ঢাকা, সোমবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২৫ মে ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

বলে লালা ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা আইসিসির

ক্রীড়া ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৫-২২ ৯:৫৬:৪৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৫-২২ ১১:৫৪:৫২ পিএম

করোনাভাইরাসের কারণে মার্চের মাঝামাঝি থেকে থেমে আছে বিশ্বের ক্রীড়াঙ্গন। ফুটবল সম্প্রতি মাঠে ফিরলেও ক্রিকেট এখনো থমকে আছে। তবে জুলাইতে ইংল্যান্ডের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তান সফর দিয়ে আবার ক্রিকেট ফেরানোর কথা চলছে। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসিও তাতে সম্মতি দিয়েছে।

তবে ক্রিকেটারদের সুরক্ষার জন্য মাঠের ক্রিকেট ফেরার আগে কিছু নিয়ম বেঁধে দিয়েছে আইসিসি। এর মধ্যে অন্যতম ক্রিকেট বলে আর লালা বা ঘাম ব্যবহার করা যাবে না। এই নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে বেশ আলোচনা চলছিলো। কোভিড-১৯ পরবর্তী সময়ে ক্রিকেটারদের এই ভাইরাস থেকে মুক্ত রাখার জন্য বলে লালা বা ঘামের ব্যবহার নিষেধ করার প্রস্তাব তোলে আইসিসির মেডিকেল কমিটি।

অবশেষে আনুষ্ঠানিকভাবে নিজেদের গাইডলাইনে এই বিষয়ে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা দিয়েছে আইসিসি। করোনা সঙ্কট কাটিয়ে মাঠের ক্রিকেট ফিরলে খেলোয়াড়দের সুরক্ষার জন্য কী কী করতে হবে, তা নিয়ে এই গাইডলাইন তৈরি করেছে আইসিসির মেডিকেল কমিটি।

যেখানে বলে লালা বা ঘাম ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা ছাড়াও আরও কিছু বিধি নিষেধ দেওয়া হয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে বল ধরার পূর্বে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে। এছাড়াও বল ধরার পর চোখ, নাক বা মুখে হাত দেওয়া যাবে না। মাঠে বল নিয়ন্ত্রণ করার জন্য আম্পায়ারদের হাতে গ্লাভস পরে নামতে হবে।

এছাড়াও মাঠে ফিল্ডিং করার সময় নিজেদের মধ্যে দূরত্ব বজায় রেখে করতে হবে। খেলার মাঝে অপ্রয়োজনে কোনোভাবেই একজন ক্রিকেটার অন্যজনকে স্পর্শ করতে পারবে না।

ক্রিকেটে মাঠে এতদিন দেখা যেত, বোলাররা বোলিং করতে আসলে আম্পায়ারকে নিজের জার্সি, ক্যাপ বা সানগ্লাস খুলে দিতো। তবে করোনা পরবর্তী সময়ে এক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা এনেছে আইসিসি। নিজের জার্সি, সানগ্লাস বা ক্যাপ নিজেকে যত্ন করতে হবে। এমনকি মাঠের সতীর্থকেও দেওয়া চলবে না।

খেলা শেষ হলে দুই দলের মধ্যকার খেলোয়াড়রা নিজেদের মধ্যে দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। এমনকি নিজের দলের খেলোয়াড়দের সাথেও দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। মাঠে যদি দর্শক থাকে তবে তাদের সাথেও নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। খেলার মাঠে ক্রিকেটারদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে ডিউটি ডাক্তারও থাকবে বলে জানায় আইসিসি।

ক্রিকেট মাঠের প্রয়োজনীয় গাইডলাইনের পাশাপাশি ট্রেনিংয়ে ফেরার ক্ষেত্রেও কিছু নিয়মাবলী জানিয়েছে আইসিসি। যেখানে বলা হয়েছে, নির্দিষ্ট দেশের সরকারের অনুমতি সাপেক্ষে ক্রিকেট শুরু করতে পারবে। তবে ট্রেনিংয়ে ফেরার আগে প্রত্যেক খেলোয়াড়ের করোনা টেস্ট করা হবে। কারো পজেটিভ থাকলে তাকে পরিপূর্ণ ভাবে আইসোলেশন মেনে সুস্থ হয়ে আসতে হবে। আর কারো নেগেটিভ আসলেও ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন মেনে আসতে হবে। এসব ক্ষেত্রেও নিজের ক্রিকেটীয় সামগ্রীর যত্ন নিজেকেই নিতে হবে।


ঢাকা/কামরুল