RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ৪ ১৪২৭ ||  ০২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ব্র্যাডম্যান-কাম্বলির বিষয়টা মাথায় ছিল না : আগারওয়াল

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৫৬, ১৫ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
ব্র্যাডম্যান-কাম্বলির বিষয়টা মাথায় ছিল না : আগারওয়াল

৩২ রানের মাথায় জীবন পেয়েছিলেন তরুণ ব্যাটসম্যান মায়াঙ্ক আগারওয়াল। এরপর ৮২ রানের মাথায় আম্পায়ার তাকে আউট দিয়েছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজের বলে। কিন্তু রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান। এরপর দ্রুত তুলে নেন সেঞ্চুরি। তার চেয়েও দ্রুত তুলে নেন ডাবল সেঞ্চুরি। তাতে সবচেয়ে কম ইনিংস খেলে বিনোদ কাম্বলির পর সবচেয়ে কম ইনিংস খেলে (১২ ইনিংস) দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি করার কৃতিত্ব দেখান তিনি। এ যাত্রায় তিনি পেছনে ফেলেন কিংবদন্তি স্যার ডন ব্র্যাডম্যানকে (১৩ ইনিংস)। তবে এসব রেকর্ডের বিষয় তার মাথায় ছিল না বলে জানিয়েছেন আগারওয়াল।

দ্বিতীয় দিন শেষে দলের প্রতিনিধি হয়ে তিনি বলেছেন, ‘আসলে বিষয়টা আমি ঠিক ওইভাবে দেখিনি। ক্রিকেটে আমার যাত্রাটা হয়তো অন্য কারো মতো হবে না। আর এই বিষয়টা আমি তাদের মতো দুজনের সঙ্গে তুলনা করতে চাই না। তাছাড়া আমার পরে হয়তো কেউ আরো দ্রুত এই রান করে ফেলতে পারে। পরবর্তীতে হয়তো কেউ এমন কিছু করার সুযোগ পেতে পারে। তবে এই বিষয়টা আমাদের কারোরই নিয়ন্ত্রণের মধ্যে নেই। যেসব বিষয় আমার নিয়ন্ত্রণের মধ্যে আছে সেগুলো নিয়েই আমি ভাবতে চাই। আমাদের দেশের হয়ে খেলতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত। দলের হয়ে অবদান রাখতে পেরে আমি খুশি।’

মেহেদী হাসান মিরাজের করা বলে ছক্কা হাঁকিয়ে ডাবল সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন আগারওয়াল। তিনি কি পরিকল্পনা করে রেখেছিলেন যে ছক্কা হাঁকিয়ে দ্বিশতক ছুঁবেন? আগারওয়াল বলেন, ‘না, আমি ছক্কা হাঁকানোর বিষয়টি ভাবিনি। আমি চিন্তা করছিলাম যে যদি আমার সুবিধামতো বল না পাই তাহলে পরবর্তী ৪-৫ ওভারে ১, ১, ১, ১ রান করে নিব। কারণ, তখন আমি ১৯৬ রান নিয়ে ব্যাট করছিলাম। তবে আমি বেশ আত্মবিশ্বাসী ছিলাম। কয়েকটা বেশ ভালো শটও খেলেছিলাম। যদি আমার সুবিধামতো বল পাই তাহলে নির্দিষ্ট কিছু স্ট্রোক খেলব। তখন একটা পেয়ে যাই এবং ছক্কা হাঁকাই।’

আজকের দিনের শুরুতে বাংলাদেশ বেশ চেপে ধরেছিল ভারতকে। চেতেশ্বর পূজারা আউট হয়ে যাওয়ার পর পরই বিরাট কোহলি শূন্য রানে আউট হয়ে যান। তখন কী চাপ অনুভব করেছিলেন আগারওয়াল? তিনি বলেন, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেট মানেই চাপ। আসলে কোহলি ভাই যখন আউট হয়েছেন তখন বেশ ভালো স্পেল হচ্ছিল। সেটার মধ্যে এসে পড়েন তিনি। তার বিষয়টা আমাদেরকে সম্মানের দৃষ্টিতে দেখতে হবে। তিনি আউট হয়ে যাওয়ার পর রাহানে ভাই ও আমি নিজেদের মধ্যে আলোচনা করছিলাম। সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম লুস বলের জন্য অপেক্ষা করার এবং শট খেলার।’


ঢাকা/আমিনুল

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়