RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৪ নভেম্বর ২০২০ ||  অগ্রাহায়ণ ১০ ১৪২৭ ||  ০৭ রবিউস সানি ১৪৪২

রেমডেসিভির ও অন্য ওষুধের সমন্বয়ে করোনা চিকিৎসা

এস এম গল্প ইকবাল || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৬:৪৭, ২২ মে ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
রেমডেসিভির ও অন্য ওষুধের সমন্বয়ে করোনা চিকিৎসা

শরীরের ভেতর করোনাভাইরাসের বিস্তার প্রতিরোধ এবং ইমিউন সিস্টেমের ধ্বংসাত্মক প্রভাব থামাতে কোভিড-১৯ এর চিকিৎসায় একটি সমন্বিত ওষুধ থেরাপির কথা ভাবা হচ্ছে।

কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে পরীক্ষামূলক অ্যান্টিভাইরাল ড্রাগ রেমডেসিভির ও শক্তিশালী অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি ড্রাগ বারিসিটিনিব কার্যকর কিনা জানতে যুক্তরাষ্ট্রে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে।

আটলান্টায় অবস্থিত ইমোরি ইউনিভার্সিটি স্কুল অব মেডিসিনের মেডিসিন অ্যান্ড গ্লোবাল হেলথের অধ্যাপক ভিনসেন্ট মারকোনি বলেন, ‘গবেষণায় রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিস রোগে বারিসিটিনিব ব্যবহার করে দেখা গেছে এটি খুব সহনীয় ছিল। এই ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই বললেই চলে, তাই এটিকে অধিকাংশ অ্যান্টিভাইরাল ড্রাগের সঙ্গে সমন্বিত করা যেতে পারে। এর মধ্যে রেমডেসিভিরও অন্তর্ভুক্ত।’

শুধুমাত্র এই একটি গবেষণাতেই রেমডেসিভির ও অন্য ওষুধের সমন্বয় পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে না। ওয়াশিংটনের বায়োটেক ফার্ম সাইটোডিনও রেমডেসিভির ও লিরনলিম্যাব নিয়ে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের প্রস্তুতি নিচ্ছে। কোম্পানিটির মতে, লিরনলিম্যাব হচ্ছে এমন একটি ওষুধ যা ভাইরাস সংক্রমণকে বাধা দেয় ও কিছু প্রদাহনাশক প্রতিক্রিয়াও রয়েছে।’

রেমডেসিভির সাথে অন্যান্য ওষুধ ব্যবহার করা হচ্ছে কেন? এ প্রসঙ্গে শিকাগোতে অবস্থিত ইউনিভার্সিটি অব ইলিনয়েসের সংক্রামক রোগ গবেষণার প্রধান রিচার্ড নোভাক বলেন, ‘দেখা গেছে যে রেমডেসিভির মানুষের শরীরে কোভিড-১৯ সৃষ্টিকারী করোনাভাইরাসের সংখ্যাবৃদ্ধি থামাতে পেরেছে। কিন্তু এটাও লক্ষ্য করা গেছে যে, রোগীদের স্বাস্থ্য উন্নতিতে এটির প্রভাব সীমিত।’

গবেষকরা ধারণা করছেন যে, কোভিড-১৯ এর তীব্র কেসে ইমিউন সিস্টেমের অতিপ্রতিক্রিয়া দমাতে এই অ্যান্টিভাইরাল ড্রাগ (রেমডেসিভির) কিছুই করতে পারে না। তীব্র কোভিড-১৯ সংক্রমণে খুব বেশি প্রদাহ হয়ে অঙ্গের ক্ষতি ও নিউমোনিয়া হয়।

জনস হপকিন্স সেন্টার ফর হেলথ সিকিউরিটির সিনিয়র স্কলার অমেশ আদলজা বলেন, ‘রেমডেসিভির ব্যবহারে বাড়তি উপকার পাওয়া যাচ্ছে এবং রোগীরা দ্রুত সুস্থ হচ্ছেন। কিন্তু কিছু ইমিউন সংক্রান্ত সমস্যা কোভিড-১৯ রোগীদের মারাত্মক পরিণতির দিকে ঠেলে দেয়, যার সমাধান রেমডেসিভির দিতে পারছে না।’

গবেষক দলগুলো আশাবাদী যে রেমডেসিভিরের সঙ্গে বারসিটিনিব সংযোজনে আরো কার্যকরভাবে কোভিড-১৯ এর চিকিৎসা করা যাবে, রোগীরা দ্রুত সুস্থ হবেন ও তাদের জীবন রক্ষা পাবে।

ইউনিভার্সিটি অব ইলিনয়েসে ডা. নোভাকের টিম রেমডেসিভির-বারসিটিনিব ট্রায়ালে প্রথম রোগীকে অন্তর্ভুক্ত করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজের পৃষ্ঠপোষকতায় ট্রায়ালটি চলছে। এই ট্রায়ালের নামকরণ হয়েছে অ্যাডাপ্টিভ কোভিড-১৯ ট্রিটমেন্ট ট্রায়াল (এসিটিটি)।

এসিটিটির প্রথম ধাপে শুধুমাত্র রেমডেসিভিরের ওপর ফোকাস করা হয়েছে। এখন থেকে একইসঙ্গে রেমডেসিভির-বারসিটিনিব প্রয়োগ করা হবে। ভবিষ্যতে রেমডেসিভিরের সঙ্গে অন্যান্য ওষুধও পরীক্ষা করে দেখা হতে পারে, বলেন ডা. নোভাক।

ডা. মারকোনি বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে বিশ্বের ১০০টি হাসপাতালের ৮০০ থেকে ১,০০০ রোগীকে রেমডেসিভির-বারসিটিনিব ট্রায়ালের আওতায় আনা।’ হাসপাতালে ভর্তিকৃত যেসব কোভিড-১৯ রোগীর ফুসফুসীয় জটিলতা রয়েছে তাদের ওপর এই ট্রায়াল চালানো হবে।


ঢাকা/ফিরোজ

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়