ঢাকা     মঙ্গলবার   ১১ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২৭ ১৪২৭ ||  ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

বিকেএসপি ঘিরে যুব বিশ্বকাপের ভাবনা

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১০:৫৬, ১৫ জুলাই ২০২০  
বিকেএসপি ঘিরে যুব বিশ্বকাপের ভাবনা

সোনার কাঁঠি, রুপার কাঠির ছোঁয়ায় নয়; নিখুঁত প্রক্রিয়ায় চার বছরের দীর্ঘ পরিকল্পনা শেষে বাংলাদেশের জন্য প্রথম কোনো বৈশ্বিক শিরোপা এনে দেয় আকবর আলীরা। অগ্রজরা যে বেঞ্চমার্ক দাঁড় করে গেছেন, সেখান থেকে পেছনে যাক অনুজরা; এমনটা চাইছে না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। আর তাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাঠে অনুষ্ঠেয় ২০২২ যুব বিশ্বকাপের পরবর্তী আসরের জন্য এখন থেকে কার্যক্রম শুরু করতে চাইছে বিসিবি।

যদিও এই কার্যক্রম শুরু হয়েছিল আরও আগে। তবে করোনা পরিস্থিতিতে থমকে ছিল এতদিন। বর্তমানে করোনা সঙ্কটকে পাশে রেখে বিকেএসপিকে ঘিরে নতুন পরিকল্পনা সাজাচ্ছে গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটি। এ লক্ষ্যে বিসিবি কার্যালয়ে আজ (১৫ জুলাই) এক সভার আয়োজন করে তারা। সভা শেষে বিসিবি পরিচালক ও গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটির প্রধান খালেদ মাহমুদ সুজন জানিয়েছেন, বিকেএসপিকে ঘিরে আসন্ন যুব বিশ্বকাপের কার্যক্রম আবার পুরোদমে শুরু করতে যাচ্ছেন তারা। এছাড়াও এদিন বিশ্বজয়ী যুবাদের নিয়ে পরিকল্পনাও জানান তিনি।

খালেদ মাহমুদ জানিয়েছেন, ঈদের পরে সরকারের সবুজ সংকেতের অপেক্ষায় আছেন তারা। আর সেটি পেলেই অনূর্ধ-১৯ দলের ক্যাম্প শুরু করবে তারা। তিনি বলেন, ‘আসন্ন অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ মাত্র ১৬ মাস দূরে। আর এটিকে ঘিরে পরিকল্পনা গ্রহণের চেষ্টা করেছি আমরা। করোনার কারণে সব বন্ধ হয়ে যাওয়াতে থমকে আছে সবকিছু। তবে ঈদের পর দেশের পরিস্থিতি এবং সরকারের অনুমতির উপর নির্ভর করছে সবকিছু। বোর্ড থেকেও যদি সবুজ সংকেত দেয় তাহলে আমরা যুবাদের ক্যাম্প শুরু করবো।’

কবে নাগাদ শুরু করবে ক্যাম্প, সেই বিষয়ে সঠিক তথ্য দিতে না পারলেও বিকেএসপি ঘিরে পরিকল্পনা সাজাচ্ছে জানিয়ে বিসিবির এই পরিচালক আরও জানিয়েছেন, ‘আমরা আগস্টের শেষে বা মাঝামাঝিতে শুরু করতে চাইছি। পুরো কার্যক্রম আমরা বিকেএসপিতে করার চিন্তা করছি।  সেখানকার ইন্টারন্যাশনাল হোস্টেল পেয়ে গেলে আগস্টে সেটি লকডাউন করবো। এরপর সেখানে কোয়ারেন্টাইনের সুবিধা করে আগস্টের শেষদিকে চার সপ্তাহের একটা ট্রেনিং করবো। যেখানে আমাদের নির্বাচকরা যাবে। সেখানে খেলোয়াড় বাছাইয়ের কাজ করবো। এবার ক্যাম্প থেকেই সিলেকশন করতে হবে আমাদের।’

এদিকে বিশ্বকাপজয়ী দল নিয়ে আলাদা একটা বয়সভিত্তিক দল করার পরিকল্পনা ছিল গেম ডেভেলপমেন্টের। তাদের ইংল্যান্ডে পাঠানোর পরিকল্পনাও ছিল। তবে সব ওলটপালট করে দিলো করোনা। তবে এবার না হলেও আকবর, শামীম, রাকিবুলদের নিয়ে করা পরিকল্পনা থেকে সরে আসেনি সুজনরা। বিসিবির পরিচালকের ভাষ্যে,

‘আমরা এ বছর তাদের ইংল্যান্ডে পাঠাতে আলোচনা করেছি। তবে জুলাই মাস শেষ হয়ে যাচ্ছে। সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে গিয়ে কাঙ্খিত কন্ডিশন পাবো না। তবে আগামী বছরের জুন-জুলাইর দিকে হলেও ৬০ দিনের ক্যাম্প করার চেষ্টা করবো আমরা। চেষ্টা করবো কাউন্টির অধীনে ক্যাম্প করতে। তবে ক্যাম্পের দিকে ফোকাস থাকবে আমাদের। সঙ্গে কিছু ম্যাচও খেলব। ইংল্যান্ডের মতো কন্ডিশনে যদি ছেলেরা ট্রেনিং করতে পারে তাহলে তাদেরও অনেক উন্নতি হবে।’

এদিকে স্কুল ক্রিকেটে সব জোনাল চ্যাম্পিয়নদের নিয়ে একটা লঙ্গার ভার্সন ক্রিকেট টুর্নামেন্টের পরিকল্পনাও করেছে গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটি।

 

ঢাকা/কামরুল

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়