RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ২৬ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১১ ১৪২৭ ||  ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আয়ু বাড়াতে সক্ষম হলেন বিজ্ঞানীরা

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৬:৫৬, ২১ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
আয়ু বাড়াতে সক্ষম হলেন বিজ্ঞানীরা

প্রতীকী ছবি

জীবনকাল বাড়াতে সব ধরনের আইডিয়া নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছেন বিজ্ঞানীরা, যাতে আমাদের জীবনে আরো কয়েকটা বছর যুক্ত হয়। তারই ধারাবাহিকতায় ইঁদুরের ওপর নতুন এক গবেষণায় এবার চমকপ্রদ ফলাফল মিলেছে: বড় আকৃতির টেলোমের স্থাপনের মাধ্যমে জীবনকাল বাড়ানো সম্ভব হয়েছে।

টেলোমের হচ্ছে, কোষীয় উপাদান ক্রোমোজোমের আবরণ। এতে জিন সংকেত বা ডিএনএ সুরক্ষিত থাকে। প্রতিবার কোষ বিভাজনের সময় এই টেলোমের একটু একটু করে ধ্বংস হয় এবং এর দৈর্ঘ্য কমে যায়। টেলোমের আকারে যত ছোট হয়, আয়ুষ্কালও তত কম বলে ধরে নেওয়া হয়। প্রকৃতপক্ষে, আমাদের বয়স যত বাড়তে থাকে টেলোমের তত বেশি খাটো হতে থাকে।

বিশ্বে আয়ুষ্কাল বাড়ানো নিয়ে বহু গবেষণা হয়েছে, যেখানে এই টেলোমেরগুলোকে যতটা সম্ভব স্বাস্থ্যকর এবং শক্তিশালী করার চেষ্টা করেছেন বিজ্ঞানীরা। সব গবেষণায় এটি সম্ভব করার চেষ্টা করা হয়েছে জিন পরিবর্তনের মাধ্যমে। কিন্তু নতুন গবেষণাটি কোনো ধরনের জিন পরিবর্তনের ওপর নির্ভর করে না।

স্পেনের জাতীয় ক্যানসার গবেষণা কেন্দ্রের (সিএআইও) একদল জীববিজ্ঞানী পেট্রি ডিশে প্লুরিপোটেন্ট স্টেম বিভক্ত করে এর আকার স্বাভাবিকের চেয়ে দ্বিগুণ করতে পেরেছেন। একই উপায়ে এর আকৃতি বাড়ানো হয় স্টেম সেলেও। ফলে বিজ্ঞানীরা জিনগতভাবে কোনো পরিবর্তন না এনেই ইঁদুরের ভ্রণের কোষে তা স্থাপন করেন।

সিএনআইও’র আণবিক জীববিজ্ঞানী মারিয়া ব্লাসকো বলেন, ‘আবিষ্কারটি এই ধারণাকে সমর্থন করে যে, যখন দীর্ঘায়ু নির্ধারণের বিষয়টি আসে, জিনগুলো কেবল বিবেচনার বিষয় নয়। জিন পরিবর্তন না করে আয়ু বাড়ানোর প্রান্ত রয়েছে।’

গবেষণার ফলাফলে দেখা গেছে, বড় আকৃতির টেলোমের নিয়ে জন্মগ্রহণকারী ইঁদুরগুলো গড়ে ২৪ শতাংশ বেশি বেঁচে ছিল, চিকন ছিল এবং ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কম ছিল। বার্ধক্যগ্রস্ত হওয়ার বিভিন্ন সূচকও খুব কম হয়েছে। ইঁদুরগুলোর দেহে খারাপ কোলেস্টেরল কম ছিল এবং বয়স বাড়ার সাথে তাদের ডিএনএ তেমন ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। পাশাপাশি তাদের মাইটোকন্ড্রিয়া ফাংশনও ভালো কাজ করেছে।

যা হোক, এটা মনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ যে এটি ইঁদুরের উপর তুলনামূলকভাবে একটি ছোট গবেষণা। এবং এর মানে এই নয় যে, আমরা শিগগির যেকোনো সময় অনেক দীর্ঘ জীবনকালসম্পন্ন মানুষের জন্ম দিতে পারবো।

তবে নতুন এই গবেষণার বিস্ময়কর ফলাফলে টেলোমের দৈর্ঘ্য এবং প্রাণীদের জীবদ্দশার মধ্যে একটি শক্তিশালী যোগসূত্র মিলেছে এবং এই সংযোগের সুবিধা নিতে সক্ষম হওয়ার নতুন উপায়গুলো আবিষ্কার করতে সাহায্য করতে পারে।

‘এই গবেষণা প্রমাণ করে যে, ইঁদুরের স্বাভাবিকের চেয়ে দীর্ঘ টেলোমেরগুলো উপকারী প্রভাব প্রদর্শন করে, বয়স এবং ক্যানসার বিলম্বিত করে এবং দীর্ঘজীবন দেয়।’ গবেষকরা তাদের প্রকাশিত গবেষণাপত্রে বলেছেন। গবেষণাপত্রটি নেচার কমিউনিকেশন্সে প্রকাশিত হয়েছে।

 

ঢাকা/ফিরোজ

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়