ঢাকা     বুধবার   ০৬ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ২২ ১৪২৯ ||  ০৬ জিলহজ ১৪৪৩

ই-ক্যাব নির্বাচনে ‘অগ্রগামী’র নিরঙ্কুশ বিজয়

প্রকাশিত: ১৬:৩৮, ১৯ জুন ২০২২   আপডেট: ২১:৪৫, ১৯ জুন ২০২২
ই-ক্যাব নির্বাচনে ‘অগ্রগামী’র নিরঙ্কুশ বিজয়

ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) এর কার্যনির্বাহী পরিষদ ২০২২-২৪ এর নির্বাচনে অগ্রগামী প্যানেলের ৮ জন বিজয়ী হয়েছেন। দ্য চেন্জমেকার্স প্যানেল থেকে বিজয়ী হয়েছেন একজন।

রাজধানীর ধানমন্ডিতে ১৮ জুন (শনিবার) অনুষ্ঠিত ই-ক্যাব ২০২২-২৪ মেয়াদের নির্বাচন শেষে এই চিত্র দেখা গেল। কার্যনির্বাহী পরিষদের ৯টি পদের আটটিতেই বিজয়ী হয়েছে অগ্রগামী প্যানেল। অপরদিকে চেঞ্জমেকারস পেয়েছে একটি পদ। আর ঐক্য প্যানেলের কেউ বিজয়ী হতে পারেননি। নির্বাচনে মোট ৭৯৫ ভোটারের মধ্যে ৬১১ জন ভোট দিয়েছেন।

এবারের নির্বাচনে ‘অগ্রগামী’, ‘দ্য চেঞ্জ মেকার্স’ এবং ‘ঐক্য’ নামে তিনটি প্যানেল ও ৪ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তিন প্যানেলের ২৭ জনসহ মোট ৩১ জন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

নির্বাচনে সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছেন ফুডপান্ডার সৈয়দা আম্বারীন রেজা। তার মোট ভোট সংখ্যা ৪৫৩টি। কমজগৎ টেকনোলজিসের মোহাম্মাদ আবদুল ওয়াহেদ তমাল পেয়েছেন ৩৮৬ ভোট। ধানসিঁড়ি ডিজিটালের শমী কায়সার পেয়েছেন ৩৬৫, ব্রেকবাইটের আসিফ আহনাফ ৩৩২, পেপার ফ্লাইয়ের শাহরিয়ার হাসান ৩০৮, রেভারি করপোরেশনের নাসিমা আক্তার ৩০৭, ডায়াবেটিস স্টোরের মোহাম্মাদ সাহাব উদ্দিন ২৮৭, ডিজিটাল হাব সলিউশনসের মো. সাইদুর রহমান ২৭৩, সেবা ডটএক্সওয়াইজেডের মো. ইলমুল হক সজীব ২৭০ ভোট পেয়েছেন।

নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন নির্বাচন পরিচালনা বোর্ডের চেয়ারম্যান আমিন হেলালী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাকি দুই সদস্য এ এইচ এম বজলুর রহমান ও মো. আবদুর রাজ্জাক। নির্বাচিত এই নয় পরিচালকের মধ্যে আগামী তিন দিনের মধ্যে কার্যনির্বাহী কমিটির পদ বণ্টন করা হবে। 

জয়ী হওয়ার পর অনুষ্ঠিত তাৎক্ষণিক সংবাদ সম্মেলনে অগ্রগামী প্যানেল প্রধান শমী কায়সার বলেছেন, আমি আমার ভোটারদের কাছে কৃতজ্ঞ। কেননা, নির্বাচনকে কেন্দ্রকরে গত এক মাস ধরে রিজলভড ইস্যুগুলো নিয়েও আমাদের বিব্রত করার অপচেষ্টা চলেছে। ব্যক্তিগত ভাবে আমি মর্মমাহত হয়েছিলাম। মেম্বাররা সেসব মিথ্যায় কান না দিয়ে আমাদের ওপর আস্থা রেখেছে। আমরা সরবে-নিরবে কাজ করার কারণেই অপপ্রচার কাজে লাগেনি। মিথ্যা অপবাদে আমাদের কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয়নি। বিশ্বাসের জয় হয়েছে। তাই গত বছর যদি আমরা আমাদের দায়িত্বের ৪০ শতাংশ কাজ করি, তাহলে এবার হান্ড্রেড পার্সেন্ট দিয়ে সবগুলো কমিটমেন্ট পূরণ করতে কাজ করবো। বিষোদগার করে নয়, একসঙ্গে সবাইকে নিয়ে কাজ করবো।’

/ফিরোজ/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়