ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ৯ ১৪২৭ ||  ০৬ সফর ১৪৪২

এক নেইমারের সমান আতালান্তার পুরো দল

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:০৫, ১৪ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
এক নেইমারের সমান আতালান্তার পুরো দল

২০১১ সালে কাতারি পেট্রো ডলার কোম্পানি ফরাসি ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইকে কেনার পর থেকে বদলে যেতে থাকে দলটি। ইতিমধ্যে ফ্রান্সের সবচেয়ে সফল দল হিসেবে নিজেদের প্রমাণ করে ফেলেছে পিএসজি। এখন লক্ষ্য ইউরোপ সেরা হওয়া।

আর সে লক্ষ্যে দেদারসে অর্থ ব্যয় করে যাচ্ছে ক্লাবটি। দলে ভিড়িয়েছে কিলিয়ান এমবাপ্পে, এডিনসন কাভানি, নেইমারের মতো তারকাদের। ফলও মিলতে শুরু করেছে। গত ২৫ বছরের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে উঠেছে দলটি। কোয়ার্টার ফাইনালে আতালান্তাকে শেষ তিন মিনিটের জাদুতে শেষ চার নিশ্চিত করেছে থমাস টুখেলের দল।

এদিকে এই ম্যাচে জয়-পরাজয় ছাপিয়ে আলোচিত হয়ে উঠেছে দুই দলের অর্থ খরচের হিসাব। পিএসজি যেমন অকাতরে অর্থ খরচ করছে। অপরদিকে বেরাগোমো শহরের আতালান্তা, তারকা এবং অর্থ ছাড়া চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনাল মাতিয়ে গেছে।

ইএসপিএনের এক হিসাবে দেখা গেছে, গত ৯ বছরে পিএসজি খরচ করেছে ১.৪২ মিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশি অর্থমূল্যে যা ১২ হাজার কোটি টাকার বেশি। অথচ গত ১৯ বছরে আতালান্তার দলবদলের বাজারে মোট খরচ ৩৮৫.৩ মিলিয়ন ডলার। পিএসজি এমবাপ্পে এবং নেইমারকে কিনতেই এর চেয়ে বেশি খরচ করেছে। ট্রান্সফারমার্কেটের তথ্য অনুযায়ী, নেইমারকে ২৪৪ এবং এমবাপ্পেকে ১৪৮ মিলিয়ন ডলার দিয়ে কিনেছে পিএসজি।

শুধু তাই নয়, আতালান্তার পুরো দলের বার্ষিক যে খরচ, পিএসজিতে একা নেইমার সেই পরিমাণ অর্থ পায়। ইতালিয়ান সংবাদমাধ্যম ‘লা গাজেত্তা দেল স্পোর্ত’-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, নেইমারের পিএসজি থেকে বাৎসরিক আয় ৩৬ মিলিয়ন ইউরো। অপরদিকে আতালান্তার গোটা স্কোয়াডের বাৎসরিক আয় ৩৩ থেকে ৩৬ মিলিয়নের মধ্যে।

আর এমন সব তথ্য-উপাত্ত সামনে এনে পিএসজি-আতালান্তা কোয়ার্টার চলাকালীন এক ভক্ত টুইট করেছিল, ‘অর্থই কেবল সাফল্যের মূল উৎস নয়।’ যদিও শেষ পর্যন্ত আর্থিক শক্তিশালী ক্লাবটির কাছে হার মানে আতালান্তা। দলকে জয় উপহার দেন বিশ্বের সবচেয়ে দামী ফুটবলার নেইমার। যার স্বপ্ন প্রথমবারের মতো পিএসজিকে ইউরোপ চ্যাম্পিয়ন করার। এখন দেখার বিষয়, কতটাই বা সফল হয় পিএসজি এবং নেইমার।

ঢাকা/কামরুল

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়