ঢাকা, শনিবার, ৩ কার্তিক ১৪২৬, ১৯ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

আফ্রিদির বোলিংয়ে জয়ে ফিরল কুমিল্লা

আবু হোসেন পরাগ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-১১ ১০:৫০:২০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-১২ ৯:৫৪:৩৪ এএম

ক্রীড়া  প্রতিবেদক : স্টিভেন স্মিথের অনুপস্থিতিতে জয় পেতে সমস্যা হয়নি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের। শহীদ আফ্রিদির দারুণ বোলিংয়ে জয়ে ফিরেছে তৃতীয় আসরের চ্যাম্পিয়নরা। তারা রাজশাহী কিংসকে হারিয়েছে ৫ উইকেটে।

মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে শুক্রবার দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে আগে ব্যাট করতে নেমে এক বল বাকি থাকতে ১২৪ রানেই গুটিয়ে যায় রাজশাহী। কুমিল্লা সেটি পেরিয়ে যায় ৮ বল বাকি থাকতে।

তিন ম্যাচে এটি কুমিল্লার দ্বিতীয় জয়। সমান ম্যাচে রাজশাহীর দ্বিতীয় হার।

স্মিথ চোট নিয়ে দেশে ফেরায় এই ম্যাচে কুমিল্লাকে নেতৃত্ব দেন ইমরুল কায়েস। কুমিল্লা অধিনায়ক টস জিতে ব্যাট করতে আমন্ত্রণ জানান রাজশাহীকে। ভালো শুরুর ইঙ্গিত দিয়েছিল রাজশাহী।
 


আগের ম্যাচে তিনে নেমে ফিফটি করে দলকে জিতিয়েছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। এদিন আরেক ধাপ ওপরে উঠে মুমিনুল হকের সঙ্গে ওপেন করতে নামেন তিনি। দুজন দুই ওভারে তুলেছিলেন ২০ রান। কিন্তু স্কোর ২০ রেখেই মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের পরপর দুই বলে ফেরেন মুমিনুল (৩) ও সৌম্য সরকার (০)।

মিরাজ ও মোহাম্মদ হাফিজ দলকে ৫৩ পর্যন্ত টেনে নিয়েছিলেন। কিন্তু এবার স্কোর ৫৩ রেখেই তারা হারায় ৩ উইকেট! ১৬ রান করা হাফিজকে ফেরান লিয়াম ডসন। আফ্রিদির পরপর দুই বলে এলবিডব্লিউ মিরাজ ও লরি ইভানস। ১৭ বলে ৬ চারে মিরাজ করেন ৩০ রান।

একটা পর্যায়ে ৬৩ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে একশর আগেই অলআউট হওয়ার শঙ্কায় পড়েছিল রাজশাহী। দলকে সেই লজ্জা থেকে বাঁচিয়েছেন ইসুরু উদানা। এক বল বাকি থাকতে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার আগে ৩০ বলে ৫ চার ও এক ছক্কায় ইনিংস সর্বোচ্চ ৩২ রান করেন এই শ্রীলঙ্কান।

চার ওভারে ১০ রানে ৩ উইকেট নিয়ে কুমিল্লার সেরা বোলার আফ্রিদি। ডসন ১৭, সাইফউদ্দিন ২৫ ও আবু হায়দার রনি ৩৭ রান দিয়ে নেন ২টি করে উইকেট।
 


ছোট লক্ষ্য তাড়ায় পঞ্চাশোর্ধ উদ্বোধনী জুটিতে কুমিল্লাকে ভালো সূচনা এনে দেন এনামুল হক বিজয় ও এভিন লুইস। লুইসকে (২৮) ফিরিয়ে এ জুটি ভাঙেন কাইস আহমেদ।

বিজয় ফিফটির দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে তিনি রান আউট হন ৪০ রানে। উদানাকে স্ট্রেইট শট খেলেছিলেন তামিম। বল উদানার পায়ে লেগে ভেঙে দেয় স্টাম্প। নন স্ট্রাইকে থাকা বিজয় তখন দাগের বাইরে। ৩২ বলে ৪ চার ও এক ছক্কায় ইনিংসটি সাজান ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

মিরাজকে উড়াতে গিয়ে তামিম ফেরেন ২১ রানে। এরপর দ্রতই শোয়েব মালিক ও ইমরুলের উইকেট হারায় কুমিল্লা। বাকি কাজটা সারেন আফ্রিদি (৯) ও ডসন (১২)।

১ রানের প্রয়োজনে মুস্তাফিজুর রহমানকে ছক্কা হাঁকিয়ে ম্যাচ শেষ করেন আফ্রিদি। তার আগে দারুণ বোলিংয়ের জন্য ম্যাচসেরার পুরস্কার জেতেন পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১১ জানুয়ারি ২০১৯/পরাগ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন