ঢাকা, বুধবার, ২৫ চৈত্র ১৪২৬, ০৮ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

উড়ন্ত লিভারপুলকে মাটিতে নামাল অ্যাটলেটিকো

ক্রীড়া ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-১৯ ৯:২২:০৯ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-১৯ ১২:৫১:০৭ পিএম

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ২৬ ম্যাচ থেকে রেকর্ড ৭৬ পয়েন্ট সংগ্রহ করে ৩০ বছর পর শিরোপা জয়ের দ্বারপ্রান্তে তারা। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ম্যানচেস্টার সিটির চেয়ে এগিয়ে আছে ২৫ পয়েন্টে। প্রিমিয়ার লিগের চলতি মৌসুমে টানা ১৭ ম্যাচ ধরে অপরাজিত অলরেডরা। গেল মৌসুমসহ টানা ২৬ ম্যাচ ধরে অপরাজিত!

সবকিছু মিলিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে এক প্রকার অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে লিভারপুল। তাদের কাছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের স্রেফ উড়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু হল তার উল্টোটা। উড়তে থাকা লিভারপুলকে চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগে ১-০ গোলে হারিয়ে দিয়েছে স্প্যানিশ লা লিগার ক্লাব অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।

আগামী মাসে (১১ মার্চ) ফিরতি লেগে ঘরের মাঠে স্প্যানিশ ক্লাবটিকে আতিথ্য দিবে লিভারপুল। আরো একবার ‘কামব্যাক’ করার নজির স্থাপন করতে হবে জার্গেন ক্লপের শিষ্যদের।

মঙ্গলবার দিবাগত রাতে লিভারপুলের বিপক্ষে ম্যাচের ৪ মিনিটে জয়সূচক একমাত্র গোলটি করেছেন লস রোজিব্লাঙ্কোসদের স্প্যানিশ মিডফিল্ডার সাউল নিগুয়েজ। এ সময় কর্নার পায় দিয়েগো সিমিওনির শিষ্যরা। কর্নার থেকে উড়ে আসা বল জটলার মধ্যে পেনাল্টি বক্সের ভেতরে পেয়ে যান নিগুয়েজ। আলতো টোকায় জালে জড়াতে ভুল করেননি তিনি।

অবশ্য এরপর রক্ষণাত্মক পন্থা অবলম্বন করে খেলে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। আর লিভারপুল একের পর এক সুযোগ মিসের মহড়া দেয়। দ্বিতীয়ার্ধে মোহাম্মদ সালাহ ও জর্ডান হেন্ডারসন প্রায় গোল করেই ফেলেছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর জালের নাগাল পাননি। তাতে ১-০ গোলের হার নিয়েই ইংল্যান্ডে ফিরতে হয় তাদেরকে।

এমন পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট হতে পারেননি লিভারপুলের কোচ জার্গেন ক্লপ। তিনি অবশ্য ‘কামব্যাক’ করার কথা কৌশলে বলেছেন, ‘এমনটা প্রত্যাশা করিনি আমরা। সেটাই হল। অবশ্য এমন লড়াই প্রত্যাশা করেছিলাম। এমন পরিবেশই প্রত্যাশিত ছিল। না জিতলেও ম্যাচের অনেক কিছু আমাকে মুগ্ধ করেছে। দ্বিতীয়ার্ধে আমরা ভালো খেলেছি। ১-০ গোলে পিছিয়ে আমরা। পরের লেগ হবে আমাদের স্টেডিয়ামে।’

অবশ্য ‘কামব্যাকের’ অবিশ্বাস্য এক নজির গেল বছর স্থাপন করেছে তারা। গেল আসরের সেমিফাইনাল প্রথম লেগে বার্সেলোনার মাঠে ৩-০ গোলে হেরেছিল সালাহ-ফিরমিনোরা। ফিরতি লেগে ঘরের মাঠে বার্সেলোনাকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে ফাইনালে উঠেছিল। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের মাঠ ওয়ান্ডা মেট্রোপলিটানো স্টেডিয়ামেই জিতেছিল শিরোপা। এখন দেখার বিষয় এবারও তারা দারুণভাবে ফিরে আসতে পারে কিনা।

 

ঢাকা/আমিনুল