ঢাকা, শনিবার, ৪ মাঘ ১৪২৬, ১৮ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

বিকেলে বাংলাদেশ-ফিলিস্তিন ফুটবল যুদ্ধ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-১৫ ১০:১৭:০৮ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-১৫ ১২:৩৩:০৯ পিএম

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে নানা আয়োজনের একটি ‘বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ-২০২০’। ছয়টি দেশ নিয়ে আজ থেকে মাঠে গড়াচ্ছে এই টুর্নামেন্ট। উদ্বোধনী দিনেই মুখোমুখি হবে টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন ও স্বাগতিক বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে বিকেল ৫টায়। যা সরাসরি সম্প্রচার করবে বিটিভি ও আরটিভি। এছাড়া কে-স্পোর্টস ও মাইকজুতে অনলাইনে দেখা যাবে ম্যাচটি। আর চলতি ধারাবিবরণী শোনা যাবে বাংলাদেশ বেতারে।

অবশ্য গেল বছর যে ফিলিস্তিন দল চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল সেই দল এবার আসেনি। এবারের দলটি তরুণ ফুটবলারদের নিয়ে গড়া। কাতার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের সবশেষ ম্যাচ খেলেছে এমন ফুটবলার আছেন ১ জন। জাতীয় দলের আছেন ৬ জন। অলিম্পিক দলের ৭ জন। বাকিরা নতুন। পূর্ণাঙ্গ জাতীয় দল না হলেও তাদের র‌্যাঙ্কিং টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়া সবগুলো দলের চেয়ে ভালো, ১০৬। বাংলাদেশ ১৮৭। কিন্তু র‌্যাঙ্কিংয়ে কী আসে যায়? মাঠের পারফরম্যান্স ভালো হলে যেকোনো দলকে নাড়িয়ে দেওয়া যায়। যেমনটা জামালবাহিনী দিয়েছিল কাতার ও ভারতকে।

বাংলাদেশ দলের কোচ জেমি ডে তেমন কিছুই প্রত্যাশা করছেন ছেলেদের কাছ থেকে, ‘ভালো প্রস্তুতি নিয়েছি। আমাদের দলে জীবন ও বাদশা নেই। বাকি যারা আছে সবাই ফিট। সবাই খেলার জন্য মুখিয়ে। এসএ গেমস বাদ দিলে গেল বছর আমাদের পারফরম্যান্স ভালো ছিল। কাতারের বিপক্ষে ছেলেরা ভালো খেলেছে। ভারতের বিপক্ষে ভালো খেলেছে। সেই খেলাটা খেলতে পারলে ফিলিস্তিনের জন্যও ম্যাচটি কঠিন হয়ে যাবে। আমরা সব ম্যাচ জিততে চাই। ফিলিস্তিন শক্তিশালী দল। কিন্তু গেল বছর যে দলটি খেলেছিল সেটি আসেনি। নিজেদের মাঠে আমাদের ভালো সুযোগ আছে। আমাদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে হবে। দর্শকদের সমর্থন পেলে এই ম্যাচটা আমরা জিততেও পারি।’

জামাল ভুঁইয়া বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপকে দেখছেন এসএ গেমসের ব্যর্থতা ঘোচানোর সুযোগ হিসেবে। তিনি নিজের জন্য জিততে চান, ‘এসএ গেমসে আমরা ভালো খেলতে পারিনি। আমরা সেই ব্যর্থতা এই টুর্নামেন্টে ভুলতে চাই। আমি নিজের জন্য জিততে চাই। আমাদের জিততে হবে। মুজিববর্ষের এই টুর্নামেন্ট জিতে ইতিহাস গড়তে চাই। আমাদের সামনে ভালো সুযোগ আছে।’

তবে ফিলিস্তিনের অধিনায়ক মোহাম্মদ দারবিশ শিরোপা অক্ষুন্ন রাখার ঘোষণা দিয়েছেন, ‘এটা ফিফা ফ্রেন্ডলি ম্যাচ না হওয়ায় জাতীয় দলের অনেকেই আসেনি। আমাদের এই দলটি নিয়ে আমরা খুব বেশি অনুশীলন করারও সুযোগ পাইনি। মাত্র ৫দিন অনুশীলন করেছি। তরুণদের নিয়ে গড়া এই দলটি নিয়েও আমরা শিরোপা ধরের রাখার ব্যাপারে আশাবাদী।’

কোচ মাকরাম দাবুব অবশ্য বাংলাদেশকে সমীহ করছেন। তার চোখে টুর্নামেন্টের ফেভারিট বাংলাদেশ ও ফিলিস্তিন, ‘বাংলাদেশ ভালো দল। ঘরের মাঠে খেলা। তারা অবশ্যই সুবিধা পাবে। তবে আমরা এখানে ভালো খেলতে এসেছি। জিততে এসেছি। আমার মতে টুর্নামেন্টের ফেভারিট ফিলিস্তিন ও বাংলাদেশ। বুরুন্ডিও ভালো দল। আশা করছি আমাদের ছেলেরা তাদের সেরাটা দিয়ে খেলে শিরোপা ধরে রাখতে পারবে।’

ফিলিস্তিনের বিপক্ষে বাংলাদেশের পরিসংখ্যান খুব একটা সুখকর নয়। চারবারের মুখোমুখিতে হেরেছে তিনবার। ড্র করেছে একবার। আজ পঞ্চম দেখায় বাংলাদেশকে কি ভিন্ন কিছু মঞ্চায়ন করতে পারবে? নাকি আগের ভাগ্যবরণ করবে? জানতে অপেক্ষা করতে হবে রাত পর্যন্ত।

 

ঢাকা/আমিনুল