ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ১৪ ১৪২৭ ||  ১১ সফর ১৪৪২

ভেট্টরির বোলিং অ্যাকশনে মানিয়ে নিয়েছেন তাইজুল

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৪৩, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০  
ভেট্টরির বোলিং অ্যাকশনে মানিয়ে নিয়েছেন তাইজুল

লাল বলের ক্রিকেট মানেই তাইজুল ইসলামের উপস্থিতি। আর সাদা বলে? তাইজুলকে নিয়ে ভাবেন-ই না কেউ! একেবারে দেয়ালে পিঠ ঠেকলে নির্বাচকদের হৃদয়ে খানিকটা উঁকি দেন তাইজুল। তখন সুযোগ হয় এক বা দুই ম্যাচের জন্য। এরপর আবার আউট অব টিম!

রঙিণ পোশাকে এমন ‘অবজ্ঞা’ তাইজুলকে খুব ভাবায়। অথচ নিজের অভিষেকে হ্যাটট্রিকসহ চার উইকেট পেয়েছিলেন রাজশাহীর এ ক্রিকেটার। সেজন্য নিজ থেকে নতুন চ্যালেঞ্জ নিয়েছেন। টেস্ট ক্রিকেটের পাশাপাশি তার খেলতে হবে সীমিত পরিসরের ক্রিকেটও। এ জন্য প্রথম ধাপে নিজের বোলিং অ্যাকশনে পরিবর্তন এনেছেন বাঁহাতি স্পিনার।

অভিজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে বোলিং অ্যাকশনে পরিবর্তন এনেছেন। বড় কোনো পরিবর্তন তা না। ল্যান্ডিংয়ে পরিবর্তন আনছেন, রানিং বাড়িয়েছেন। হাতের পজিশন আরেকটু ভেতরে এনেছেন। স্পিন কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টরির ছাড়পত্র পাওয়ার পর তাইজুল নিজের নতুন অ্যাকশন নিয়ে কাজ করছেন। এখন তার বোলিং অ্যাকশনে ভেট্টরির ছায়া। বিশেষ করে ডেলিভারি স্ট্রাইডে হুবুহু ভেট্টরি। নতুন এ বোলিং অ্যাকশনে স্বাচ্ছন্দ্যে বোলিং করছেন বাঁহাতি স্পিনার।

মঙ্গলবার মিরপুরে ব্যক্তিগত অনুশীলন শেষে তাইজুল বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে আমি বোলিং নিয়ে কাজ করেছি। ভেটোরির সঙ্গে কথা বলেছি আমার বোলিং নিয়ে, মাঝখানে অ্যাকশন বদলেছি। অ্যাকশন নিয়ে কাজ করেছি। শরীরের সঙ্গে এখন অ্যাকশন মানিয়ে গেছে। এখন টানা ২ ঘণ্টা বোলিং করতেও সমস্যা হচ্ছে না। আমাদের ব্যক্তিগত অনুশীলন যখন ছিল, তখন যে সুবিধাটা হয়েছে, যার যার কাজগুলি নিজের মতো করে করতে পেরেছি। সপ্তাহ দুয়েক হলো ব্যাটম্যানদের বোলিং করছি নেটে। আত্মবিশ্বাস বাড়তে শুরু করেছে, আরও কিছুদিন গেলে আরও বাড়বে আশা করি।’

নতুন অ্যাকশনে তাইজুলের বোলিং বৈচিত্র্য বেড়েছে। তার বিশ্বাস নতুন বৈচিত্র্যে সব কন্ডিশনে ভালো করা যাবে। খেলা যাবে সবধরণের ফরম্যাট, ‘আগের অ্যাকশনে তিন সংস্করণে খেলা চালিয়ে যাওয়াটা কঠিন ছিল, কারণ বৈচিত্র্যের মাত্রা কম ছিল। ভেট্টরির সঙ্গে কথা বলার পর তিনি বলেছেন যে, এই অ্যাকশনে একই রকম বল করে হয়তো তিন ফরম্যাটে খেলতে পারব। এজন্য বলের বাড়তি বাউন্সের দিক চিন্তা করে, ওভার স্পিনের কথা চিন্তা করে, বিভিন্ন বৈচিত্র্যে কথা চিন্তা করেই অ্যাকশন বদলে ফেলেছি। এর মধ্যে ফলও পাচ্ছি, বৈচিত্র্যে পেতে সহায়তা করছে নতুন অ্যাকশন।’

২৯ টেস্টে ১১৪ উইকেট পেয়েছেন তাইজুল। বাংলাদেশ দলের সাম্প্রতিক সময়ের সাফল্যগুলোতে তার বিরাট অবদান। ২৮ বছর বয়সী স্পিনার বিশ্বাস করেন সামনেও সাফল্যধারা অব্যাহত থাকবে। পাশাপাশি বাংলাদেশ দলকে এগিয়ে নেবে আরও অনেকদূর। এজন্য দ্রুত মাঠে ফিরতে চান জাতীয় ক্রিকেটার।

‘আমরা যারা ক্রিকেটার, বা যে কোনো খেলার খেলোয়াড়ই বলুন, এত লম্বা সময় খেলার বাইরে থাকা কঠিন। আমরা মাঠে থাকতেই পছন্দ করি। সামনে শ্রীলঙ্কা সিরিজ হওয়াটা তাই খুবই জরুরি। তাহলে ক্রিকেটাররা সবাই মাঠে ফিরতে পারব। আগের অবস্থায় ফিরতে পারলে ভালো লাগবে।’- যোগ করেন তাইজুল।

ঢাকা/ইয়াসিন

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়