ঢাকা, শুক্রবার, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৫ জুন ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

লকডাউনে অতিরিক্ত শরীরচর্চা মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর!

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৪-১০ ৩:৪৪:২২ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৪-১০ ৩:৪৪:২২ পিএম

ব্যস্ত জীবনে ছেদ টেনেছে করোনাভাইরাস। এক সময় যেখানে শরীরচর্চার ক্ষেত্রে অনেকে সময় না থাকার অজুহাত দেখাতেন, সেখানে কারোনার কারণে এখন সময়ের অভাব নেই।

ফলে যারা স্বাস্থ্য সচেতন তারা তো বটেই, এমনকি যারা স্বাস্থ্য সচেতন ছিলেন না তারাও এখন ঘরবন্দী জীবনে অতিষ্ঠ হয়ে সময় কাটাতে শরীরচর্চা শুরু করেছেন। অনেকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা শরীরচর্চা করছেন।

কিন্তু লকডাউনের সময়ে বেশি সময় ধরে শরীরচর্চার বিরুদ্ধে সতর্ক করেছেন বিজ্ঞানীরা। অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেড ইউনিভার্সিটির গবেষকরা জানিয়েছেন, দীর্ঘ সময় ধরে ব্যায়াম করা আসলে আপনার মানসিক স্বাস্থ্যের উপর ক্ষতিকারক প্রভাব ফেলতে পারে।

গবেষকরা চীনে ১ মাসের লকডাউন শেষ হওয়ার পর দেশটির ৬৪ শহরে ৩৬৯ জন প্রাপ্তবয়স্কদের ওপর একটি সমীক্ষা করেছিলেন। গবেষণায় নেতৃত্বদানকারী বিজ্ঞানী স্টিফেন ঝাং বলেন, ‘বিশ্বের অনেক দেশ যেখানে সবেমাত্র লকডাউনে যেতে শুরু করেছে, আমরা জনগণের স্বাস্থ্য, দুর্দশা এবং সন্তুষ্টির ওপর এক মাসের দীর্ঘ লকডাউনের প্রভাব পরীক্ষা করেছি।’

গবেষণার ফলাফলে দেখা গেছে, লকডাউনের সময়ে যারা শারীরিকভাবে নিস্ক্রিয় ছিল তাদের মানসিক স্বাস্থ্য বেশি খারাপ ছিল, যারা শারীরিকভাবে সক্রিয় ছিল তাদের তুলনায়।

গবেষণাটি প্রকল্পটির আরেক গবেষক প্রফেসর আন্দ্রেস রাউচ বলেন, ‘আমরা অবাক হইনি যে, প্রাপ্তবয়স্ক যারা নিষ্ক্রিয় ছিল তারা মানসিক ও শারীরিক স্বাস্থ্যের খারাপ পরিস্থিতি ও দুর্দশার কথা জানিয়েছিল। কাজ মানুষকে উদ্দেশ্যমূলক ধারণা এবং রুটিন প্রদান করতে পারে, যা বিশ্বব্যাপী এই মহামারির সময় বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ।’

তবে গবেষণার ফলাফলে এটাও দেখা গেছে যে, দীর্ঘ সময় ধরে শরীরচর্চা করা আপনার মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে।

গবেষণায় অংশগ্রহণকারী যারা প্রতিদিন আড়াই ঘণ্টার বেশি সময় ধরে ব্যায়াম করেছেন তারা মানসিক অসন্তুষ্টির কথা জানিয়েছেন, অন্যদিকে যারা লকডাউনের সময়টায় আধা ঘন্টা বা তার চেয়ে কম সময় ব্যায়াম করেছেন তারা জীবনে ইতিবাচক সন্তুষ্টির কথা জানিয়েছেন।

ড. ঝাং বলেন, ব্যায়াম করার সময় সম্পর্কিত এই ফলাফল দেখে আমরা সত্যিই অবাক হয়েছিলাম। কারণ এটি প্রচলিত ধারণার বিপরীত কিছু। আর এমনটা সম্ভব হতে পারে এ কারণে যে, প্রাপ্ত বয়স্ক যারা কম সময় ব্যায়াম করে তারা তাদের নিষ্কিয় জীবনধারাকে আরো সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারে। প্রতিদিন দীর্ঘ সময় যারা শরীরচর্চা করে তাদের মধ্যে অবসেশন দেখা দিতে পারে যা খারাপ মানসিক স্বাস্থ্যের লক্ষণ।

 

ঢাকা/ফিরোজ