ঢাকা, রবিবার, ২২ চৈত্র ১৪২৬, ০৫ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

মুশফিকের দ্বিশতকের পর নাঈমের ঘূর্ণিতে বাংলাদেশের দিন

ক্রীড়া ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-২৪ ৯:৩২:৩৪ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-২৪ ৯:০৫:৫০ পিএম

মিরপুরে একমাত্র টেস্টের তৃতীয় দিন শেষে চালকের আসনে বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহিমের দ্বিশতকের সঙ্গে মুমিনুলের সেঞ্চুরিতে ৬ উইকেটে ৫৬০ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসে ২৯৫ রানে এগিয়ে যায় টাইগাররা। জবাবে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারে দুই উইকেট হারিয়ে বসে জিম্বাবুয়ে। দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ৯/২। ৮ উইকেট হাতে নিয়ে ২৮৭ রানে পিছিয়ে আছে সফরকারিরা। চতুর্থ দিনে ইনিংস পরাজয় এড়াতে খেলবে জিম্বাবুয়ে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

জিম্বাবুয়ে ১ম ইনিংস: ২৬৫/১০

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৫৬০/৬ (১৫৪ ওভারে)

জিম্বাবুয়ে ২য় ইনিংস: ৯/২ (৫ ওভার)

লিড : বাংলাদেশ ২৮৭ রানে এগিয়ে।

তৃতীয় দিন বাংলাদেশের

মিরপুর টেস্টের তৃতীয় দিন বাংলাদেশের। সারাদিনে ৩ উইকেট হারিয়ে ৩২০ রান তোলে বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহিমের দ্বিশতকের সঙ্গে মুমিনুল করেন সেঞ্চুরি। মুশফিকের এটি তৃতীয় দ্বিশতক আর মুমিনুলের নবম সেঞ্চুরি। শেষ বিকালে ফিফটি হাঁকান লিটনও। দিন শেষে ৬ উইকেটে ৫৬০ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ। লিড নেয় ২৯৫ রানের। জবাবে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারে দুই উইকেট হারিয়ে বসে জিম্বাবুয়ে। দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ৯/২। ৮ উইকেট হাতে নিয়ে ২৮৭ রানে পিছিয়ে আছে সফরকারিরা। চতুর্থ দিনে ইনিংস পরাজয় এড়াতে খেলবে জিম্বাবুয়ে।

নাঈমের জোড়া আঘাত

২৯৫ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে জিম্বাবুয়ে। প্রথম ওভারে কোনো রান না তুলতে ২ উইকেট হারিয়ে বসে জিম্বাবুয়ে। নাঈম হাসান ওপেনার প্রিন্স মাসভাউরোকে আউট করার পরের বলে লিটনের ক্যাচে ফেরান ডোনাল্ড টিরিপানোকে।

ইনিংস ঘোষণা বাংলাদেশের

মুশফিকের দ্বিশতকের জন্য অপেক্ষা। ১৫৪ ওভারের সময় এনদোভুকে বাউন্ডারি ছাড়া করে ক্যারিয়ারের তৃতীয় দ্বিশতক হাঁকান মুশফিক। ওই ওভার শেষে বাংলাদেশে অধিনায়ক মুমিনুল ক্রিজে থাকা দুই ব্যাটসম্যানকে উঠে আসতে বলেন।তখন বাংলাদেশের স্কোর ৫৬০ রান। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ইনিংস শেষে লিড গিয়ে ঠেকলো ২৯৫ রানে। মুশফিক ২০৩ রান ও তাইজুল ১৪ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন। দিনের বাকি এখনো ৭ ওভার। জিম্বাবুয়ে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামবে।

মুশফিকের দ্বিশতক

এনদোভুকে কাট করে বাউন্ডারি মেরে ক্যরিয়ারের তৃতীয় দ্বিশতক তুলে নিলেন মুশফিকুর রহিম। উইকেট কিপিং ছেড়ে দেওয়ার তৃতীয় টেস্টে পেলেন দ্বিশতকের দেখা। এর আগে টেস্টের বাকি দুটি দ্বিশতক উইকেটরক্ষক হিসেবে পেয়েছেন মুশফিক। এটি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টানা দ্বিতীয় দ্বিশতক মুশফিকের। সর্বশেষ ২০১৮ সালে এ মিরপুরে ক্যারিয়ার সেরা অপরাজিত ২১৯ রান করেন মুশফিক। বাংলাদেশের প্রথম দ্বিশতকের মালিকও মুশফিক। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গলে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করেন জাতীয় দলের এ তারকা ব্যাটসম্যান।

