ঢাকা     বুধবার   ০৫ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২১ ১৪২৭ ||  ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

করোনার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় রোগীর উদ্ভট কাণ্ড

|| রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:৩২, ১১ জুলাই ২০২০  

তীব্র জ্বর থেকে শুরু করে গন্ধ বা স্বাদের অনুভূতি হারানো- নতুন করোনাভাইরাস এ ধরনের বেশকিছু অপ্রীতিকর উপসর্গের কারণ হিসেবে পরিচিত। এছাড়া কোভিড-১৯ নামক এই রোগ ডেলিরিয়াম (মতিভ্রম) সহ স্বল্প পরিচিত কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার সঙ্গেও সম্পর্কিত। 

আর এবার করোনার ডেলিরিয়াম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার এক উদ্ভট কেস রিপোর্ট প্রকাশ করেছেন গবেষকরা। করোনা আক্রান্ত এক রোগী এতটাই মতিভ্রমের শিকার হোন যে, তিনি তার স্ত্রীর কাছে বিয়ের আগে সমকামিতার কথা স্বীকার করে ফেলেন। গবেষণাপত্রে ওই রোগীর পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি।

৪১ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি ১০ দিন ধরে শুষ্ক কাশি এবং ১ দিন মাথাব্যথায় ভোগার পর হাসপাতালে যান। বিএমজে জার্নালে প্রকাশিত এই কেস রিপোর্টে তার চিকিৎসকরা উল্লেখ করেন, ‘তিনি রাতে ঘুম থেকে হঠাৎ জেগে ওঠেন, মানসিকভাবে অস্থির হয়ে পড়েন এবং তার মস্তিষ্কে দৌঁড়ঝাপ চলছে, তিনি যেন মারা যাচ্ছেন- এমন অনুভূতির কথা স্ত্রীকে জানান। এ সময় তিনি স্ত্রীর কাছে বিয়ের আগে নিজের সমকামিতার কথা এবং অন্যান্য বিকৃত যৌন কার্যকলাপের কথাও বলতে থাকেন।’

ওই ব্যক্তির অদ্ভুত আচরণ সেখানে থামেনি। চিকিত্সকদের মতে, হাসপাতালে থাকালকালীন সময়েও উচ্চস্বরে চিৎকার, প্রলাপ বকা, বিকৃত যৌনতা নিয়ে কথাবার্তা, হাসপাতালের কর্মীদের স্পর্শ করার চেষ্টাসহ নানা উদ্ভট আচরণ তার মধ্যে দেখা দেয়। আচরণের মাত্রা ছাড়িয়ে গেলে শ্বাসকষ্টের সমস্যা না থাকা সত্ত্বেও চিকিৎসকরা তাকে আইসিইউতে ভর্তি করেন।

আশার কথা হচ্ছে, ওই রোগীর অবস্থার উন্নতি হয় এবং ১২ দিন পর তাকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়। ২৩ দিন পর ফলোআপ চলাকালীন সময়ে তার স্ত্রী নিশ্চিত করেন যে, তার স্বামীর আচরণ স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে এসেছে।

গবেষকদের মতে, লোকটির আগে থেকেই বাইপোলার ডিসঅর্ডার থাকতে পারে, তবে তার এমন আচরণের সূত্রপাত কোভিড-১৯ রোগের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার বিকল্প কারণটিও অস্বীকার করেননি।

গবেষণাপত্রে গবেষকরা বলেন, ‘এই কেস স্টাডিতে সার্স-কোভ-২ ভাইরাস সংক্রমণের সঙ্গে যুক্ত তীব্র মানসিক সমস্যার একটি বিরল ঘটনার রূপরেখা রয়েছে। এটি বিশেষত মারাত্মক ছিল, জরুরি অন্তর্দৃষ্টি এবং মনোরোগের চিকিৎসাও জরুরি।’

তবে প্রলাপ বকা এবং করোনাভাইরাসের মধ্যে যোগসূত্র থাকার এটিই প্রথম ঘটনা নয়। টেক্সাস হেলথ আর্লিংটন মেমোরিয়াল হাসপাতালের নিউরোলজিস্ট ডা. হালিম ফাদিল বলেন, ‘অনেক কোভিড-১৯ রোগীর স্নায়ুবিক লক্ষণ দেখা যাচ্ছে যেমন: মাথাব্যথা, বিভ্রান্তি, খিঁচুনি এবং এমনকি স্ট্রোকের খবরও পাওয়া গেছে। যা নির্দেশ করে যে ভাইরাসটি রোগীদের মস্তিস্কেও প্রভাব ফেলছে।’

 

ঢাকা/ফিরোজ

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়