Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ২৬ জুলাই ২০২১ ||  শ্রাবণ ১১ ১৪২৮ ||  ১৩ জিলহজ ১৪৪২

টেস্ট সিরিজের আগেই তাদের পাওয়ার আশা

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১০:৪৬, ২২ ডিসেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৭:০৬, ২২ ডিসেম্বর ২০২০
টেস্ট সিরিজের আগেই তাদের পাওয়ার আশা

ঘরোয়া আয়োজনে ফিরেছে করোনাকালীন ক্রিকেট। জৈব সুরক্ষিত বলয়ে দুটো টুর্নামেন্ট সফলভাবে শেষ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এবার পরীক্ষা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। ঘরের মাঠে আসছে জানুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে লড়বে বাংলাদেশ। দুশ্চিন্তা আছে ক্রিকেটারদের ইনজুরি নিয়ে।

টেস্ট দলের অধিনায়ক মুমিনুল হকের বৃদ্ধাঙ্গুলির অপারেশন হয়েছে কিছুদিন আগে। অপারেশন হয়েছে স্পিনার নাঈম হাসানের কনিষ্ঠায়। এ ছাড়া আবু জায়েদ রাহী ভুগছেন গ্রেড ওয়ান ইনজুরিতে। বিসিবি আশা করছি টেস্ট সিরিজ শুরুর আগেই তাদেরকে সম্পূর্ণ ফিট হিসেবে পাবে দল। তিনজনই সাদা পোশাকে বাংলাদেশ দলের অন্যতম সদস্য।

মুমিনুল-নাঈমের রিহ্যাব শুরু হবে খুব দ্রুতই। বিসিবি চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, ‘গত দুই সপ্তাহে আমাদের দুজন ক্রিকেটারের অস্ত্রোপচার হয়েছে। একজন আমাদের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকের। দুবাইতে ওর থাম্ব ইনজুরির অস্ত্রোপচার হয়েছে। এখন আমরা চিকিৎসকের গাইডলাইন অনুসারে তার পুনর্বাসন প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছি। এরপর নাঈমের লিটল ফিঙ্গারে ইনজুরি। ওর অস্ত্রোপচার ঢাকার এভার কেয়ার হসপিটালে সম্পন্ন হয়েছে। তারও রিহ্যাব প্রক্রিয়া দুই একদিনের মধ্যে শুরু হবে।’

‘আমরা খুবই আশাবাদী দুইজনের ব্যাপারেই যে তারা রিহ্যাবের পর পরিপূর্ণ ফিটনেস নিয়েই টেস্টের আগে প্রস্তুতি ম্যাচে ফিরতে পারবে'-আরও যোগ করেন তিনি।

এদিকে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে ইনজুরিতে পড়া রাহী ফিরবেন জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহেই। ‘রাহী গ্রেড ওয়ান স্ট্রেইনে ভুগছিল। আমরা গতকালও রিভিউ করেছি ওর সমস্যাটা। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে আমরা আশা করছি রাহি পুরো বোলিং ফিটনেস ফিরে পাবে’-বলছিলেন দেবাশীষ চৌধুরী।

দুই টেস্ট ও তিন ওয়ানডে খেলতে আগামী ১০ জানুয়ারি বাংলাদেশে আসছে ক্যারিবিয়ানরা। সাতদিন তাদের কাটাতে হবে কোয়ারেন্টাইনে। তিনদিন থাকতে হবে হোটেলবন্দি। বাকি চারদিন অনুশীলন করতে পারবে নিজেরা নিজেরা। এই সাতদিনে দলটির করোনা টেস্ট হবে তিনবার।

দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, ‘আসার পর আমরা প্রথম দিন, তৃতীয় দিন এবং ৬ষ্ঠ কিংবা সপ্তম দিন করোনা টেস্ট করার চেষ্টা করবো। তৃতীয় দিন থেকে তারা অনুশীলন শুরু করতে পারবে। কিন্তু তৃতীয় দিন থেকে সপ্তম দিন পর্যন্ত অভ্যন্তরীণ অনুশীলন হবে। বাইরের কোন সাপোর্ট স্টাফ ছাড়া ওরা নিজেরা নিজেদের মত কর করবে।‘

কোয়ারেন্টাইন শেষে ২০ জানুয়ারি ওয়ানডে দিয়ে শুরু হবে দুই দেশের ক্রিকেটীয় লড়াই। শেষ দুটি ওয়ানডে ২২ ও ২৫ জানুয়ারি। প্রথম দুই ম্যাচ মিরপুরে হলেও শেষটি হবে চট্টগ্রামে। বন্দরনগরীতেই শুরু হবে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ। প্রথম টেস্ট ৩ ফেব্রুয়ারি। ১১ ফেব্রুয়ারি শেষ টেস্ট খেলতে ঢাকায় ফিরবে দুই দল।

 প্রাথমিক সূচি অনুযায়ী তিনটি করে টেস্ট ও ওয়ানডে এবং দুটি টি-টোয়েন্টি খেলার কথা ছিল। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ হলেও দুই বোর্ডের আলোচনার প্রেক্ষিতে একটি ম্যাচ কমানো হয়েছে। সঙ্গে বাতিল করেছে টি-টোয়েন্টি সিরিজ।

ঢাকা/রিয়াদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়