Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ২১ জুন ২০২১ ||  আষাঢ় ৯ ১৪২৮ ||  ০৯ জিলক্বদ ১৪৪২

নারী নেতৃত্ব বিকাশে এগিয়ে আ.লীগ

এসকে রেজা পারভেজ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:২১, ৮ মার্চ ২০২১  
নারী নেতৃত্ব বিকাশে এগিয়ে আ.লীগ

বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলগুলোতে নারীর অংশগ্রহণ তুলনামূলক কম হলেও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ এদিক দিয়ে এগিয়ে রয়েছে। 

গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশে ৩৩ শতাংশ নারী কোটা পূরণের ক্ষেত্রে যে বাধ্যবাধকতা রয়েছে, তা পূরণে তুলনামূলক শীর্ষে রয়েছে দলটি।  তবে কেন্দ্রীয় পর্যায়ে নারীর অংশগ্রহণ  আশা জাগানিয়া হলেও তৃণমূল পর্যায়ে নারীর অংশগ্রহণ  বেশ হতাশাজনক।  

আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে সমাজের যেকোনো পর্যায়ে নারীর ক্ষমতায়ন, অধিকার বেড়েছে অনেক। তেমনি রাজনীতিতে নারীর অংশগ্রহণ আরও বাড়ুক তা চায় দলটি। তৃণমূল পর্যায়েও যাতে নারীর ব‌্যাপক অংশগ্রহণ হয়- এজন‌্য সে অনুযায়ী কাজ চলছে।

জানতে চাইলে দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম রাইজিংবিডিকে বলেন, সমাজের সর্বক্ষেত্রে কিন্তু নারীর অংশগ্রহণ বেড়েছে। আওয়ামী লীগের নারীর অংশগ্রহণ কিন্তু অন‌্য রাজনৈতিক দলের চেয়ে বেশি।  তবে আমরা চাই, শুধু কোটা অনুযায়ী নয়, তার চেয়ে বেশি হারে নারীর অংশগ্রহণ হোক রাজনীতিতে। এটা যাতে তৃণমূল পর্যায়েও বিস্তৃত হয় সেজন‌্য আমরা পদক্ষেপ নিচ্ছি।

২০০৮ সালে হওয়া গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) অনুযায়ী, ২০২০ সালের মধ্যে ৩৩ শতাংশ নারী কোটা পূরণের ক্ষেত্রে আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এ শর্ত পূরণে যেসব দল ব্যর্থ হবে আইন অনুযায়ী তাদের নিবন্ধন বাতিল হয়ে যাবে বলেও আরপিওতে বলা আছে। কিন্তু বেশিরভাগ দলই এখন পর্যন্ত এক্ষেত্রে আরপিও অনুসরণ করছে না।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে দেখা গেছে, দলটির একুশ তম জাতীয় সম্মেলনে ৮১ সদস্য বিশিষ্ট কার্যনির্বাহী কমিটিতে ২০ জন মহিলা প্রতিনিধি রয়েছে। এই হার প্রায় ২৫ শতাংশের বেশি। এর মধ‌্যে দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস‌্য সাহারা খাতুন মারা যান গত বছর। এর আগের কমিটিতে নারীর প্রতিনিধিত্বে হার ছিল ১৯ দশমিক ৪৮ শতাংশ। অর্থাৎ ৯ শতাংশের বেশি বেড়েছে নারীর প্রতিনিধিত্ব।

দলের ২১তম জাতীয় সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছিলেন, ৩৩ শতাংশ নারীর প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে তার দল কাজ করছে।  দ্রুত এই কোটা পূরণ করা হবে। অর্থাৎ গত ১০ বছরে এ শর্ত পূরণে অন্য দলগুলো তেমন উদ্যোগী না হলেও আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে নারীর সংখ্যা বেড়েছে এবং ক্রমেই তা শর্ত পূরণের দিকে এগোচ্ছে।

আওয়ামী লীগে নারী প্রতিনিধিত্বের মধ্যে রয়েছেন সভাপতি শেখ হাসিনা, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য পদে সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, মতিয়া চৌধুরী ও অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন (মারা গেছেন, তার পদ শূন‌্য আছে), যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে ডা. দীপু মনি।  দলের বিষয়ভিত্তিক সম্পাদকমণ্ডলীর পদে আছেন ৬ জন নারী। তাদের মধ্যে অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক বেগম ওয়াসিকা আয়েশা খান, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. শাম্মী আহমেদ, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মেহেরে আফরোজ চুমকি, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শামসুন নাহার চাঁপা, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা। 

কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য পদে আছেন ৮ জন। তাদের মধ্যে বেগম আখতার জাহান, অধ্যাপক মেরিনা জাহান, পারভীন জাহান কল্পনা, হোসনে আরা লুৎফর ডালিয়া, অ্যাডভোকেট সফুরা বেগম রুমি, অ্যাডভোকেট সানজিদা খানম, মারুফা আক্তার পপি, অ্যাডভোকেট গ্লোরিয়া সরকার ঝর্না।

জানা গেছে, কেন্দ্রীয় কমিটিতে আওয়ামী লীগের নারীর হার আশা জাগানিয়া হলেও তৃণমূলের বিভিন্ন কমিটিতে সেই হার বেশ হতাশাজনক। তবে তৃণমূলেও যাতে নারীর অংশগ্রহণ বাড়ে সেজন‌্য সংশ্লিষ্ট ইউনিটগুলোতে নির্দেশনা দেওয়া আছে দলের শীর্ষ পর্যায়ের। আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনগুলোর মধ‌্যে দুটি সংগঠন আছে যেখানে শতভাগ নারী নেতৃত্ব। মহিলা আওয়ামী লীগ এবং যুব মহিলা লীগের-এই দুটি সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে শুরু করে তৃণমূল পর্যন্ত শতভাগ নারী নেতৃত্ব দিচ্ছেন।  

 পারভেজ/সাইফ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়