ঢাকা, রবিবার, ১০ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

পরিবার উদ্বিগ্ন ছিল, বোঝাতে হয়েছে: মাহমুদউল্লাহ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-২১ ৫:৪০:৫০ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-২১ ৬:১০:৫৮ পিএম

মুশফিকুর রহিমের পরিবার তাকে সাফ জানিয়েছে, পাকিস্তান সফরে যাওয়া যাবে না। পাকিস্তানে নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন থাকায় মুশফিক পাকিস্তান সফরে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

একই কারণে উদ্বিগ্ন ছিল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের পরিবারও। কিন্তু পরিবারকে বুঝিয়ে সফরের অনুমতি পেয়েছেন মাহমুদউল্লাহ। পাকিস্তানে টি-টোয়েন্টি খেলতে যাওয়ার আগে আজ দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন জাতীয় দলের অধিনায়ক। শুরুতেই নিজের পরিবারের কথা শোনান তিনি।

‘শুরুর দিকে সিদ্ধান্ত নেওয়া অবশ্যই কঠিন ছিল। কারণ আমার পরিবারও উদ্বিগ্ন ছিল। পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছিলাম। এরপর তারা রাজি হয়েছে। এদিক থেকে এখন আমি কিছুটা নিশ্চিন্ত। কারণ, আমার পরিবার এতোটা চাপ অনুভব করবে না। আর পাকিস্তান আমাদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তাই দিচ্ছে।’

মাঠের বাইরে মুশফিকের সঙ্গে পারিবারিক সম্পর্ক রয়েছে মাহমুদউল্লাহর। দুজন ভায়রা-ভাই। দলের সবথেকে বড় ব্যাটসম্যানকে ছাড়া পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ। মুশফিকের অভাব অনুভব করলেও তার পাকিস্তানে না যাওয়ার সিদ্ধান্তকে সম্মান করছেন মাহমুদউল্লাহ।

‘মুশির (মুশফিক) সিদ্ধান্তকে আমিও সমর্থন করি। পরিবারের একটা ইস্যু থাকে সব সময় এবং পরিবার একটা বড় ইস্যু একজন ক্রিকেটারের জীবনে। যে কারোর ব্যক্তিগত জীবনে এর চেয়ে বড় ইস্যু হতে পারে না। আমার পূর্ণ সমর্থন রয়েছে মুশির সিদ্ধান্তের প্রতি।’ – বলেছেন মাহমুদউল্লাহ।

এর আগে দুবার পাকিস্তান সফর করেছেন মাহমুদউল্লাহ। সবশেষ গিয়েছিলেন ২০০৮ সালে এশিয়া কাপে। যেহেতু সফর চূড়ান্ত হয়েছে তাই নিরাপত্তা ইস্যু নিয়ে ভাবতে চান না অধিনায়ক। বরং মাঠের খেলার মনোযোগী হতে চান।

‘এই মুহুর্তে ব্যক্তিগতভাবে আমি এবং দলের অন্যরা নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত না। কারণ, এটা সিদ্ধান্ত হয়ে গেছে। আমরা এখন ওখানে গিয়ে খেলার কথাই চিন্তা করছি, কীভাবে ভালো পারফর্ম করতে পারব এবং জিততে পারব এটা নিয়েই বেশি চিন্তিত।’

তিন টি-টোয়েন্টি খেলতে আগামীকাল রাতে ঢাকা ছাড়ার কথা রয়েছে বাংলাদেশ দলের। ২৪, ২৫ ও ২৭ জানুয়ারি লাহোরে তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ হওয়ার কথা রয়েছে।


ঢাকা/ইয়াসিন/আমিনুল