Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ১২ মে ২০২১ ||  বৈশাখ ২৯ ১৪২৮ ||  ২৯ রমজান ১৪৪২

বিশ্বজয় করা আকবর-সাকিবদের নতুন বছরের ভাবনা

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৩৫, ৩১ ডিসেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৭:০৯, ১ জানুয়ারি ২০২১
বিশ্বজয় করা আকবর-সাকিবদের নতুন বছরের ভাবনা

আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা। ঘড়ির কাঁটা ১২ এর ঘর স্পর্শ করলে অতীতের খাতায় নাম উঠে যাবে ২০২০ সাল।  আসবে নতুন বছর। সময় পা রাখবে ২০২১ সালে। করোনাভাইরাস এ বছর থেকে কেড়ে নিয়েছে অনেক সময়; অনেকে হারিয়েছেন প্রিয়জন। ২০২০ ভুলে যেতে চাইবেন অনেকেই। তবে চাইলেও ভুলতে পারবেন  না আকবর আলীরা।

আকবর আলীদের হাত ধরে এই বিশেই যে বিশ্বজয় করেছে বাংলাদেশ। ফেব্রুয়ারির ৯ তারিখ দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে ভারতকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো কোনো বিশ্বকাপ জেতে লাল সবুজের প্রতিনিধিরা। ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে পারভেজ ইমনের দুর্দান্ত শুরুর পর আকবর আলীর ঠাণ্ডা মাথার ফিনিশিংয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করে বাংলাদেশ।

এই বিশ্বকাপ জয়ী আকবর-ইমনদের নতুন বছরের প্রত্যাশা কী? কেউ ছড়িয়ে যেতে চান নিজেকেই আবার কেউ আবার দুর্বলতা কাটিয়ে কেউ আরও ভালো হতে চান। রাজিংবিডিকে মুঠোফোনে আকবর আলীসহ বিশ্বকাপজয়ী দলের পাঁচ সদস্য জানিয়েছেন তাদের নতুন বছরের ভাবনা। পাঠকদের জন্য তা হুবুহু তুলে ধরা হলো।

দুর্বলতা নিয়ে কাজ করবেন আকবর

‘শুরুটা আল্লাহর রহমতে ভালোই হয়েছিল। তার পরে যেটা হয়েছে (করোনা ভাইরাস) সেটা নিয়ন্ত্রণের বাইরে। এটা আমার কাছে খুবই বাজে সময় ছিল। সামনে এখন যে খেলাটা থাকবে ওগুলোতেই ভালো খেলতে চাইব। আপাতত আমি এইচপিতে (হাই-পারফরম্যান্স) আছি। এইচপিতে যতগুলো খেলা আছে এগুলোতেই ফোকাস থাকবে। প্রতিযোগিতা মূলক ক্রিকেট যদি শুরু হয় তাহলে ভালো পারফর্ম করার চেষ্টা করব। এ বছর কিছু জায়গায় আমি সফল হয়েছি এবং এখনো কিছু দুর্বলতা আছে। এবার দুর্বল দিক গুলো বের করছি এবার এগুলো নিয়ে কাজ করব।’  

ঘরোয়া ক্রিকেটে পুরো মনোযোগ জয়ের

‘বিশ্বকাপ জয়ের আনন্দতো অন্যরকম। কিন্তু করোনা অনেক কিছু মাটি করে দিয়েছে। অনেক দিন খেলা বন্ধ ছিল। যে খেলাগুলোর কথা ছিল এগুলো খেলতে পারিনি। আমাদের সবারই সমস্যা হয়েছে। নতুন বছরে খেলাগুলো যদি হয় তাহলে আশা করি আমরা নতুন করে ফিরে আসতে পারব। নতুন বছরে আমার বিশেষ কোনো লক্ষ্য নেই। চেষ্টা থাকবে ঘরোয়া টুর্নামেন্ট আর এইচপির হয়ে ভালো খেলা। এইচপিতে আমাদের যতগুলো খেলা আছে এগুলোতে ভালো করার চেষ্টা করব।’

ধারবাহিক হতে চান ইমন

‘নতুন বছর আসলে নির্ভর করছে মহামারীর উপরে। অবস্থাটা কোন দিকে যায় তখনই দেখা যাবে। ঘরোয়া ক্রিকেটে আমার পূর্ণ মনোযোগ থাকবে। সেখানে ভালো পারফরম্যান্স করার চেষ্টা করবে। শেষ টুর্নামেন্টে ভালো পারফর্ম করেছি কিন্তু ধারাবাহিকতা ছিল না। কিছু দুর্বলতা ছিল এগুলো নিয়ে দলের কোচদের সঙ্গে কথা বলেছি কী কী করতে হবে। কী করলে আমি আরও ভালো করতে পারব এগুলো নিয়েই কাজ করব। ২০২১ সালে ইনশাআল্লাহ ভালো কিছু হবে।’

বিশের রূপে একুশে ফিরতে চান সাকিব

‘বিশ্বকাপ জয়ের জন্য ২০২০ সাল আমার জীবনের সেরা হয়ে থাকবে। নতুন বছর আসছে এটাতে আমার এখন লক্ষ্য আর ভালো খেলা। সামনে যে টুর্নামেন্টগুলো আসবে এগুলোতে আগের চেয়ে ভালো খেলার চেষ্টা থাকবে যাতে পিছিয়ে না পড়ি। কারণ আমি ইনজুরিতে আছে; এখন খেলার মধ্যে নেই। এখন ধীরে ধিরে বোলিং শুরু করেছি। যেদি খেলার মধ্যে থাকতাম তাহলে একটা কথা ছিল। এখন যেহেতু খেলায় নেই তাই আগের রূপে নতুন বছরে যাতে খেলতে পারি এই লক্ষ্য আমার।’

মুগ্ধতা ছড়াতে চান মৃত্যুঞ্জয়

‘ব্যাক্তিগত প্রত্যাশা বলতে আমি যাতে সেরাটা দিতে পারি। পারফরম্যান্স যেনো ভালো হয়। ইনজুরির কারণে অনেক দিনই বাইরে ছিলাম যাতে ভালোভাবে ফিরতে পারি। অনেক দিন যেহেতু খেলতে পারিনি আমি চাইব ২০২১ সালে যেন আমি সবাইকে সন্তুষ্ট করতে পারি। ক্রিকেট বোর্ড অনেক সহোযোগিতা করছে। আমাকে ব্যক্তিগতভাবে একজন ট্রেনার দিয়ে দিয়েছে, ফিজিও দিয়েছে দেখভালের জন্য। রিহ্যাব চলতেছে খুব সুন্দরভাবেই। ইনশাল্লাহ দেখা যাক কী হয় সামনে।’

ঢাকা/ইয়াসিন

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়