RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৯ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ৫ ১৪২৭ ||  ০৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

আবার করোনাবিধি ভাঙলে পাকিস্তানকে ‘তাড়িয়ে দেবে’ নিউ জিল্যান্ড

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১০:২০, ২৭ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ১০:৪১, ২৭ নভেম্বর ২০২০
আবার করোনাবিধি ভাঙলে পাকিস্তানকে ‘তাড়িয়ে দেবে’ নিউ জিল্যান্ড

নিউ জিল্যান্ডে গিয়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন পাকিস্তানের ছয় ক্রিকেটার। এই ধাক্কার পর দেশটির সরকারের হুমকি-ধামকিও শুনতে হলো টিম ম্যানেজমেন্টকে। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) প্রধান নির্বাহী ওয়াসিম খান জানালেন, আরেকবার কোভিড বিধি লংঘন করলে পুরো দলকে দেশে ফেরত পাঠানোর হুমকি দিয়েছে নিউ জিল্যান্ড সরকার।

করোনাভাইরাসে যখন সারা বিশ্ব কাবু, তখন নিউ জিল্যান্ড ছিল একেবারে আলাদা। তাদের কঠোর করোনাবিধি দেশটিতে ভাইরাসের বিস্তার রোধে ছিল সফল। এখন তা শিথিল হলেও বাইরের দেশ থেকে আসা প্রত্যেকের জন্য ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকা বাধ্যতামূলক। সরকারের বিশেষ অনুমতি নিয়ে তিন টি-টোয়েন্টি ও দুটি টেস্ট খেলতে সেখানে গেছে পাকিস্তান দল।

চার্টার্ড ফ্লাইটে করে বাবর আজমের দল নামে অকল্যান্ডে। সেখান থেকে তাদের নেওয়া হয় ক্রাইস্টচার্চে। এই শহরেই ১৪ দিনের কঠোর আইসোলেশন পার করার কথা তাদের। কিন্তু নিউ জিল্যান্ডে নেমে ছয় ক্রিকেটারের করোনা হয়েছে জানতে পারে টিম ম্যানেজমেন্ট। পিসিবির দাবি, দেশ ছাড়ার আগে লাহোরে করোনা পরীক্ষায় সবার নেগেটিভ এসেছিল।

এই ঘটনার পর পর নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেট এক বিবৃতিতে জানায়, বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় করোনা বিধি ভেঙেছেন এবং তাদের শেষবারের মতো সতর্ক করা হয়। দেশটির স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. অ্যাশলে ব্লুমফিল্ড বলেন, ‘খেলার জন্য নিউ জিল্যান্ডে আসা বিরাট প্রাপ্তি। কিন্তু এর বিনিময়ে আমাদের দেশের করোনাবিধি অবশ্যই মানতে হবে।’

শেষ সতর্কতার ব্যাপারে হোয়াটসঅ্যাপ ভয়েস মেসেজে খেলোয়াড়দের জানিয়েছেন ওয়াসিম, যা ক্রিকইনফোর হাতে পৌঁছেছে। বোর্ডের এই কর্মকর্তা খেলোয়াড়দের বলেছেন, হুট করে দেশে ফেরত পাঠালে তা হবে দেশের জন্য খুবই বিব্রতকর। ভয়েস মেসেজে ওয়াসিম বলেছেন, ‘ছেলেরা, আমি নিউ জিল্যান্ড সরকারের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা বলেছে প্রটোকল ভেঙে তিন থেকে চারটি বিধি ভাঙা হয়েছে। এ ব্যাপারে তারা জিরো টলারেন্স এবং আমাদের চূড়ান্তভাবে সতর্ক করেছে। আমি জানি এটা আপনাদের জন্য কঠিন সময়। ইংল্যান্ডেও একই অবস্থার মধ্যে ছিলেন। কিন্তু এখানে দেশের সম্মানের ব্যাপার আছে। এই ১৪ দিন পার করুন, তারপর রেস্তোরাঁ ও ঘুরে বেড়ানোর স্বাধীনতা পাবেন। তারা পরিষ্কার আমাদের জানিয়ে দিয়েছে, আমরা যদি আরেকবার বিধি ভাঙি তাহলে আমাদের দেশে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।’

ঢাকা/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়