ঢাকা, বুধবার, ৩০ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

কোচরা অপছন্দ করে বলে আমি দলের বাইরে: কামরান

ক্রীড়া ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৬-৩০ ৬:৩৭:৩৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৬-৩০ ৬:৪৮:৫১ পিএম

বয়সের কৌঠা ৩৮ ছুঁয়েছে; তবে তাতে ব্যাটে রানের ফোয়ারা বন্ধ হয়নি পাকিস্তানের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কামরান আকমলের। পাকিস্তান ক্রিকেট দলের পরিকল্পনায় থাকেন পারফরম্যান্স দিয়ে। তবে দীর্ঘ তিন বছর হলো জাতীয় দলের বাইরে। পাকিস্তানের এই ক্রিকেটার জানিয়েছেন, কোচদের অপছন্দের তালিকায় থাকায় ভালো খেলেও জাতীয় দলের জার্সি গায়ে উঠছে না তাঁর।

এদিকে আপন ছোট ভাই প্রতিভাবান ক্রিকেটার উমর আকমল কিছুদিন আগে ফিক্সিং কান্ডে নিষিদ্ধ হয়েছেন। এ নিয়েও ক্ষোভ ঝরেছে কামরানের কণ্ঠে। এই ক্রিকেটার মনে করেন ম্যানেজমেন্ট ও অধিনায়ক যদি ঠিকমতো পরিচালনা করতেন তবে এমন পরিস্থিতির শিকার হতে হতো না উমরকে।

সর্বশেষ ২০১৭ সালে পাকিস্তানের হয়ে খেলা কামরান ঘরোয়া ক্রিকেটে দারুণ রান করছেন। বিশেষ করে দেশটির টি-টোয়েন্টি আসর পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) অনেক রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন কামরান। পিএসএলের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক এই ক্রিকেটার ৫৫ ইনিংসে করেছেন ১৫৩৭ রান।

এর পাশাপাশি টুর্নামেন্টের দ্রুততম হাফসেঞ্চুরির রেকর্ডটিও তাঁর দখলে। উইকেটরক্ষক হিসেবে সবচেয়ে বেশি ডিসমিসাল (৪৪) কিংবা এক মৌসুমে সর্বোচ্চ ডিসমিসালের রেকর্ডও (১২) কামরান আকমলের। পিএসএলের সর্বোচ্চ সেঞ্চুরিয়ারন কামরান চলতি বছরও ৫৫ বলে ১০১ রানের ইনিংস খেলেছেন। তবে এত কিছুর পরেও টি-টোয়েন্টি দলেও সুযোগ না পাওয়া কামরান ক্রিকেট পাকিস্তান নামক অনুষ্ঠানে নিজের ক্ষোভ ঝেড়ে বলেন,

‘আমি ঘরোয়া ক্রিকেট আর পিএসএলে গত পাঁচ বছর ধরেই পারফর্ম করছি। কিন্তু পাকিস্তানের হয়ে খেলার সুযোগ দেওয়া হয়নি আমায়। বিগত সময়গুলোতে কয়েকজন কোচ আছেন, যারা আমাকে পছন্দ করতেন না। এজন্য আমাকে সাইডলাইনে রাখা হয়েছে।’

এরপর অস্ট্রেলিয়ার উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ম্যাথু ওয়েডের উদাহরণ টেনে এই পাকিস্তানি ক্রিকেটার আরও যোগ করেন, ‘টেস্ট আর টি-টোয়েন্টি দলে আমাকে না নেওয়াটা অযৌক্তিক। কেননা একজন ব্যাটসম্যান হিসেবে আমি অনায়াসেই খেলতে পারি। যদি ম্যাথু ওয়েড ১৮-২০ গড় নিয়ে দলে ফিরতে পারে, ৬০-এর কাছাকাছি গড় নিয়েও আমি কেন পারছি না?’

কেবল নিজেকে নিয়ে নয় ছোট ভাই উমর আকমলকে নিয়ে কামরান বলেন, ‘পাকিস্তানের ক্রিকেটে মাঠের বাইরের কান্ড নতুন কিছু নয়। টিম ম্যানেজমেন্ট এবং অধিনায়ককে জানতে হবে এমন খেলোয়াড়দের কিভাবে আয়ত্বে আনা যায়। দেখুন ইনজি ভাই (ইনজামাম) কিভাবে শোয়েব (আখতার), আসিফ আর শহীদকে (আফ্রিদি) পরিচালনা করেছেন। যদি উমর আকমলকে সেভাবে চালানো হতো, তবে পরিস্থিতি ভিন্ন হতে পারতো।’


ঢাকা/কামরুল