RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ৩১ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১৬ ১৪২৭ ||  ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

চার দল নিয়েই বিসিএল

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:১১, ১৪ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
চার দল নিয়েই বিসিএল

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের পর মাস খানেক বিশ্রামে থাকবেন ক্রিকেটাররা।

এরপরই শুরু হবে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ। ঢাকা লিগের পর ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট টুর্নামেন্ট বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ (বিসিএল) মাঠে গড়াবে।

গত রোববার এ বছরের প্রথম বোর্ড সভায় সামনের টুর্নামেন্ট নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বোর্ডের নীতি নির্ধারকরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিপিএলের পরপরই হবে ঢাকা লিগ এবং বিসিএল দিয়ে শেষ হবে এবারের মৌসুম।

রাইজিংবিডিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিবি পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস।

ঢাকা লিগ বরাবরের মতো ১২ দল নিয়েই হবে। তবে বিসিএল কয় দল নিয়ে হতে যাচ্ছে, সেটা নিয়েই এখন আলোচনা। জানা গেছে, বিসিএলের অষ্টম আসরে অংশ নেবে না বলে বিসিবিকে চিঠি দিয়েছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিবির টুর্নামেন্ট কমিটির ম্যানেজার আরিফুল ইসলাম।

বিসিবি প্রাইম ব্যাংকের চিঠি গ্রহণ করলেও এ নিয়ে এখন পর্যন্ত কোনো আলোচনা হয়নি। বিসিএলে অংশগ্রহণ না করার বেশ কয়েকটি কারণ উল্লেখ করেছে প্রাইম ব্যাংক। প্রথম কারণটিই ছিল জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের অংশগ্রহণ। জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা বিসিএলে অংশগ্রহণ না করায় বিসিএল হয় একেবারেই জৌলুসহীন।

প্রাইম ব্যাংকের দাবি, বিসিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো পাচ্ছে না কোনো প্রচার। টিভিতে কিংবা অনলাইনে সম্প্রচার হয় না কোনো ম্যাচ। পত্রপত্রিকাতেও থাকে না ফ্র্যাঞ্চাইজিদের নাম। ফলে বিশাল অংকের অর্থ বিনিয়োগ করার বিপরীতে কিছুই মেলে না ফ্র্যাঞ্চাইজিদের।

সপ্তম আসর শুরুর আগে প্রাইম ব্যাংক বিসিএলে অংশগ্রহণ করবে না বলে বিসিবিকে চিঠি দিয়েছিল। একাধিক বৈঠকের পর শেষমেশ তারা অংশগ্রহণ করে। এবার আবার একই চিঠি প্রাইম ব্যাংক পাঠিয়েছে বিসিবিকে। তবে বিসিবির আশা চার দল নিয়েই বিসিএল আয়োজন করতে পারবে তারা। জালাল ইউনসু বলেছেন, ‘এর আগেও চার দল নিয়ে টুর্নামেন্ট হয়েছে। এবারও তাই হবে। জোন ভিত্তিক টুর্নামেন্ট এটা। চার দলের হতেই হবে।’

ক্রিকেটারদের আন্দোলনের মুখে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটারদের ম্যাচ ফি বাড়িয়েছে বোর্ড। ফলে বিসিএলের খরচও বাড়াতে যাচ্ছে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর। শেষ দুই আসরে পুরো টুর্নামেন্টে ফ্র্যাঞ্চাইজিদের ১ কোটি ৬০ লাখ টাকার মতো ব্যয় হতো। এবার সেই অঙ্কটা ২ কোটিতে গিয়ে ঠেকবে। অবশ্য মাঠে নামার আগেই বিসিবিকে দিয়ে দিতে হবে ৫০ লাখ টাকা ফ্র্যাঞ্চাইজি ফি। 

ম্যাচ ফি আগে ছিল ৫০ হাজার টাকা। এবার সেটা ১ লাখের কাছাকাছি হতে যাচ্ছে। দৈনিক ভাতা ক্রিকেটাররা পেতেন ২৫০০ টাকা। সেটা ৩০০০ করা হবে। 

প্রথমবারের মতো বিসিএলের খেলাগুলো অনলাইনে দেখানোর ব্যবস্থা করতে যাচ্ছে বিসিবি। ‘পিচ ভিশন’ নামে একটি অ্যাপ কিনেছে বিসিবি। সেখানে সরাসরি দেখা যাবে বিসিএলের ম্যাচ। টুর্নামেন্ট কমিটি থেকে জানা গেছে, ৩টি ক্যামেরায় ম্যাচগুলো ধারণ করা হবে।

প্রসঙ্গত, জাতীয় ক্রিকেট লিগের পর বিসিএলই দেশের একমাত্র প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট লিগ। চারটি দল নিয়মিত অংশগ্রহণ করছে। দলগুলোর মালিকানায় রয়েছে ওয়ালটন গ্রুপ, ইসলামী ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক। একটি দল বিসিবি শুরু থেকেই নিজ খরচে চালাচ্ছে।

 

ঢাকা/ইয়াসিন/পরাগ

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়