবর পেয়ে শুক্রবার (২০ নভেম্বর) ভোরে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের উকিলপাড়ায় অভিযান চালায় র‌্যাব।  এই অভিযানে ৪ জঙ্গি আত্মসমপর্ণ করে।’

গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে, পুরনো জেএমবি ও আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) কিছু সদস্য একটি প্ল‌্যাটফর্মে যুক্ত হয়েছে। তারা নিজেদের নিরাপদে রেখে দেশের বাইরে বৈঠক করছে।  ২০১৭ সাল থেকে তারা সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে। হামলা-পরবর্তী নিরাপদ আশ্রয় আত্মগোপনের জন্য ‘সেইফ হোম’ তৈরির জন্য তারা এসব করছে। এছাড়া ‘সালাফি’ জঙ্গি সদস্যরা দেশের সীমান্ত এলাকায় অবস্থান করছে।  সেখান থেকে তারা ভারতে অবস্থান করা জঙ্গিদের সঙ্গে যোগাযোগ করে শক্তি বাড়ানোর চেষ্টা করছে।

একটি গোয়েন্দা সূত্র বলছে, গত অক্টোবরে জঙ্গিরা বৈঠকে বসে। বৈঠকে তারা জঙ্গি হামলা চালানোর পরিকল্পনা করে। কিন্তু কাউন্টার টেরোরিজম অ‌্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি)-এর কর্মকর্তারা খবর পেলে জঙ্গিদের সেই পরিকল্পনা ভেস্তে যায়। 

সিটিটিসির এক কর্মকর্তা বলেন, ‘জঙ্গি সংগঠনের কার্যক্রম থেমে থাকে না।  কোনো না কোনোভাবে তারা নিজের কর্মকাণ্ড চালিয়ে যায়। বিভিন্নভাবে যোগাযোগ অব্যাহত রাখে। ভারতের বেঙ্গালুরের জাহিদুল ইসলাম মিজান ওরফে বোমা মিজান গ্রেপ্তার হওয়ার পর জানা গেছে, তারা বেশ কিছু হামলার পরিকল্পনা করেছিল।  যা নিয়ে এখনো এদেশের গোয়েন্দারা কাজ করছেন।’ 

এদিকে, পুরনো জেএমবির প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সালাহউদ্দিন সালেহীন। তিনি ভারতে অবস্থান করছেন। আর আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের প্রধানের কাজ করছেন পলাতক মেজর (অব.) সৈয়দ জিয়াউর রহমান। এছাড়া, হলি আর্টিজান মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি মামুনুর রশিদ ওরফে রিপন ও শরীফুল খালিদ ভারতে থাকতে পারে বলে ধারণা করছেন গোয়েন্দারা। 

গোয়েন্দা সূত্রে আরও জানা গেছে, নব্য জেএমবির সামরিক শাখার নেতৃত্ব দিচ্ছেন আহনাফ হোসেন ওরফে মাহমুদ ও এবিটির মাওলানা গণি।  তারাই জঙ্গিদের ফের সক্রিয় করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন।

তবে, ফের নাশকতা বা হামলা চালানোর সক্ষমতা জঙ্গিদের আর নেই বলে জানান সিটিটিসি প্রধান মনিরুল ইসলাম। তিনি রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘গোয়েন্দা, র‌্যাবসহ সরকারের বিভিন্ন সংস্থা সার্বক্ষণিক জঙ্গিদের নিয়ে কাজ করছে।  তাদের অবস্থান, সাংগঠনিক কার্যক্রম কিভাবে পরিচালিত হচ্ছে, তার তথ্য আমাদের কাছে আসছে। আমরা সেভাবেই কাজ করছি।’

এদিকে, র‌্যাবের এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত সারাদেশে ১৫৮টি জঙ্গিবিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। এই সময় বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠনের ২৮৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।  এর মধ্যে জেএমবি সদস্য ১০৭ জন।  তাদের কাছ থেকে পিস্তল, গ্রেনেড, বোমা, গান পাউডার ও ককটেল উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া, বিপুল পরিমাণ পটাশিয়াম সোডিয়াম নাইড্রেটও পাওয়া গেছে। 

ঢাকা/মাকসুদ/এনই

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়