ঢাকা     শনিবার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ৪ ১৪২৭ ||  ৩০ মহরম ১৪৪২

কোথায় হারালেন ভারতের সেই ট্রিপল সেঞ্চুরিয়ান?

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৩৭, ১১ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
কোথায় হারালেন ভারতের সেই ট্রিপল সেঞ্চুরিয়ান?

দিনটি ছিল ২০১৬ সালের ১৯ ডিসেম্বর। শূন্য থেকে উঠে এসে ইতিহাসের পাতায় নিজেকে জড়িয়ে নেন ভারতের তুর্কী করুণ নায়ার।

চেন্নাইয়ের ২২ গজে ডানহাতি ব্যাটসম্যান লিখে ফেলেন ৩০৩ রানের মহাকাব্য। যেখানে তার আগে পৌঁছাতে পেরেছেন কেবল ভারতের বীরন্দ্র শেবাগ। ইংলিশ বোলারদের নাস্তানাবুদ করে দ্বিতীয় ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে করুণ নায়ার হাঁকান ট্রিপল সেঞ্চুরি। ৩৮১ বলে ৩২ চার ও ৪ ছক্কায় সাজান ৩০৩ রানের ধ্রুপদী ইনিংস।

বিরাট কোহলি দারুণ টিমমেট। নিজের অর্জন তো বটেই সতীর্থর অর্জন এমনভাবে উপভোগ করেন, দেখে বোঝার উপায় নেই কে কীর্তি গড়েছেন! সেদিন প্রায় পড়ন্ত বিকেলে করুণ নায়ার তিনশ করার পরপর ড্রেসিংরুমে কোহলির লাফালাফি ও হাততালি যেন থামছিলই না। জানা যায়, সেদিন ড্রেসিংরুমে নায়ারকে প্রায় কাঁধে তুলে নিতে গিয়েছিলেন ভারতের অধিনায়ক।

অথচ সেই নায়ারই এখন ভারতীয় দল থেকে নিযুত দূরত্বে। নির্বাচকদের উদাসীনতা, নিজের পথ ভুলে যাওয়া, বাজে পারফরম্যান্স ও তারুণ্যের জোয়ারে করুণ নায়ার হারিয়ে  যান অথৈ সাগরে। যেখানে সে হাবুডুবু খাচ্ছেন স্রোতের বিপরীতে। অথচ তার কীর্তিতে সেদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টুইট করেছিলেন। ভারতের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক কপিল দেব বলেছিলেন,‘এমন এক ব্যাটিং যা দেখে আপনি মুগ্ধ হয়ে বলবেন, ওয়াও।’

শেবাগ নিজের ৩৪তম ইনিংসে ট্রিপল সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন। নায়ার পেয়েছিলেন চতুর্থ ইনিংসে। দলে ঢুকেছিলেন আজিঙ্কা রাহানের ইনজুরিতে। ট্রিপল সেঞ্চুরি করেও জায়গা পাকাপাকি করতে পারেননি। দলের সংস্কৃতি এমন ছিল, রাহানে ইন, নায়ার আউট। দল থেকে বাদ পড়ার পর আর ফেরা হয়নি তার। ২০১৭-১৮ মৌসুমে রঞ্জি ট্রফিতে সাত ম্যাচে ৬১২ রান করেছিলেন। এরপর নিজের পথ ভুলে যান।
ধারাবাহিকভাবে ২২ গজে খারাপ সময় কাটিয়ে সাফল্যের মহাসড়ক থেকে ‘বাইপাসে’ চলে যান। এখন নিজেকে হারিয়ে খুঁজছেন অলিগলিতে। নিজ মুখেই স্বীকার করেছেন এসব কথা, ‘আমি ঘরোয়া ক্রিকেটে ধারাবাহিক পারফরম্যান্স করতে পারিনি। এজন্য মাথা তুলে কিছু প্রত্যাশাও করতে পারিনা।’

নায়ার আরো বলেন, ‘স্কোয়াডে কিংবা একাদশে জায়গা পাওয়ার জন্য প্রথম শর্তই হচ্ছে পারফর্ম করা। দলে নির্বাচন আমার হাতে থাকে না। কিন্তু আমার সামনে আসা প্রত্যেকটি সুযোগ আমাকে নিতে হবে।’ ২৮ বছর বয়সী এ ব্যাটসম্যান বিশ্বাস করেন সময় এখনও ফুরিয়ে যায়নি। ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো করে আবারো ফিরে আসা সম্ভব। এজন্য খোলস থেকে বেরিয়ে পারফর্ম করতে হবে। নির্বাচকদের সুনজরে আসতে হবে। পারফর্ম করতে হবে এমনভাবে যেন দলে নিতে বাধ্য হয় টিম ম্যানেজমেন্ট।

‘দেখুন ট্রিপল সেঞ্চুরি করে বাদ পড়া রীতিমত আমার কাছে বোঝা হয়ে গিয়েছিল। এজন্য সেই ম্যাচ নিয়ে চিন্তা করাই বাদ দিয়েছি। হয়তো ওই ম্যাচটি নিয়ে চিন্তা করলে গর্ব হয়। কিন্তু এ মুহূর্তে ইতিবাচক থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ। নিজের ক্যারিয়ার গড়ার জন্য সামনে তাকিয়ে আছি।’ – যোগ করেন ভারতের ট্রিপল সেঞ্চুরিয়ান।

ঢাকা/ইয়াসিন

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়