Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ০৪ আগস্ট ২০২১ ||  শ্রাবণ ২০ ১৪২৮ ||  ২৩ জিলহজ ১৪৪২

ইউনিসেফের ইউ-রিপোর্ট অ্যাপ তৈরি করবে রাইজআপ ল্যাবস

প্রকাশিত: ১৭:২১, ১৯ জুলাই ২০২১  
ইউনিসেফের ইউ-রিপোর্ট অ্যাপ তৈরি করবে রাইজআপ ল্যাবস

বাংলাদেশি সফটওয়্যার কোম্পানি রাইজআপ ল্যাবস ইউ-রিপোর্ট মোবাইল অ্যাপটি ডিজাইন ও ডেভেলপ করার চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। চুক্তিটি স্বাক্ষর হয়েছে ইউনিসেফ হেডকোয়ার্টার (নিউ ইয়র্ক) এবং ইউনিসেফ ইকারো (সুইজারল্যান্ড) এর সঙ্গে। এই অ্যাপ তৈরি করার জন্য রাইজআপ ল্যাবস সরাসরি কাজ করবে ইউনিসেফ গ্লোবাল ইউ-রিপোর্ট টিম, ইউনিসেফ লাতিন আমেরিকা এবং ক্যারিবিয়ান অফিসের সঙ্গে। এছাড়াও এতে যুক্ত হবেন ইউরোপ এবং মধ্য এশিয়ার ইউনিসেফ অফিসের সদস্যরা। ডেভেলপমেন্ট শেষে ৫ বছর পর্যন্ত সাপোর্ট এবং মেইনটেইন করার প্ল্যান ও এর মধ্যে যুক্ত।

এক্ষেত্রে দুটি অ্যাপ তৈরি করে দেবে রাইজআপ ল্যাবস। প্রথম অ্যাপটির উদ্দেশ্য ইউ-রিপোর্ট ওটিএম আর৪ভি বাস্তবায়নকারী দেশগুলোকে সাপোর্ট দেয়া। বিশেষ করে বলিভিয়া, ব্রাজিল এবং ইকুয়েডরকে। এর মাধ্যমে আরো বেশি কিশোর-কিশোরী ও যুবক-যুবতীদের কাছে পৌঁছানো এবং তাদের অধিকার সম্পর্কে সচেতন করাই এর প্রধান কাজ। দ্বিতীয় অ্যাপটি মূলত বিশ্বের সব ইউ-রিপোর্ট প্রোগ্রামগুলোকে সমর্থন করার জন্য তৈরি। আধুনিক অবকাঠামো ব্যবহার করে একটি স্বাধীন অনলাইনভিত্তিক ইউ-রিপোর্ট ইউজার ইন্টারফেস তৈরি করা এর অন্যতম লক্ষ্য। 

বিভিন্ন বিষয়ে তরুণদের-তরুণীদের মতামত গ্রহণের জন্য ইউনিসেফের একটি উদ্যোগী প্লাটফর্ম হচ্ছে এই ইউ-রিপোর্ট। বিশ্বের ৭৬টি দেশ থেকে ১ কোটি ৪০ লাখের বেশি তরুণ-তরুণী প্লাটফর্মটিতে অংশগ্রহণ করে মতামত প্রদর্শনের জন্য, তাদেরকে বলা হয়ে থাকে ইউ-রিপোর্টার্স। নতুন প্রজন্মের একটি সঠিক কমিউনিটি তৈরি করা এবং প্রত্যেককে একজন ভালো নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলাই ইউনিসেফ এর এই প্লাটফর্মটির মূল উদ্দেশ্য।

রাইজআপ ল্যাবস এর আগে ইউনিসেফ বাংলাদেশের জন্য এই অ্যাপ তৈরি করেছিল। রাইজআপ ল্যাবস ইউনিসেফ বাংলাদেশের একটি দীর্ঘমেয়াদী চুক্তি-র পার্টনার। আইটি কোম্পানিটি ২০২০ সালে তাদের প্রথম ইউ-রিপোর্ট অ্যাপটি তৈরি করে বাংলাদেশের কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পের কিশোর-কিশোরী এবং তরুণ-তরুণীদের প্রয়োজনে। এই অ্যাপের মূল শক্তি তার ডিজিটাল পদ্ধতি। এসএমএস, বিভিন্ন মেসেজ এবং পোলস এ অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে কমিউনিটিগুলো প্রতিনিয়ত উপকৃত হচ্ছে। এটি এমন একটি শক্তি যার মাধ্যমে নাগরিক তাদের কথা দেশ এবং দেশের বাইরে সবার কাছে প্রতিনিয়ত পৌঁছাতে পারছে। ইউ-রিপোর্টাররা এসব জ্ঞান এর মাধ্যমেই তাদের এলাকাভিত্তিক সমস্যাগুলোর সমাধান আনতে পারছে।  

রাইজআপ ল্যাবসের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও এরশাদুল হক বলেন, ‘বাংলাদেশে ইউ-রিপোর্ট অ্যাপটির সফলতা তাদের ইউনিসেফ গ্লোবাল এবং অন্যান্য আঞ্চলিক অফিসগুলোর কাছে পরিচিতি পেতে সাহায্য করেছে।’

রাইজআপ ল্যাবস এশিয়া থেকে একমাত্র কোম্পানি যেটি আফ্রিকা এবং লাতিন আমেরিকা থেকে অন্যান্য কয়েকটি সংস্থার সঙ্গে ইউনিসেফের জন্য ইউ-রিপোর্ট প্ল্যাটফর্মে কাজ করছে।

ঢাকা/ফিরোজ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়