ফিফটি ছুঁয়ে ফিরলেন লিটন

দুই বল আগে এনদোভুর বল সীমানা ছাড়া করে পেয়েছেন টেস্ট ক্যারিয়ারের পঞ্চম ফিফটি। এর দুই বল পরে সিকান্দার রাজার এক নিরীহ বল কাট করতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন লিটন। ফেরেন ৫৩ রানে। এর আগে মুশফিকের সঙ্গে ১০৮ রানের জুটি গড়েন লিটন। লিটনের ক্যাচ ধরার মাধ্যমে একটি রেকর্ড গড়েন জিম্বাবুয়ের উইকেটরক্ষক চাকাবা। বাংলাদেশের মাটিতে এক ইনিংসে পাঁচটি ডিসমিসালের রেকর্ড গড়েন রেগিস চাকাবা।

শতরানের জুটি গড়লেন মুশফিক-লিটন

ষষ্ঠ উইকেটে শতরানের জুটি গড়লেন মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। শতরানের জুটি গড়ার পথে লিটন করেন ৪৮ রান ও মুশফিক করেন ৫৩ রান।

বাংলাদেশের দশম ৫০০

টেস্ট ক্রিকেটে দশমবারের মতো ৫০০ রানের কোটা স্পর্শ করলো বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে তৃতীয় সেশনে ৫০০ রান পেরিয়ে যায় বাংলাদেশ। আর সেটা সম্ভব হয়েছে মুশফিকুর রহিম ও মুমিনুল হকের সেঞ্চুরি। মুমিনুল ১৩৫ করে আউট হলেও মুশফিক আছেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরির অপেক্ষায়। ব্যাট করছেন ১৭৬ রান নিয়ে। বাংলাদেশ লিড পেয়েছে ২৪৬ রানের।

মুশফিক ১৫০*

২৫৪ বল খেলে ২৪টি চারের সাহায্যে ১৫০ রান পূর্ণ করেছেন মুশফিকুর রহিম। গতকাল নাজমুল হোসেন শান্ত আউট হওয়ার পর তিনি ব্যাট করতে নামেন। এখনো তিনি আছেন অপরাজিত। দেখার বিষয় ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবল ছুঁতে পারেন কিনা তিনি।

দ্বিতীয় সেশনে ২ উইকেট হারাল বাংলাদেশ 

প্রথম সেশনটি দুর্দান্তভাবে কাটিয়েছিলেন মুশফিকুর রহিম ও মুমিনুল হক। তবে দ্বিতীয় সেশনে এসে দুটি উইকেট হারায় বাংলাদেশ। এনদোভুর বলে আউট হয়ে ফিরে যান অধিনায়ক মুমিনুল হক (১৩৫)। এরপর দ্রুতই ফিরেন মোহাম্মদ মিথুন। তার উইকেটিও নেন এনদোভু। এরপর লিটন কুমার দাস ও মুশফিকুর রহিম মিলে সেশন শেষ করেন বিরতিতে যান। মুশফিক ১৪৩ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন।

ফিরলেন মিথুন

মুমিনুল হককে ফেরানোর পর মোহাম্মদ মিথুনকেও ফিরিয়েছেন আইন্সলে এনদোভু। তার করা ১১৯তম ওভারের দ্বিতীয় বলে রেগিস চাকাবার হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন মিথুন। ২৩ বল খেলে ৩ চারে ১৭ রান করে যান তিনি।

৪০০ রান পেরিয়ে বাংলাদেশ

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪০০ পেরিয়েছে। লিড হয়েছে ১৫০ রানের। মুশফিকুর রহিম ১৩৫ ও মোহাম্মদ মিথুন ১৩ রান নিয়ে ব্যাট করছেন। 

ফিরলেন মুমিনুল

মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে ২২২ রানের জুটি গড়ে ফিরলেন মুমিনুল হক। দলীয় ৩৯৪ রানের মাথায় আইন্সলে এনদোভুর বলে কট অ্যান্ড বোল্ড হয়ে ফিরেন মুমিনুল হক। ২৩৪ বল খেলে ১৪টি চারের সাহায্যে ১৩২ রান করে ফিরেন অধিনায়ক। ফেরার আগে মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে ২২২ রানের জুটি গড়েন তিনি।

২০০ রান পেরিয়ে মুমিনুল-মুশফিক জুটি

৫০তম ওভারে দলীয় ১৭১ রানের মাথায় নাজমুল হোসেন শান্ত আউট হওয়ার পর দলের হাল ধরেন মুমিনুল হক ও মুশফিকুর রহিম। সেই থেকে এখন পর্যন্ত (১০৭ ওভার) এই জুটি অবিচ্ছিন্ন রয়েছে। ইতিমধ্যে তারা দুজন চতুর্থ উইকেটে ২১৭ রান সংগ্রহ করেছেন। যেখানে মুশফিকের অবদান ১২৬। আর মুমিনুলের ৮৪। তাদের দুজনের ব্যাটে ভর করে বাংলাদেশ ছাড়িয়েছে ৩৯০ রান। লিড নিয়েছে ১২৫ রানের।

