Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৩ এপ্রিল ২০২১ ||  চৈত্র ৩০ ১৪২৭ ||  ২৮ শা'বান ১৪৪২

মুশফিক, মুমিনুলে জিম্বাবুয়েকে হতাশায় ডুবাল বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:১৬, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
মুশফিক, মুমিনুলে জিম্বাবুয়েকে হতাশায় ডুবাল বাংলাদেশ

স্যার ভিভিয়ান রিচাডর্স, সনাৎ জয়াসুরিয়া, স্টিভেন ফ্লেমিং, গ্যারি কারস্টেন কিংবা এ প্রজন্মের রস টেলর, স্টিভেন স্মিথ, ক্রিস গেইল বা চেতেশ্বর পূজারা; ক্রিকেট বিশ্বের পরিচিত নামগুলো বিখ্যাত হয়েছে বিভিন্ন অর্জনে।

তবে সাদা পোশাকে এক অর্জনে তারা সবাই এক কাতারে। টেস্ট ক্রিকেটে প্রত্যেকেরই রয়েছে তিনটি করে ডাবল সেঞ্চুরি। সেই ক্লাবে আজ যোগ দিলেন মুশফিকুর রহিম।

বাংলাদেশের দুটি ডাবল সেঞ্চুরি নেই আর কোনো ক্রিকেটারের। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২০১৮ সালে মুশফিক একমাত্র টাইগার ক্রিকেটার হিসেবে দ্বিশতক হাঁকান দুটি। তালিকাটা মুশফিক আজ আরও লম্বা করলেন। মিরপুরে এ ব্যাটসম্যান করলেন অপরাজিত ২০৩ রান। তাতে সংখ্যাটা দাঁড়ালো তিনে।

এছাড়াও অধিনায়ক মুমিনুলের ব্যাট থেকে আসে ১৩২ রান। তাতে বাংলাদেশ অতিথি জিম্বাবুয়েকে ফেলল রানের স্তুপের নিচে। জিম্বাবুয়ের ২৬৫ রানের জবাবে বাংলাদেশ করলো ৬ উইকেটে ৫৬০ রান। লিড ১৯৫ রানের। তাতেই ওলটপালট জিম্বাবুয়ে। পিছিয়ে থেকে ব্যাটিংয়ে নেমে তৃতীয় দিন শেষে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৯। ইনিংস পরাজয় এড়াতে সফরকারীদের করতে হবে আরও ২৮৬ রান।

মুশফিক অনবদ্য, অনন্য। ২০১২ সালে শ্রীলঙ্কায় পেয়েছিলেন প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি। ২০১৮ সালে পেয়েছিলেন দ্বিতীয়টি। দুবছর পর একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে করলেন অপরাজিত ২০৩। ৩১৮ বলে ৪৩৭ মিনিটে ২৮ চারে সাজিয়েছেন নিজের ইনিংস। ৩২ রানে দিন শুরু করে আজ ১৭১ রান করেন।

মুমিনুল অধিনায়ক হিসেবে পেয়েছেন নিজের প্রথম সেঞ্চুরি, ক্যারিয়ারের নবম। ১৩২ রানে যখন মুমিনুল সাজঘরে ফেরেন তখন তার ও মুশফিকের জুটির রান ২২২। এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো তাদের জুটির রান উঠল ডাবল সেঞ্চুরি। মুশফিকের ডাবল ও মুমিনুলের সেঞ্চুরির দিনে হাসেনি মিথুনের ব্যাট। ১৭ রানে শেষ হয় তার ইনিংস। আর হাফ সেঞ্চুরির পর ৫৩ রানে হাল ছাড়েন লিটন।

তবে সব ভালোর দিনে আড়াল হয়ে যায় তাদের ব্যর্থতা। শেষ বিকেলে ৫ ওভার ব্যাটিংয়ের সুযোগ পায় জিম্বাবুয়ে। প্রথম ওভারেই নাঈম তুলে নেন দুই উইকেট। কাসুজা ৮ ও টেলর ১ রানে অপরাজিত থেকে দিনের খেলা শেষ করেছেন। ইনিংস ব্যবধানে হার এড়াতে তাদের কঠিন পথ পাড়ি দিতে হবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে আজ দারুণ একটি দিন পার করেছে বাংলাদেশ।


ঢাকা/ইয়াসিন/কামরুল

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়

শিরোনাম

Bulletলকডাউন: ১৪-২১ এপ্রিল। যা যা চলবে: ১. বিমান, সমুদ্র, নৌ ও স্থল বন্দর এবং তৎসংশ্লিষ্ট অফিস। ২. পণ্য পরিবহন, উৎপাদন ব্যবস্থা ও জরুরি সেবাদানের ক্ষেত্রে এ আদেশ প্রযোজ্য হবে না ৩. শিল্প-কারখানা ৪. আইনশৃঙ্খলা এবং জরুরি পরিসেবা, যেমন, কৃষি উপকরণ (সার, বীজ, কীটনাশক, কৃষি যন্ত্রপাতি ইত্যাদি), খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্য পরিবহন, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্যসেবা, কোভিড-১৯ টিকা প্রদান, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস/জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, বন্দরগুলোর (স্থল, নদী ও সমুদ্রবন্দর) কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট (সরকারি-বেসরকারি), গণমাধ্যম (প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া), বেসরকারি নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ডাক সেবাসহ অন্যান্য জরুরি ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসসমূহ, তাদের কর্মচারী ও যানবাহন এ নিষেধাজ্ঞার আওতা বর্হিভূত থাকবে। ৫. ওষুধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়, চিকিৎসা সেবা, মৃতদেহ দাফন/সৎকার ৬. খাবারের দোকান ও হোটেল-রেস্তোরাঁয় দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা এবং রাত ১২টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত কেবল খাদ্য বিক্রয়/সরবরাহ করা যাবে। ৭. কাঁচাবাজার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সকাল ৯টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত উন্মুক্ত স্থানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় করা যাবে || যা যা বন্ধ থাকবে: ১. সব সরকারি, আধাসরকারি, সায়ত্ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিস, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে ২. সব ধরনের পরিবহন (সড়ক, নৌ, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইট) বন্ধ থাকবে ৩. শপিংমলসহ অন্যান্য দোকান বন্ধ থাকবে