RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ||  ফাল্গুন ১৫ ১৪২৭ ||  ১৪ রজব ১৪৪২

মুখ খুললেন ল্যাম্পার্ড, প্রকাশ করলেন হতাশা 

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:৪৬, ২৬ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৭:৩৭, ২৬ জানুয়ারি ২০২১
মুখ খুললেন ল্যাম্পার্ড, প্রকাশ করলেন হতাশা 

কারো পৌষ মাস-তো কারো সর্বনাশ। এটা বলা যায় টমাস টুখেল ও ফ্র্যাঙ্ক ল্যাম্পার্ডের ক্ষেত্রে। জীবনের দীর্ঘ সময় চেলসিতে ব্যয় করা ল্যাম্পার্ড হারিয়েছেন চাকরি; আর তার জায়গা দখলে নিচ্ছেন জার্মান কোচ টমাস  টুখেল। চাকরির ১৮ মাস না যেতেই বরখাস্ত হওয়া ল্যাম্পার্ড প্রকাশ করেছেন হতাশা।

আনুষ্ঠানিকভাবে চেলসি থেকে ঘোষণা আসার পর এ বিষয়ে কথা বলেন ল্যাম্পার্ড। তবে এর আগেই ক্লাবের সঙ্গে তার সমঝোতা হয়। ইনস্টাগ্রামে দেওয়া দীর্ঘ পোস্টে কঠিন সময়ে তাকে সমর্থন দেওয়ায় দিয়েছেন ধন্যবাদ। আবার তার পোস্টে দেখা গেছে আক্ষেপের সুরও। 

‘আমি হতাশ এই মৌসুম ক্লাবের দায়িত্বে না থাকতে পেরে এবং ক্লাবকে পরবর্তী ধাপে না নিয়ে যেতে পেরে’-ঠিক এভাবেই বলছিলেন ফুটবলার হিসেবে চেলসিতে দুর্দান্ত সময় কাটানো ল্যাম্পার্ড। 
ল্যাম্পার্ড চাকরি হারিয়েছেন প্রিমিয়ার লিগে ক্লাবের বাজে পারফরম্যান্সের কারণে। শেষ আট ম্যাচের পাঁচটি হেরে গেছে চেলসি। গত মৌসুমে শীর্ষ চারে নিয়ে গেলেও ৪২ বছর বয়সীর অধীনে এবার তারা ১৯ ম্যাচ শেষে নবম স্থানে।

এই মৌসুমে শীর্ষ ১১ ক্লাবগুলোর মধ্যে কেবল ওয়েস্ট হ্যামকে হারিয়েছে চেলসি। ২০০৩ সালে ক্লাবটি রোমান আব্রামোভিচের মালিকানাধীন হওয়ার পর মৌসুমের এই পর্যায়ে এসে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন পয়েন্ট তাদের।

ল্যাম্পার্ড বলেন, ‘চেলসির মতো ক্লাবের দায়িত্বে থাকা অনেক সম্মানের বিষয়। এটা এমন একটি ক্লাব যেটির সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে আমি জড়িত। আমি আমার সকল ভক্তকে ধন্যবাদ জানাতে চাই, যারা গত ১৮ মাস ধরে আমাকে অবিশ্বাস্যভাবে সমর্থন জানিয়েছেন।‘

‘যখন আমি ক্লাবের দায়িত্ব নিই, তখন আমি বুঝতে পারি যে ক্লাব একটি কঠিন সময় পার করতে যাচ্ছে। আমি গর্বিত যেসব অর্জন করেছি তার জন্য। আরও গর্বিত একাডেমিরর ফুটবলারদের জন্য যারা দলে জায়গা পেয়ে ভালো পারফরম্যান্স করেছে।’

চেলসির হয়ে তিনটি প্রিমিয়ার লিগ ও চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতেন ল্যাম্পার্ড। ফুটবল ক্যারিয়ারের মতো কোচ হিসেবে লা ব্লুজদের ডেরায় সময়টা দীর্ঘ হয়নি তার। চেলসি মালিক রোমান আব্রামোভিচ জানিয়েছিনে সিদ্ধান্তটি নেওয়া তাদের জন্য কঠিন ছিল।

আব্রামোভিচ বলেছেন, ‘ক্লাবের জন্য এটা ছিল খুব কঠিন সিদ্ধান্ত, শুধু এই কারণে নয় যে ফ্র্যাঙ্কের সঙ্গে আমার চমৎকার ব্যক্তিগত সম্পর্ক। তার প্রতি আমার সর্বোচ্চ সম্মান রয়েছে। তার কাজের নৈতিকতা অনেক। ক্লাব ও বোর্ডের পক্ষ থেকে ব্যক্তিগতভাবে আমি প্রধান কোচ হিসেবে কাজ করার জন্য ফ্র্যাঙ্ককে ধন্যবাদ দিতে চাই। ক্লাবের জন্য তিনি একজন আইকন। স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে সবসময় তিনি উষ্ণ অভ্যর্থনা পাবেন।’

সবশেষে ল্যাম্পার্ড আব্রামোভিচসহ ক্লাব সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমি ধন্যবাদ জানাতে চাই আব্রামোভিচকে, বোর্ডকে, খেলোয়াড়দের, আমার কোচিং টিমকে এবং ক্লাবের সঙ্গে জড়িত সকলকে তাদের কঠোর পরিশ্রম ও নিবেদনের জন্য।’

ঢাকা/রিয়াদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়