এবার মুশফিকের সেঞ্চুরি

মুমিনুল হকের পর এবার সেঞ্চুরি তুলে নিলেন মুশফিকুর রহিমও। আইন্সলে এনডলভুর করা ১০১তম ওভারের চতুর্থ বলটিকে বাউন্ডারিতে পাঠিয়ে ৯৯ থেকে শতরানে পৌঁছান তিনি। এটা তার টেস্ট ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি। ১৬০ বলে খেলা তার এই ইনিংসে ১৮টি চারের মার রয়েছে। মুমিনুলের সঙ্গে চতুর্থ উইকেটে ইতিমধ্যে ১৯৮ রানের জুটি গড়েছেন তিনি।

মুশফিক-মুমিনুলের অনবদ্য এক সেশন

উইকেট হারিয়ে ২৪০ রান নিয়ে আজ সকালে তৃতীয় দিনে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম ও মুমিনুল হক নামের ক্রিজে। প্রথম সেশনে কোনো উইকেট না হারিয়ে ১১১ রান সংগ্রহ করেছে। এ যাত্রায় মুমিনুল তুলে নিয়েছেন ক্যারিয়ারের নবম সেঞ্চুরি (১১৯*)। সেঞ্চুরির পথে আছেন মুশফিকুর রহিমও। ১৫৩ বল খেলে ১৭ চারে ৯৯ রানে অপরাজিত আছেন তিনি। ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি পেতে আর ১ রান প্রয়োজন তার। বিরতির পর পারবেন কি তিনি?

মুমিনুল-মুশফিক জুটির ১৫০

৫০তম ওভারে দলীয় ১৭১ রানের মাথায় নাজমুল হোসেন শান্ত আউট হওয়ার পর দলের হাল ধরেন মুমিনুল হক ও মুশফিকুর রহিম। সেই থেকে এখন পর্যন্ত (৯২ ওভার) এই জুটি অবিচ্ছিন্ন রয়েছে। ইতিমধ্যে তারা দুজন চতুর্থ উইকেটে ১৪৫ রান সংগ্রহ করেছে। যেখানে মুশফিকের অবদান ৮৪। আর মুমিনুলের ৬৭। তাদের দুজনের ব্যাটে ভর করে বাংলাদেশ ছাড়িয়েছে ৩০০ রান। লিড নিয়েছে ৫৬ রানের।

মুমিনুলের সেঞ্চুরি

টেস্ট ক্যারিয়ারের নবম সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন মুমিনুল হক। অধিনায়ক হিসেবে প্রথম। ডোনাল্ড ত্রিপানোর করা ৮৩তম ওভারের তৃতীয় বলটিকে বাউন্ডারিতে পাঠিয়ে তিন অঙ্কের ম্যাজিক্যাল ফিগার স্পর্শ করেন মুমিনুল। ১৫৬ বলের এই ইনিংসে ১২টি চারের মার ছিল। মুশফিককে নিয়ে চতুর্থ উইকেটে ইতিমধ্যে ১২৮ রান সংগ্রহ করেছেন তিনি।

মুশফিকের ফিফটি

টেস্ট ক্যারিয়ারের ২২তম ফিফটি তুলে নিয়েছেন ‍মুশফিকুর রহিম। ৮০তম ওভারে ভিক্টর নাইআউচির করা চতুর্থ বলটিকে গালি এবং স্লিপের মাঝখান দিয়ে বাউন্ডারিতে পাঠিয়ে ৪৯ থেকে ফিফটিতে পৌঁছান। ৯৫ বল খেলে ১০ চারে হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন। ইতিমধ্যে মুশফিক ও মুমিনুল শতরানের জুটিও গড়েছেন।

লিড নিল বাংলাদেশ

মুশফিক ও মুমিনুলের ব্যাটে ভর করে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে লিড নিয়েছে বাংলাদেশ। ২৪০ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করা বাংলাদেশ ৭৯তম ওভারে লিড নেয়। মুশফিক ৪৯ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন। অপেক্ষায় আছেন টেস্ট ক্যারিয়ারের ২২তম ফিফটির। আর মুমিনুল ৯০ রানে অপরাজিত আছেন। তিনি অপেক্ষায় আছেন টেস্ট ক্যারিয়ারের নবম সেঞ্চুরির অপেক্ষায়।

 

ঢাকা/আমিনুল/কামরুল