Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ||  ফাল্গুন ১৫ ১৪২৭ ||  ১৫ রজব ১৪৪২

শক্তিশালী ইনিংসের শেষ আক্ষেপে

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:২৬, ২৮ ডিসেম্বর ২০২০  
শক্তিশালী ইনিংসের শেষ আক্ষেপে

২০১৭ সালে ব্লুমফন্টেইনে বাংলাদেশের বিপক্ষে ১৩৫ রানের সেরা ইনিংসকে পুরোনো বানিয়েছিলেন। চা বিরতিতে গেলেন প্রথমবার ডাবল সেঞ্চুরির হাতছানি নিয়ে। সেঞ্চুরিয়ন টেস্টে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সোমবার তৃতীয় দিনের খেলায় ৫৫ রানে খেলতে নেমে দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যান ফাফ দু প্লেসি কীর্তিমান এক ইনিংসের অপেক্ষায় ছিলেন। কিন্তু শক্তিশালী ইনিংসটির অপমৃত্যু হলো, থামতে হলো ১৯৯ রানে।

৯৯ রানে আউট হওয়ার ঘটনা ঘটে হরহামেশাই। তবে ১৯৯ রানে মাঠছাড়ার দৃশ্য দুর্লভ। টেস্টে এই হতাশায় এর আগে পুড়েছেন ১০ ব্যাটসম্যান। এবার তাদের সঙ্গে যুক্ত হলেন দু প্লেসি। ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানের আগে সর্বশেষ একই করুণ পরিণতির শিকার তারই সতীর্থ ডিন এলগার, ২০১৭ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে পচেফস্ট্রুমে।

লাঞ্চের আগে ১৫১ বলে ১৫ চারে দশম সেঞ্চুরির দেখা পান দু প্লেসি। ১৭৭ রানে অপরাজিত থেকে তৃতীয় সেশন শুরু করেন। ১৩২তম ওভারে ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গাকে চার মেরে টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথমবার ১৯০’র ঘরে ঢোকেন তিনি। একই সঙ্গে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ করে দক্ষিণ আফ্রিকা, ২০১২ সালে কেপ টাউনে ৫৮০ রান ছিল লঙ্কানদের বিপক্ষে সেরা সাফল্য।

কেশব মহারাজের সঙ্গে একশ ছাড়ানো জুটিতে দলীয় স্কোর ছয়শ পার করেন দু প্লেসি। এর পর অপেক্ষায় ছিলেন প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি পাওয়ার অপেক্ষায়। কাভার সুইপারে হাসারাঙ্গার বলে একটি সিঙ্গেল নিয়ে পৌঁছে যান ১৯৯ রানে। আরও দুটি বল পরে স্ট্রাইকে ফেরেন, কিন্তু লম্বা শট খেলতে গিয়ে মিড অনে দিমুথ করুণারত্নের সহজ ক্যাচ হন দু প্লেসি। মাথা নাড়িয়ে হতাশা প্রকাশ করে মাঠ ছাড়েন তিনি। একই সঙ্গে প্রোটিয়াদের ড্রেসিং রুম ও টিম ম্যানেজমেন্টেও হতাশা ঘিরে ধরেছিল।

২৭৬ বলে ২৪ চারে সাজানো ছিল দু প্লেসির ইনিংস। তারই মতো আফসোসে পুড়তে হয়েছিল মুদাচ্ছির নজর, মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন, ম্যাথু এলিয়ট, সনাথ জয়াসুরিয়া, স্টিভ ওয়াহ, ইউনুস খান, ইয়ান বেল, স্টিভেন স্মিথ ও লোকেশ রাহুলকে।

ঢাকা/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়