RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৬ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ১২ ১৪২৭ ||  ১০ জমাদিউস সানি ১৪৪২

মা-বাবার পাশে চিরশায়িত ম্যারাডোনা

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৮:৫৯, ২৭ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ০৯:৩০, ২৭ নভেম্বর ২০২০
মা-বাবার পাশে চিরশায়িত ম্যারাডোনা

ডিয়েগো ম্যারাডোনার মৃত্যু বিশ্বজুড়ে শোকের মাতম তুলেছে ফুটবলপ্রেমীদের মধ্যে। বৃহস্পতিবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান ৬০ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন ফুটবল গ্রেট। জাতীয় বীরকে শেষ নজর দেখতে আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েন্স আয়ার্সে ভক্তদের লম্বা লাইন পড়ে গিয়েছিল। তবে পারিবারিক সমারোহে ম্যারাডোনাকে চিরশায়িত করা হয়েছে তার বাবা-মার কবরের পাশে।

বৃহস্পতিবার ম্যারাডোনার শেষকৃত্যে হাজির ছিলেন তার ডজনখানেক আত্মীয় ও কাছের বন্ধুরা। কিন্তু দেশের এই লিজেন্ডকে শ্রদ্ধা জানাতে আগেই বিশাল ভিড় তৈরি হয়। কফিন নেওয়ার সময় কেউ অঝোরে কেঁদেছে, কেউ বা দূর থেকে চুমু দিয়েছে এবং প্রার্থনা করেছে।

কফিন ঢাকা ছিল আর্জেন্টিনার জাতীয় পতাকা ও জার্সিতে, যার পেছনে ছিল তার ট্রেডমার্ক ১০ নম্বর। জনসাধারণের জন্য ম্যারাডোনার মৃতদেহ নেওয়া হয় প্রেসিডেন্সিয়াল প্যালেসে। দুপুর গড়াতে ভক্তদের লাইন এক কিলোমিটারেরও বেশি লম্বা হতে থাকে। বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ককে দেখার জন্য অনেকে জোর করে প্যালেসে ঢুকতে চাইলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন বলছে, গণ্ডগোল ঠেকাতে পুলিশ টিয়ার গ্যাস ও রাবার বুলেট ছুড়েছে। পুলিশ বাড়াবাড়ি প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে বললেন রুবেন হার্নান্দেজ নামের এক শুভাকাঙ্ক্ষী, ‘আমরা লাইনে ধীরস্থির ছিলাম। হঠাৎ করে পুলিশ রাবার বুলেট ছুড়তে শুরু করলো। পাগল নাকি এরা, আমি তো ডিয়েগোকে শুধু বিদায় বলতে এসেছিলাম।’

আনুষ্ঠানিকতা শেষে ম্যারাডোনার কফিন বহনকারী গাড়ি শহরের অদূরে বেল্লা ভিস্তা সিমেট্রিতে নিয়ে যায়। সেখানেই বাবা-মার পাশে দাফন করা হয় তাকে। এ সময় প্রেসিডেন্সিয়াল প্যালেসের বাইরে তৈরি হয় আবেগঘন মুহূর্ত। অপেক্ষারত ভক্ত-সমর্থকরা গান গেয়ে বিদায় জানান তাদের বীরকে। প্যালেস থেকে বেরিয়ে আসার সময়ও কাঁদছিলেন অনেকে, কেউ তাদের বন্ধুকে জড়িয়ে ধরে বলছিলেন, ‘কী হয়ে গেলো!’

ঢাকা/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়