ঢাকা, বুধবার, ২৫ চৈত্র ১৪২৬, ০৮ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

মাহমুদউল্লাহর না থাকা নিয়ে নির্বাচকের ব্যাখ্যা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-১৬ ৭:৪৬:০২ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-১৬ ৯:৩৪:৪২ পিএম

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে নেই মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। কেন নেই সেই ব্যাখ্যা আনুষ্ঠানিকভাবে দিয়েছেন জাতীয় দলের নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।

বিসিবির পাঠানো বিবৃতিতে মিনহাজুল আবেদীন বলেছেন, ‘আমরা মনে করছি লাল বলের ক্রিকেট থেকে মাহমুদউল্লাহর বিরতি প্রয়োজন।’ সত্যিই কি বিশ্রাম প্রয়োজন মাহমুদউল্লাহর?

সচরাচর বিশ্রামে পাঠানো হয় দলের সেরা পারফর্মারকে। কিন্তু মাহমুদউল্লাহর পারফরম্যান্স তো এখন তলানিতে। বিশেষ করে লাল বলের ক্রিকেটে তাকে খুঁজেই পাওয়া যায় কালেভাদ্রে। সেখানে জিম্বাবুয়ের মতো তুলনামূলক ‘খর্ব’ শক্তির দলের বিপক্ষে তাকে না রাখা ভিন্ন ইঙ্গিত দিচ্ছে।

গুঞ্জন ছড়িয়েছে, রাওয়ালপিন্ডি টেস্ট শেষে প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো মাহমুদউল্লাহর টেস্ট ভবিষ্যত নিয়ে সরাসরি কথা বলেছেন। আলোচনায় কোচ মাহমুদউল্লাহকে শুধু সাদা বলের ক্রিকেটে মনোযোগ দেওয়ার কথা বলেছেন। পাশাপাশি তাকে জানিয়ে দেওয়া হয়, টেস্ট ক্রিকেটে সামনের ম্যাচগুলোতে তাকে বিবেচনা করা হবে না!

কিন্তু এসব কিছুই সত্য নয় বলে জানালেন প্রধান নির্বাচক, ‘কোচ তাকে এমন কিছু বলেনি। অবসর নিয়ে কোনো কথা হয়নি আমাদের সঙ্গে। আমরা ছিলাম, কি কথা হয়েছে সেটা আমরা জানি। সুতরাং এরকম কিছুই হয়নি।’

মাহমুদউল্লাহর বর্তমান পারফরম্যান্সে দলে জায়গা নিয়ে প্রশ্ন উঠবে সেটাই স্বাভাবিক। কিন্তু তাকে ‘বিশ্রামে’ পাঠানোর কথা কেন বলা হচ্ছে সেই বিষয়ে কোনো স্পষ্ট ব্যাখা নেই।

আরেক প্রশ্নের জবাবে নিজেদের সিদ্ধান্তের বিষয়ে মিনহাজুল আবেদীন বলেন, ‘আমরা ওকে এই সিরিজ থেকে বিশ্রাম দিয়েছি। ঘরের মাটিতে খেলা। তাই নতুন কিছু খেলোয়াড়কে আমরা যাচাই করতে চাই। কিছু খেলোয়াড়কে আমরা পাকিস্তান সফরের জন্য নিয়েছিলাম। সেজন্য একটা বা দুইটা টেস্ট ম্যাচ খেলেছে এমন খেলোয়াড় আছে... আর অবশ্যই আমরা মাহমুদউল্লাহকে বিশ্রাম দিয়েছি।’

নির্বাচক জানিয়েছেন, জাতীয় দলের জন্য মাহমুদউল্লাহ বিশ্রামে থাকলেও খেলতে পারবেন বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে! জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট শুরুর দিনই শুরু হচ্ছে বিসিএলের পাঁচদিনের ফাইনাল। সেখানে খেলতে কোনো বাঁধা নেই মাহমুদউল্লাহর, ‘অবশ্যই, বিসিএলে খেলার জন্য মাহমুদউল্লাহ থাকছে।’

ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলতে বাঁধা নেই। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বিশ্রাম। এ কেমন যুক্তি?

তাহলে কি মাহমুদউল্লাহর টেস্ট ক্যারিয়ার এখানেই শেষ? অবশ্য মাহমুদউল্লাহর ক্ষেত্রে এমনটা হয়েছে আগেও। শততম টেস্টের আগে তাকে বাদ দিয়েছিলেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। এরপর ফিরে এসে মাহমুদউল্লাহ নিজের জায়গায় থিতু হয়েছিলেন। কিন্তু সবশেষ কয়েক টেস্টে আবার ব্যাকগিয়ারে চলছেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান।


ঢাকা/ইয়াসিন