RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২০ ||  অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৭ ||  ১৭ রবিউস সানি ১৪৪২

যেভাবে ৫ থেকে ১০ বছরের নিষেধাজ্ঞা থেকে সাকিবের রক্ষা 

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:৪২, ২৮ অক্টোবর ২০২০  
যেভাবে ৫ থেকে ১০ বছরের নিষেধাজ্ঞা থেকে সাকিবের রক্ষা 

ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব পেয়েও সেটা না জানানোয় দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা পেয়েছেন সাকিব আল হাসান। গত বছরের ২৯ অক্টোবর সন্ধ্যায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) তাকে এই নিষেধাজ্ঞা দেয়। মূলত তার নিষেধাজ্ঞা এক বছরের, বাকি এক বছর স্থগিত নিষেধাজ্ঞা। এই হিসেবে বৃহস্পতিবার থেকেই মাঠে ফিরতে পারবেন সাকিব। 

তবে এ নিষেধাজ্ঞা হতে পারতো ৫ থেকে ১০ বছরের। অপরাধ স্বীকার করে নিয়ে তদন্তে আইসিসিকে সমর্থন করায় সাকিবের নিষেধাজ্ঞা কমেছে। গত ২৪ জুন ক্রিকবাজকে এক সাক্ষাৎকার দেন সাকিব। সেখানে নিষেধাজ্ঞা নিয়ে খোলামেলা কথা বলেন তিনি। 

সঞ্চালক হার্শা ভোগলেকে সাকিব বলেন, ‘আমার মনে হয়, আমি এটা (জুয়ারির প্রস্তাব) একটু বেশিই হালকাভাবে নিয়েছিলাম। আমি যখন দুর্নীতি বিরোধী কর্মকর্তার সঙ্গে দেখা করলাম এবং বললাম, তারা সবকিছু জানে, সব প্রমাণ দিলাম, ভেতরে-বাইরের সবকিছু তারা খুঁটিনাটি জানে। সত্যি কথা বলতে, এ কারণেই মাত্র এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছি। নইলে ৫-১০ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হতে পারতাম। আমার মনে হয়, বোকার মতো ভুল করেছিলাম। কারণ যে অভিজ্ঞতা আমার আছে, যে পরিমাণ আন্তর্জাতিক ম্যাচ আমি খেলেছি এবং দুর্নীতি দমন ধারা নিয়ে যতগুলো ক্লাস করেছি, আমার ওই ভুল করা উচিত হয়নি। সেটা নিয়ে আমি অনুতপ্ত।’ 

নিষেধাজ্ঞা পাওয়ার পরপরই সাকিব বলেছিলেন, ‘যে খেলাটাকে আমি সবচেয়ে বেশি ভালোবাসি, সেই খেলা থেকে নিষিদ্ধ হওয়ায় অবশ্যই খুবই ব্যথিত হয়েছি। তবে আমি আইসিসির কাছে এ বিষয়ে রিপোর্ট না করায় পুরোপুরিভাবে নিষেধাজ্ঞা মেনে নিয়েছি। দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ক্ষেত্রে দুর্নীতি দমন ইউনিট সম্পূর্ণ খেলোয়াড়দের উপর নির্ভর করে। এক্ষেত্রে আমি আমার কর্তব্য পালন করতে পারিনি। বিশ্বের অধিকাংশ খেলোয়াড় ও ভক্তদের মতো আমিও চাই ক্রিকেট দুর্নীতিমুক্ত একটি খেলা হোক। আমি আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিটের সঙ্গে তাদের শিক্ষনীয় প্রোগ্রামে অংশ নেবো। এর মধ্য দিয়ে আমি নিশ্চিত করতে চাই যে, যেন আমার মতো তরুণ ক্রিকেটাররা একই ভুল না করে।’

ঢাকা/ইয়াসিন/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়