Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৩ এপ্রিল ২০২১ ||  চৈত্র ৩০ ১৪২৭ ||  ২৯ শা'বান ১৪৪২

রোহিতের আক্ষেপ

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:০৩, ৫ মার্চ ২০২১  
রোহিতের আক্ষেপ

দ্বিতীয় দিন খুব একটা স্বস্তিতে নেই ভারত। ইংল্যান্ডের ২০৫ রানের জবাবে দেড়শ করার আগেই ৬ উইকেট হারায় তারা। আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে ৬ উইকেটে ১৫৩ রান করে চা বিরতিতে যায় স্বাগতিকরা।

প্রথম সেশন ভারত শেষ করেছিল ৪ উইকেটে ৮০ রানে। ৩২ রানে অপরাজিত রোহিত শর্মা দ্বিতীয় সেশন শুরু করেন ঋষভ পান্তকে সঙ্গে করে। ৪১ রানের বেশি হয়নি জুটিটা। এক রানের জন্য ফিফটি উদযাপন করতে পারেননি রোহিত। ১৪৪ বলে ৭ চারে ৪৯ রান করে বেন স্টোকসের কাছে এলবিডাব্লিউ হন এই ওপেনার। রিভিউ নিয়েও আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত পাল্টাতে পারেননি।

পরে পান্তের সঙ্গে ক্রিজে নামেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। লম্বা হয়নি তাদের জুটিও। ১৪৬ রানে ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে অশ্বিন ১৩ রানে জ্যাক লিচের বলে অলি পোপের ক্যাচ হন। ৬২ বলে ৩৬ রানে অপরাজিত থেকে দলের ব্যবধান কমাতে লড়ছেন পান্ত। তার সঙ্গে অন্য প্রান্তে খেলছেন ওয়াশিংটন সুন্দর।

১ উইকেটে ২৪ রান শুক্রবারের খেলা শুরু করেছিল ভারত। রোহিত ৮ ও চেতেশ্বর পুজারা ১৫ রানে অপরাজিত ছিলেন। স্কোরবোর্ডে পঞ্চাশ রান জমা হওয়ার আগেই আরও ২ উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। ২৪তম ওভারের শেষ বলে জ্যাক লিচের কাছে এলবিডাব্লিউ হন পুজারা (১৭), দলের রান তখন ৪০।

ক্রিজে থিতু হওয়া রোহিত শর্মার সঙ্গে বিরাট কোহলির জুটি ১ রানের বেশি হয়নি। ৮ বল খেলে স্টোকসের শর্ট বলে উইকেটের পেছনে বেন ফোকসের ক্যাচ হন ভারতের অধিনায়ক, ডাক মারেন তিনি।

সহঅধিনায়ক আজিঙ্কা রাহানে প্রথম সেশন শেষ করে যেতে পারেননি। রোহিতের সঙ্গে তার ৩৯ রানের জুটি ভাঙার পর লাঞ্চ বিরতিতে যায় দুই দল। ৪৫ বলে চারটি চারে ২৭ রান করে স্টোকসের ক্যাচ হন রাহানে। তাকে ফিরিয়ে নিজের দ্বিতীয় উইকেট তুলে নেন অ্যান্ডারসন। রাহানের আউটে লাঞ্চে যায় দুই দল।

ঢাকা/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়

শিরোনাম

Bulletলকডাউন: ১৪-২১ এপ্রিল। যা যা চলবে: ১. বিমান, সমুদ্র, নৌ ও স্থল বন্দর এবং তৎসংশ্লিষ্ট অফিস। ২. পণ্য পরিবহন, উৎপাদন ব্যবস্থা ও জরুরি সেবাদানের ক্ষেত্রে এ আদেশ প্রযোজ্য হবে না ৩. শিল্প-কারখানা ৪. আইনশৃঙ্খলা এবং জরুরি পরিসেবা, যেমন, কৃষি উপকরণ (সার, বীজ, কীটনাশক, কৃষি যন্ত্রপাতি ইত্যাদি), খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্য পরিবহন, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্যসেবা, কোভিড-১৯ টিকা প্রদান, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস/জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, বন্দরগুলোর (স্থল, নদী ও সমুদ্রবন্দর) কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট (সরকারি-বেসরকারি), গণমাধ্যম (প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া), বেসরকারি নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ডাক সেবাসহ অন্যান্য জরুরি ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসসমূহ, তাদের কর্মচারী ও যানবাহন এ নিষেধাজ্ঞার আওতা বর্হিভূত থাকবে। ৫. ওষুধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়, চিকিৎসা সেবা, মৃতদেহ দাফন/সৎকার ৬. খাবারের দোকান ও হোটেল-রেস্তোরাঁয় দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা এবং রাত ১২টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত কেবল খাদ্য বিক্রয়/সরবরাহ করা যাবে। ৭. কাঁচাবাজার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সকাল ৯টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত উন্মুক্ত স্থানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় করা যাবে || যা যা বন্ধ থাকবে: ১. সব সরকারি, আধাসরকারি, সায়ত্ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিস, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে ২. সব ধরনের পরিবহন (সড়ক, নৌ, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইট) বন্ধ থাকবে ৩. শপিংমলসহ অন্যান্য দোকান বন্ধ থাকবে