ঢাকা, শনিবার, ১১ মাঘ ১৪২৬, ২৫ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ম্যাচ পাতানোর জন্য ঘুষ দিলেন ক্রিকেটার

ক্রীড়া ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১২-১০ ১০:৫৪:৩৩ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১২-১০ ১১:৪৭:৫৯ এএম

পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব গোপন করলেই শাস্তির মুখে পড়তে হয়। আর ম্যাচ পাতানোর সঙ্গে জড়িত থাকার প্রমাণ মিললে আজীবন নিষিদ্ধ হওয়ার শঙ্কা তো থাকেই।

তবে, নাসির জামশেদ যেন এসবকেও ছাড়িয়ে গেছেন। নিজে ম্যাচ পাতিয়েছেন। তার পাশাপাশি টি-টোয়েন্টিতে অন্যান্য খেলোয়াড়দের ম্যাচ পাতানোতে যুক্ত করতে ঘুষ দিতেও পিছপা হননি তিনি।

সম্প্রতি লন্ডনের ম্যানচেস্টার ক্রাউন কোর্টে এক শুনানি শেষে নাসির জামশেদের এমন কুকীর্তি প্রকাশ্যে আসে। পাকিস্তানের হয়ে ৬০ ম্যাচে প্রতিনিধিত্ব করা জামশেদসহ আরো দুজনকে ক্রিকেটারকে ম্যাচ পাতানোতে যুক্ত করতে উৎকোচ দেওয়ার দায়ে দোষী সাব্যস্ত করা হয়।

এই প্রথম পেশাদার কোনো ক্রিকেটার এমন অপরাধে দোষী হলেন। জামশেদ ছাড়া বাকি দুজন হলেন, ইউসুফ আনোয়ার (৩৬) ও মোহাম্মদ ইজাজ (৩৪)। আগামী বছরের ফেব্রুয়ারিতে তাদের শাস্তির বিষয়ে জানানো হবে।

নাসির জামশেদ অবশ্য গত বছর পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) থেকে ম্যাচ পাতানোর দায়ে ১০ বছরের নিষেধাজ্ঞা পেয়েছেন।

ট্রায়াল কোর্টের প্রসিকিউটর অ্যান্ড্রু থমাস বলেন, ‘জাতীয় অপরাধ তদন্ত এজেন্সির একজন পুলিশ সদস্য ছদ্মবেশ নিয়ে এসব তথ্য উদ্ধার করেন। তিনি দুর্নীতিবাজ ফিক্সিং সিন্ডিকেটের সদস্য হিসেবে কাজ করেন। তারপর সিন্ডিকেটের নেটওয়ার্কে প্রবেশ করে যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করেন।’

যেখানে জানা যায়, ইউসুফ আনোয়ার হচ্ছেন এর মূল হোতা। জামশেদ ছাড়াও আরো ছয়জন ক্রিকেটার তার হয়ে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে কাজ করেছেন। তিনি এই পেশায় গত ১০ বছর ধরে কাজ করছেন।

আনোয়ার জানান, আসন্ন পাকিস্তান সুপার লিগকে টার্গেট করে বার্মিংহামের এক রেস্তোরায় তারা পরিকল্পনা করেন। ২০১৬ মৌসুমের বিপিএলের জন্য কাজ করার কথা ছিল নাসির জামশেদের । পরবর্তীতে ২০১৭ সালে ইসলামাবাদ ইউনাইটেডের হয়ে ম্যাচ পাতানোতে যুক্ত হন তিনি। যেখানে প্রথম দুই বল ডট দিতে রাজি হন জামশেদ। এছাড়াও ওই মৌসুমে ইসলামাবাদ ইউনাইটেড ও পেশোয়ার জালমির খেলোয়াড়দের ম্যাচ পাতানোর জন্য উৎকোচ দেন নাসির জামশেদ।

 

ঢাকা/ইমন/টিপু