ঢাকা, রবিবার, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৭ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

সাঁতারুকে শাস্তি ও কোচের চলে যাওয়া নিয়ে ফেডারেশনের বক্তব্য

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১০-২২ ১০:৫৯:৪১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১০-২৩ ৮:৩২:২২ এএম

আসন্ন এসএ গেমসকে সামনে রেখে জাতীয় দলের সাঁতারুদের আবাসিক প্রশিক্ষণ চলছে। সেখানে জুনিয়র এক সাঁতারুকে অনঅনুমোদিত সময়ে মোবাইল ব্যাবহার করার অপরাধে শারীরিক কসরতের মাধ্যমে শাস্তি দেওয়া হয়। দুপুরের তপ্ত রোদের মধ্যে এক সময় সে জ্ঞান হারায়। কিন্তু চিরাচরিত বাংলাদেশিদের মনোভাব অনুযায়ী ‘ঢং’ করছে বলে সন্দেহ করা হয়। তাকে অজ্ঞান অবস্থায় রোদের মধ্যে ফেলে রাখায় হয় ১০ মিনিটেরও বেশি সময়।

বিষয়টি কাছ থেকেই দেখেন জাতীয় দলের জাপানি কোচ তাকেও ইনোকি। শেষ পর্যন্ত তিনি নিজে গিয়ে ওই সাঁতারুকে ধরেন এবং দেখতে পান সত্যি সত্যি জ্ঞান হারিয়েছেন। এরপর তাকে ডাক্তার ডেকে শুশ্রুষা করার কথা বলেন তিনি। কিন্তু কেউ সে বিষয়ে কর্ণপাত করে না। এই ঘটনায় যারপরনাই মর্মাহত হয়েছেন জাপানি এই কোচ। তাই সঙ্গে সঙ্গে তিনি পদত্যাগপত্র জমা দিয়ে দেশে চলে যান এবং এ বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিস্তারিত লিখেন। যা এক প্রকার ভাইরাল হয়ে যায়।

এ বিষয়ে জানতে যোগাযোগ করা হয় বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক বি এম সাইফের সঙ্গে। তিনি রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘পদত্যাগের বিষয়ে আমাদের কাছে ইনকো আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো লেটার জমা দেয়নি। মিরপুরে সেদিন যা ঘটেছে সে বিষয়ে আমরা অবগত আছি। প্রাথমিক তদন্তে আমরা যে বিষয়টি বুঝতে পেরেছি সেটি হল মোবাইল ব্যবহার নিষিদ্ধ হওয়ার পরও তার কাছে মোবাইল পাওয়া যায়। আমরা তাদেরকে বৃহস্পতিবার সকালে মোবাইল দিই এবং শুক্রবার রাতে ফেরত নিই। কিন্তু সে একাধিক মোবাইল ব্যবহার করেছে। সে কারণে তাকে সাজা দেওয়া হয়েছে। সাজা ঠিক বলা যায় না। রুটিন ফিল্ড ওয়ার্ক। সেটা তাকে রোদের মধ্যে দেওয়া হয়েছে। শাস্তি-টাস্তি কিছু না। একটা সময় মাথাঘুরে পরে যায়। পরে তাকে ডাক্তার দিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয় এবং সে অনুশীলনে ফিরে আসে। এই ঘটনায় ইনোকি রিঅ্যাক্ট করছেন।’

এই ঘটনায় ইনোকি বিনা নোটিশে চলে যাওয়া ভীষণ বিপাকে পড়েছে সুইমিং ফেডারেশন। যেমনটা বলেছেন সাইফ, ‘আসলে ইনোকি বিনা নোটিশে এভাবে গেল, একেবারেই দায়িত্ব-জ্ঞানহীনভাবে জাতীয় দলকে ফেলে। আমরা খুবই বিব্রতকর অবস্থায় আছি। সামনেই আমাদের এসএ গেমস।’

ইনোকির সঙ্গে কী এরপর আর যোগাযোগ করা হয়েছিল? সাধারণ সম্পাদক বলেছেন, ‘ওনার সঙ্গে নয়, তবে তার সহকারী যিনি ছিলেন তিনি কোচের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। সে দুঃখ প্রকাশ করেছে এবং আবার আসবে বলে জানিয়েছে।’


ঢাকা/আমিনুল

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন