ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

অদলবদলের আভাস দিয়ে রাখলেন কোচ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-১৯ ১০:৫৯:৩৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-২০ ১২:৩৮:১৪ এএম

এক দলে পাঁচ ওপেনারকে রেখেছেন নির্বাচকরা! পকিস্তানের মাটিতে তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলতে পাঁচজন ওপেনার নিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

দলে ফিরেছেন তামিম ইকবাল। সবশেষ ভারতের বিপক্ষে সিরিজে তিনি ছিলেন না পারিবারিক কারণে। বিপিএলে বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ছিলেন চেনা ফর্মে। তার জায়গায় ভারত সিরিজে ওপেন করা নাঈম শেখও বিপিএলে ভালো করেছেন। ভারতের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে তার পারফরম্যান্স ছিল ঈর্ষণীয়। লিটন দাসও রয়েছেন দুর্দান্ত ফর্মে।

পাশাপাশি বিপিএলে ইনিংস শুরু করেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত, আফিফ হোসেন ধ্রুব। এই দুই বাঁহাতিও ওপেনিংয়ে নিজেদের কারিশমা দেখিয়েছেন। সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়ে জানান দিয়েছেন, সুযোগ পেলে তারাও বাজিমাত করতে পারেন। সব মিলিয়ে পাঁচ ওপেনার ১৫ সদস্যের দলে। কাকে রেখে কাকে খেলাবে দল?

তাই তো মাঠে নামার আগেই প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো আভাস দিয়ে রাখলেন, ব্যাটিং পজিশনে অদলবদল হবে।

রোববার মিরপুরে জাতীয় দলের অনুশীলনের ফাঁকে সংবাদমাধ্যমকে ডমিঙ্গো বলেন, ‘আমাদেরকে ব্যাটিং অর্ডার ঠিক করতে হবে। মিডল অর্ডারে পরিবর্তন আসতে পারে। ভারতে তিন নম্বরে ব্যাটিং করা সৌম্যকে ছয়ে দেখা যেতে পারে। মাহমুদউল্লাহ পাঁচে ব্যাটিং করতে পারে। মুশফিক নেই। আফিফকে তিন বা চারেও দেখা যেতে পারে। আবার শান্তও ভালোভাবে আসর শেষ করেছে। আমাদের মিথুনও আছে। শুধুমাত্র দুজনকেই আমরা ওপেনিংয়ে জায়গা দিতে পারব। বাকিদের পজিশনে অদলবদল আনতেই হবে।’

ভারত সিরিজে নাঈম ও লিটন ছিলেন ওপেনিংয়ে। বিপিএলে লিটন করেছেন ৪৫৫ রান। ইনিংসগুলো বড় করেছেন। দলের প্রয়োজন মিটিয়েছেন ভালোভাবে। সেক্ষেত্রে তাকে তামিমের সঙ্গী করার সম্ভাবনাই বেশি। সেক্ষেত্রে নাঈমের কপাল পুড়তে পারে।

ভারত সিরিজের শেষ ম্যাচে নাঈম খেলেছিলেন ৮১ রানের ঝকঝকে ইনিংস। বিপিএলে করেছেন ৩৫৯ রান। গড় রান তামিমের থেকে কম হলেও স্ট্রাইক রেটে দেশসেরা ওপেনারকে পেছনে ফেলেছেন নাঈম। কিন্তু অভিজ্ঞতায় তামিমকে এগিয়ে রাখছে টিম ম্যানেজমেন্ট। তবে তাকে তিনে খেলানোর ভাবনাও আছে দলের।

শান্তকে দলে রাখলেও তাকে ওপেন করানোর ভাবনা নেই। তাকে তিনে খেলানোর সম্ভাবনাও কম। বিপিএলে নিজের প্রথম আট ম্যাচে ১১৫ রান করা শান্ত নবম ম্যাচে করেছিলেন ১১৫ রান। টুর্নামেন্টের একমাত্র বাংলাদেশি সেঞ্চুরিয়ানও তিনি। পরের ম্যাচেই ৭৮ রান করেছিলেন। শেষ দিকের ফর্ম তাকে দলে টানলেও একাদশে থাকার সম্ভাবনা কম।

সৌম্য সরকারকে দলে নেওয়া হয়েছে অলরাউন্ডারের ভূমিকায়। মুশফিকুর রহিম না থাকায় সৌম্য নেমে যেতে পারেন ছয়ে। শেষ দিকে পাওয়ার হিটিংয়ের ভাবনায় মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে থাকবেন এই বাঁহাতি। আর আফিফ হোসেনের জায়গা চারে।

এভাবেই পরিকল্পনা সাজাচ্ছে বাংলাদেশ। দেখার বিষয় শেষ পর্যন্ত কাকে কোন পজিশনে ব্যাটিংয়ে নামানো হয়।


ঢাকা/ইয়াসিন/পরাগ

     
 
রাইজিংবিডি স্পেশাল ভিডিও