ঢাকা, সোমবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

উন্নয়নের জন্য বিপিএল, ব্যবসার জন্য নয় : নাজমুল হাসান

ইয়াসিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৯-১১ ৬:৩০:১৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৯-১১ ৯:১৬:৪৭ পিএম
উন্নয়নের জন্য বিপিএল, ব্যবসার জন্য নয় : নাজমুল হাসান

ক্রীড়া প্রতিবেদক : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এ বছর অনুষ্ঠিত হবে ‘বঙ্গবন্ধু বিপিএল’।

ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক এ টুর্নামেন্টের সপ্তম আসর অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল এ বছর। কিন্তু বিপিএলের আয়োজক বিসিবি এবার কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি রাখছে না। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনে টুর্নামেন্টটি আয়োজন করা হলেও বিসিবির বার্তা ভিন্ন। কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি ছাড়া বিপিএল আয়োজন করা সম্ভব সেই বার্তা দিতে চাচ্ছে বিপিএলে নিয়মিত অংশগ্রহণ করে আসা ফ্র্যাঞ্চাইজিদের।

বিপিএল এ বছর আয়োজন হবে কিনা তা নিয়ে অনেক সংশয় ছিল। পাশাপাশি বিপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজিদের বিভিন্ন দাবি দাওয়াও ছিল। দলগুলোর সঙ্গে আলাদা আলাদা বসে বিসিবি তাদের কথা শুনেছে। কিন্তু বিসিবি সভাপতির মতে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো যে দাবি করেছিল সেগুলো বিপিএলে সঙ্গে সাংঘর্ষিক। ফ্র্যাঞ্চাইজিদের প্রধান দাবি ছিল, লভ্যাংশ। বিপিএল বাবদ বিসিবি যে আয় করে তার নির্দিষ্ট একটি অংশ চেয়েছিল ফ্রাঞ্চাইজিরা।

কিন্তু বোর্ড সভাপতি বুধবার মিরপুরে স্পষ্ট করে জানিয়ে দেন,‘কোনোভাবেই লাভের অংশ ভাগাভাগি করা সম্ভব নয়। আমাদের ৮০ কোটি টাকা দিক, আমরা ৪০ কোটি দিয়ে দেব।  তাহলে হবে? আগে ৮ কোটি টাকা করে নিত (ফ্রাঞ্চাইজি ফি বাবদ)।  আমরা সাত কোটি ছেড়েই দিয়েছি। মাত্র এক কোটি নিচ্ছি। আবার কি চায়?’

ফ্র্যাঞ্চাজিদের উদ্দেশ্য করে বোর্ড সভাপতি বলেন,‘যারা বিপিএলে আসবে তারা বাংলাদেশের ক্রিকেটের উন্নয়ন, খেলোয়াড়দের উন্নয়নের জন্য আসবে। ব্যবসা করার জন্য নয়।  এখানে সেই সুযোগ নেই। ’ বিসিবির এমন সিদ্ধান্তে ক্ষতির মুখে পড়বে বিপিএল, এমনটাই শঙ্কা করা যাচ্ছে।  বিশেষ করে, আইকন বা এ প্লাস ক্যাটাগরির যেসব খেলোয়াড় আছে তারা ক্ষতির মুখোমুখি হবেন।  বিদেশি কোচ ও ক্রিকেটার যারা অনেক উচ্চমূল্যের তারা ক্ষতির মুখে পড়বেন।  বিসিবি নিজের তত্ত্বাবধানে বিপিএল আয়োজন করলে দেশি কোচ দিয়ে দল পরিচালনা হবে।  তাতে টম মুডি, মাহেলা জয়াবর্ধনে কিংবা ল্যান্স ক্লুজনারকে পাওয়া যাবে না বিপিএলে।

আবার ক্রিস গেইল, আন্দ্রে রাসেল বা শহীদ আফ্রিদিদের মতো মহাতারকাকে নির্দিষ্ট দামে আটকে রাখলে তারা বিপিএলে খেলতে আসবে না কখনোই।  দেশি আইকনদের ক্ষেত্রেও তাই।  সাকিব, মাশরাফি, মুশফিকরা সব সময়ই নির্দিষ্ট দামের বাইরে ফ্র্যাঞ্চাইজিদের থেকে বেশি পারিশ্রমিক পেয়ে আসছিলেন।  কিন্তু সাকিবদের পারিশ্রমিক এবার গন্ডির ভেতরে আটকে রাখছে বিসিবি।

‘আগের ফ্র্যাঞ্চাইজিদের দাবি অনুযায়ী, বিপিএলে অংশগ্রহণ করা লস। যদি লস-ই হয় তাহলে  ৮০ লাখ টাকার খেলোয়াড়কে ৪ কোটি টাকা দিয়ে কেউ নিত না।  যেগুলো হচ্ছে সেগুলো বেআইনিভাবে।  অনেকের কতো দাম তা আপনারা জানেন ও না।’ – যোগ করেন নাজমুল হাসান।

আগামী বছরের বিপিএলের জন্য নতুন ফরম্যাট তৈরি করবে বিসিবি।  এরপর নতুন করে ফ্র্যাঞ্চাইজি আহ্বান করবে আয়োজকরা।  ওই সময়ে যারা আসবে তাদেরকে তিন-চার বছরের জন্য নির্দিষ্ট নিয়ম জানিয়ে দেওয়া হবে।  বিসিবির নিয়ম অনুযায়ী বিসিবির সকল নিয়ম-কানুন মেনে যারা বিপিএলে আসতে চায় তাদের নিয়ে আয়োজন করা হবে বিপিএল। নয়তো বিসিবি নিজেই চালাবে বিপিএল।

‘আমাদের ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সঙ্গে নতুন করে অ্যাগ্রিমেন্ট করার কথা।  তারা কিছু দাবি দাওয়া দিয়েছে। সেগুলো কোনোভাবে অ্যাডজাস্ট করাতে পারছি না।  আবার কয়েকটা ফ্র্যাঞ্চাইজি বলেছে যে এক বছরে দুটো বিপিএল না হোক।  খেলবে না যে তা না, এক বছরে দুই বিপিএল ওনারা চায় না।  বেশি চাপ পড়ে যায়। ’

‘সবদিক বিবেচনা করে আমরা এবার নিজেরা বিপিএল চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। একবার চালিয়ে দেখি কি সমস্যা, কেন তারা ক্ষতির কথা বলছে।  আমাদের হিসেবে তো ক্ষতি হওয়ার কথা না। পাশাপাশি খেলোয়াড় নিয়ে একটা নির্দিষ্ট নিময় থাকবে।  এবার থেকে আমরা যেটা করব সেটা সবাইকে মানতে হবে। একদম আইপিএল ফরম্যাট।  আমরা একটা নিয়মকানুনের নোটবুক তৈরি করে দেব।  যাদের আগ্রহ থাকবে তারা আসবে। যাদের আগ্রহ থাকবে না তারা আসবে না। কিন্তু একবার এসে কোনো নিয়ম কানুন ভঙ্গ করতে পারবে না। ’

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯/ইয়াসিন/আমিনুল

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন