RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শুক্রবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ||  ফাল্গুন ১৩ ১৪২৭ ||  ১৩ রজব ১৪৪২

এম্বুলদেনিয়ার স্পিন আর রুটের ব্যাটে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৪৭, ২৪ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৯:৪৮, ২৪ জানুয়ারি ২০২১
এম্বুলদেনিয়ার স্পিন আর রুটের ব্যাটে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

এম্বুলদেনিয়া আর ‍রুটের লড়াই ছিল তৃতীয় দিন

এশিয়ায় স্পিন কীভাবে খেলতে হয়, আবারও দেখিয়ে দিলেন জো রুট। গলেতে বাঁহাতি স্পিনার লাসিথ এম্বুলদেনিয়া ৭ উইকেট নিয়ে ইংল্যান্ডকে বিপর্যস্ত করলেও তিনি ছিলেন ব্যতিক্রম। প্রথম টেস্টের মতো দ্বিতীয় ম্যাচেও প্রতিরোধ গড়েন ইংল্যান্ড অধিনায়ক। তার ব্যাটেই ধুঁকতে থাকা সফরকারীরা শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ব্যবধান ৪২ রানে কমিয়েছে। তবে ক্লান্তি এতটাই জেঁকে বসেছিল, দিনটা শেষ করে যেতে পারেননি রুট। তাকে রান আউট করে স্বস্তি ফিরে পেয়েছে স্বাগতিকরা।

দিলরুয়ান পেরেরার বলে মিড উইকেট শট খেলতে চেয়েছিলেন রুট, কিন্তু শর্ট লেগে ওশাডা ফার্নান্ডো বল ধরে ফেলেন। সিঙ্গেল নিতে গিয়েও ফিরে আসতে হয় ইংলিশ অধিনায়ককে। কিন্তু ফিল্ডারের দুর্দান্ত থ্রোতে তিনি পৌঁছানোর আগেই ভেঙে যায় স্টাম্প। প্রায় চার সেশন ক্রিজে প্রতিরোধ গড়া রুট মাঠ ছাড়েন হতাশা নিয়ে। টানা দ্বিতীয় টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরির হাতছানি ছিল তার সামনে। কিন্তু ৩০৯ বল খেলে রুটের ইনিংসের সমাপ্তি ঘটে ১৮৬ রানে, চার ছিল ১৮টি।

৬৭ রানে অপরাজিত রুট তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করেছিলেন ২৪ রানে অপরাজিত জনি বেয়ারস্টোর সঙ্গে। আগের দিন ‍দুই ওপেনার জ্যাক ক্রলি ও ডম সিবলিকে ফেরানো এম্বুলদেনিয়া এই শতাধিক রানের জুটি ভাঙেন। বেয়ারস্টো তার ব্যক্তিগত ঝুলিতে আর ৪টি রান যোগ করে ফিরে যান ওশাডাকে ক্যাচ দিয়ে। আম্পায়ার আউট না দিলে রিভিউ নিয়ে ১১১ রানের এই জুটি ভাঙে লঙ্কানরা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: তৃতীয় দিন শেষে, ইংল্যান্ড ৪২ রানে পিছিয়ে

ইংল্যান্ড: ৩৩৯/৯ (রুট ১৮৬, বাটলার ৫৫, এম্বুলদেনিয়া ৭/১৩২)

শ্রীলঙ্কা: ৩৮১ (ম্যাথুজ ১১০, ডিকবেলা ৯২, পেরেরা ৬৭, চান্ডিমাল ৫২, অ্যান্ডারসন ৬/৪০)

প্রথম টেস্টে অভিষেকে ফিফটি পাওয়া ড্যান লরেন্সকে (৩) স্লিপে লাহিরু থিরিমান্নের ক্যাচ বানান এম্বুলদেনিয়া। চার উইকেটের সবগুলো নিয়ে এই বাঁহাতি স্পিনার ইংল্যান্ডকে আতঙ্কে রেখেছিলেন। তবে ক্রিজে নতুন নামা জস বাটলারের সঙ্গে থেকে ১৯তম ফিফটি উদযাপন করেন রুট এবং শক্ত প্রতিরোধ গড়েন।

পঞ্চম উইকেটে ৯৭ রান যোগ করতে বাটলার ৫৫ রান করে অবদান রাখেন। অভিষিক্ত রমেশ মেন্ডিসের বল তার ব্যাট ছুঁয়ে বুটে লেগে শর্ট লেগে ওশাডার ক্যাচ হয়। বল মাটিতে লেগেছে কি না নিশ্চিত হতে আম্পায়ার রিভিউ নেন।

দ্বিতীয় নতুন বল হাতে নিয়ে স্যাম কারানের বিরুদ্ধে এলবিডাব্লিউর জোরালো আবেদন করেন পেরেরা। আম্পায়ার তা প্রত্যাখ্যান করলে স্বাগতিকদের রিভিউয়ে আম্পায়ার্স কলে বেঁচে যান ইংলিশ ব্যাটসম্যান। ওই ওভারের শেষ বলে পেরেরাকে বড় ছক্কা মারার দুই বল পর এম্বুলদেনিয়ার শিকার হন কারান (১৩)। নবম টেস্টে ক্যারিয়ারে তৃতীয়বার এক ইনিংসে পাঁচ উইকেট শিকার করেন বাঁহাতি স্পিনার, তার বলেই বাউন্ডারি মেরে ক্যারিয়ারের নবম দেড়শ উদযাপন করেন রুট।

শ্রীলঙ্কাকে আবার অস্বস্তিতে ফেলেন রুট, এবার তার সঙ্গী ডম বেস। তারা সপ্তম উইকেট ৮১ রান যোগ করেন। এই জুটি ভেঙে দিয়ে আরেকটি ব্রেক থ্রু আনেন এম্বুলদেনিয়া। টানা দুই ওভারে বেস (৩২) ও মার্ক উডকে (১) থিরিমান্নের ক্যাচ বানান। আর দিনের শেষ ওভারের চার বল বাকি থাকতে রুটের উইকেট নিয়ে স্বস্তি ফিরে পায় স্বাগতিকরা।

ঢাকা/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়