ঢাকা, মঙ্গলবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

অ্যাপ ব্যবহারকারীদের যৌন জীবনের তথ্য পাচ্ছে ফেসবুক

মোখলেছুর রহমান : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৯-১১ ১০:২৫:৩৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৯-১১ ১০:২৬:৪৭ পিএম
অ্যাপ ব্যবহারকারীদের যৌন জীবনের তথ্য পাচ্ছে ফেসবুক

মোখলেছুর রহমান : অ্যাপ ব্যবহারকারীদের অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ফেসবুকের সাথে শেয়ার করা হচ্ছে। এর মধ্যে যৌন মিলনের সময় সহ কিছু স্পর্শকাতর তথ্যও রয়েছে।

লন্ডনভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা প্রাইভেসি ইন্টারন্যাশনালের (পিআই) এক সমীক্ষায় এ তথ্য উঠে এসেছে। মূলত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর সাথে ঠিক কি ধরনের তথ্য শেয়ার করা হয় তা দেখতে পিআই বিভিন্ন পিরিয়ড ট্র্যাকিং অ্যাপের ওপর এই সমীক্ষা চালায়। সমীক্ষায় দেখা যায়, অ্যাপগুলো সাধারণ স্বাস্থ্য থেকে শুরু করে ব্যবহারকারী যৌনতা, মেজাজ, ব্যবহারকারী কি খান, কি পানীয় পান করেন এবং এমনকি কি স্যানিটারি পণ্য ব্যবহার করেন সে সম্পর্কে তথ্য পর্যন্ত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর সাথে শেয়ার করে।

সামাজিক নেটওয়ার্কস সফটওয়্যার ডেভলপমেন্ট কিট (এসডিকে) এর মাধ্যমে ফেসবুকের সাথে এসমস্ত তথ্য শেয়ার করা হয়। এই টুলটি ব্যবহার করে অ্যাপগুলো ব্যবহারকারীদের বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে এবং বিনিময়ে বিজ্ঞাপনদাতাদের কাছ থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারে।

তবে পিআই এই সমীক্ষায় দেখতে পায় যে, এই বিভাগের কিছু জনপ্রিয় অ্যাপ পিরিয়ড ট্র্যাকার, পিরিয়ড ট্র্যাক ফ্লোর এবং ক্লু পিরিয়ড ট্র্যাকার ফেসবুকের সাথে কোনো তথ্য শেয়ার করে না।

কিন্তু অন্য অ্যাপ সমূহ যেমন- মায়া বাই প্ল্যাকাল টেক (যার গুগল প্লেতে ৫ মিলিয়ন ডাউনলোড রয়েছে), এমআইএ বাই মোবঅ্যাপ ডেভেলপমেন্ট লিমিটেড (২ মিলিয়ন বার ডাউনলোড হয়েছে) এবং লিঞ্চপিন হেলথের মাই পিরিয়ড ট্র্যাকার (৩০ মিলিয়নেরও বেশি বার ডাউনলোড হয়েছে) ফেসবুকের সাথে তথ্য শেয়ার করে।

পিআই দাবি করেছে, তাদের এই গবেষণার মাধ্যমে এটিই প্রতীয়মান হয়েছে যে, বিশ্বব্যাপী কয়েক মিলিয়ন ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত জীবনের স্পর্শকাতর তথ্য সেই ব্যবহারকারীদের অজ্ঞাতসারেই ফেসবুক এবং অন্যান্য তৃতীয় পক্ষের সাথে শেয়ার করা হয়েছে। এতে ব্যবহারকারীর স্বাস্থ্য বা যৌনজীবন সম্পর্কিত সংবেদনশীল ব্যক্তিগত তথ্যও রয়েছে।

গবেষণাটি প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পর মায়া পিআইকে জানায় যে, তারা তাদের অ্যাপ থেকে ফেসবুক কোর এসডিকে এবং অ্যানালিটিক্স এসডিকে উভয়ই সরিয়ে নিয়েছে। তবে লিঞ্চপিন হেলথ পিআইয়ের এই গবেষণাটি প্রতিবেদন সম্পর্কে কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি এবং এমআইএ বলেছে যে, এ সম্পর্কে কোনো প্রতিক্রিয়া জানাতে তারা চায় না।

আর ফেসবুক বিবিসিকে জানিয়েছে, তাদের পরিষেবার শর্তাদি ডেভেলাপারদের এধরনের সংবেদনশীল স্বাস্থ্য সম্পর্কিত তথ্য প্রেরণ করতে নিষেধ করে এবং তারা যখন সংবেদনশীল স্বাস্থ্য সম্পর্কিত তথ্য প্রেরণের কোনো তথ্য পান তখন এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

তথ্যসূত্র : বিবিসি


রাইজিংবিডি/ঢাকা/১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯/ফিরোজ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন