Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ১৪ জুন ২০২১ ||  জ্যৈষ্ঠ ৩১ ১৪২৮ ||  ০২ জিলক্বদ ১৪৪২

ক্রিকেটাররা কে কোথায় ঈদ করবেন

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:১৫, ১৩ মে ২০২১  
ক্রিকেটাররা কে কোথায় ঈদ করবেন

রাত পোহালেই ঈদুল ফিতর। ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে আনন্দময় উৎসবের নাম ঈদ। তাইতো ঘরে ঘরে আনন্দের বন্যা। 

এ আনন্দে অন‌্য সবার মতোই শরিক বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ক্রিকেটাররাও। তাদের বেশিরভাগই ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করবেন ঢাকায়। ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও অনেকে বাড়ি যেতে পারেননি। যারা ঢাকার বাইরে গিয়েছেন তারা পরিস্থিতির কারণে বাড়তি সতর্ক।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ঈদের খুশিতে পড়েছে ভাটা। তবুও ঈদ বলে কথা। চার দেয়ালে পরিবার নিয়েই ঈদের খুশি ভাগাভাগি করে নেবেন ক্রিকেটাররা। 

জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল ঢাকায় ঈদ পালন করবেন। মুশফিকুর রহিম বাবা-মার সঙ্গে ঈদ কাটাতে গিয়েছেন বগুড়ায়। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মোসাদ্দেক হোসেন গিয়েছেন ময়মনসিংহে। এছাড়া সাকিব আল হাসান ও মোস্তাফিজের ঠিকানা ঢাকার পাঁচ তারকা হোটেল। তাদেরকে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতেই হচ্ছে। 

জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা ঢাকায় ঈদ কাটাবেন। মিথুন, ইমরুল, তাসকিন, আফিফ আছেন ঢাকাতেই। ঢাকার বাইরে যাওয়ার তালিকাটাও কম লম্বা নয়। রুবেল, শরিফুল, মিরাজ, মাহেদী, মুমিনুল, তাইজুলরা এরই মধ্যে নিজ নিজ বাড়িতে পৌঁছে গেছেন। 

ঈদের ছুটিতে ক্রিকেটারদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। যতটা সম্ভব ঘর থেকে বের না হতে বলা হয়েছে। করোনার সংক্রমণ থেকে বাঁচতে এ ধরনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বোর্ডের তরফ থেকে।

ঈদের সপ্তাহখানেক পর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। তিন ওয়ানডে খেলতে ১৬ মে দ্বীপরাষ্ট্রের দলটি বাংলাদেশে আসছে। ঐচ্ছিক অনুশীলন শেষে মঙ্গলবার থেকে ক্রিকেটাররা ছুটিতে গিয়েছেন।  প্রত্যেককে জনসমাগম এড়িয়ে যাওয়ার পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে বলা হয়েছে। ক্রিকেটারদের মুঠোফোনে এরই মধ্যে বার্তা পৌঁছে দিয়েছেন বিসিবির মেডিক্যাল বিভাগ। সেখানে স্পষ্ট লেখা আছে কী করা যাবে, কী করা যাবে না। 

বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, 'আমরা সব ক্রিকেটারকে নির্দেশ দিয়েছি যেন ছুটির সময় তারা সতর্ক থাকেন। চলাফেরা, সামাজিকতা; প্রতিটি ক্ষেত্রেই তা তাদের মেনে চলতে বলা হয়েছে, যেহেতু ঈদের পরই সিরিজ। আমাদের মেডিক্যাল বিভাগ থেকে তাদের বলা হয়েছে, তারা যেন জনসমাগমে একদমই না যান।'

করোনাা পরীক্ষার পর ১৮ মে থেকে জৈব সুরক্ষা বলয়ে ঢুকবেন ক্রিকেটাররা। সেদিন থেকে পুরো দল একসঙ্গে অনুশীলন করতে পারবেন। সরকারের সবুজ সংকেত পেতে মাঠে ফিরতে পারবেন সাকিব আল হাসান ও মোস্তাফিজুর রহমান। তারা বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে আছেন। ২০ মে তাদের কোয়ারেন্টাইন শেষ হওয়ার কথা। বিসিবি তাদের কোয়ারেন্টাইন কমানোর আবেদন করেছে।

ওয়ানডের প্রাথমিক স্কোয়াডে থাকা ক্রিকেটাররা গত ২ মে থেকে অনুশীলন করছেন। শ্রীলঙ্কা থেকে টেস্ট সিরিজ খেলা আসা ক্রিকেটারদের ৬ মে থেকে যুক্ত হওয়ার কথা থাকলেও কোয়ারেন্টাইন ইস্যুতে তাদের অনশীলন ঐচ্ছিক করে দেওয়া হয়। ঈদের পর ১৮ সদস্যের চূড়ান্ত স্কোয়াড ঘোষণা করবে বিসিবি। ওই দল নিয়ে অনুশীলন শুরু হবে। ২৩, ২৫ ও ২৮ মে দিবারাত্রির তিনটি ওয়ানডেই হবে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে। 

ঢাকা/ইয়াসিন

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়