Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ২১ জুন ২০২১ ||  আষাঢ় ৭ ১৪২৮ ||  ০৯ জিলক্বদ ১৪৪২

৫ বছর পর আবাহনীকে হারাল মোহামেডান, সাকিব জড়িয়ে গেলেন বিতর্কে

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৪০, ১১ জুন ২০২১   আপডেট: ১৩:০৮, ১২ জুন ২০২১
৫ বছর পর আবাহনীকে হারাল মোহামেডান, সাকিব জড়িয়ে গেলেন বিতর্কে

ঝিরঝির বৃষ্টি ঝরছিল। বৃষ্টি আইনে তখন ১৬ রানে জিতে যায় মোহামেডান। তাদের ১৪৭ রানের ছুঁড়ে দেওয়া লক্ষ্যে আবাহনীর রান ৫.৫ ওভারে ৩১। মোহামেডানের জন্য তখন খেলা বন্ধ হওয়া আশীর্বাদ। ৫ বছর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনীকে অন্তত হারানো যাবে!

ওই বৃষ্টিতে ক্রিকেট মাঠের খেলা বন্ধ করার ঘটনা খুব সামান্য। কিন্তু আম্পায়ার মাহফুজুর রহমান হুট করে বোলার শুভাগত হোমকে থামিয়ে কভার ডাক দিলেন। বোলার অবাক। উইকেট রক্ষক ইরফান শুক্কুর বিস্মিত। প্রতিবাদী সাকিব দুই হাত তুলে আম্পায়ারের দিকে এগিয়ে এলেন। এরপর তিন স্টাম্প তুলে দিলেন আছাড়!

সাকিব রেগে গেলেন। কোনো কিছুই তার রাগ থামাতে পারছিল না। হাতে তালি দিতে দিতে বেরিয়ে গেলেন মাঠ থেকে। মুখ থামছিল না। এসব দেখে সাকিবের দিকে তেড়েফুড়ে আসেন আবাহনীর কোচ খালেদ মাহমুদ। পরবর্তীতে দুজনকে আলাদা করে শামসুর রহমান ও ডলার মাহমুদ। এর আগের নিজের ওভারে মুশফিকের এলবিডব্লিউর আবেদনে সাড়া না দেওয়ায় স্টাম্পে লাথি মেরে আম্পায়ারের দিকে তেড়ে যান। অশালীন ভঙ্গিতে দূর থেকেই তর্কে জড়ান।

মিরপুর শের-ই-বাংলায় আবাহনী মোহামেডানের ম্যাচে ঘটে গেল এমন অনাকাঙ্খিত, বিশৃঙ্খল ঘটনা। শেষমেশ ম্যাচ জিতে যায় মোহামেডান। ৮৩ মিনিট পর খেলা শুরু হলে ৯ ওভারে আবাহনীর লক্ষ্য ৭৬। ৩১ রানের পরাজয় নিয়ে লিগের দ্বিতীয় হারের তিক্ত স্বাদ পায় আবাহনী। টানা তিন হারের পর জয়ে ফেরে সাকিবের মোহামেডান।

সেই ২০১৬ সালের মোহামেডান শেষ হারিয়েছিল আবাহনীকে। এরপর ৫ ম্যাচে তারা কোনো লড়াই করতে পারেনি। এবার মুখে হাসি ফুটল তাদের। সাকিব তাদের মুখে হাসি ফুটালেও বিতর্কিত দুই ঘটনায় ‘খলনায়কও’ হয়ে রইলেন। ঢাকার মাঠ তার আরেকটি ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণের সাক্ষী হয়ে রইল।

তবে ফর্মে ফেরার আভাস দিয়েছেন সাকিব। ব্যাটিংয়ে ১ চার ও ২ ছক্কায় ২৭ বলে ৩৭ রান ছিল দলের হয়ে সর্বোচ্চ। প্রথমটা আরাফাত সানীকে স্লগ সুইপে মিড উইকেট দিয়ে। পরেরটা লেগ স্পিনার বিপ্লবকে লং লেগ দিয়ে সীমানার বাইরে। ওপেনিংয়ে পারভেজ হোসেন ইমন ২৬, শেষ দিকে মাহমুদুল হাসান ৩০ রান করে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন।

আগের ম্যাচে শুভাগত হোম ব্যাট হাতে মুগ্ধতা ছড়ান। আজ বোলিংয়ে দ্যুতি ছড়িয়েছেন। প্রথম ওভারে নাঈম শেখ ও স্বাধীনকে বোল্ড করেন। পরের ওভারে আফিফ হোসেনকে তালুবন্দি করান রনির হাতে। এরপর শান্ত ও মুশফিক বৃষ্টির আগে পরে লড়াই করলেও শেষ হাসি হাসতে পারেননি। গুমোট আবহওয়ায় উইকেট থেকে বাড়তি সুবিধা নিয়ে তাসকিন ২ ওভারে ৫ রানে পেয়েছেন ২ উইকেট। আবু জায়েদ ১ ওভার হাত ঘুরিয়েই পেয়েছে ১ উইকেট। 

৫ বছর পর আবাহনীর বিপক্ষে মোহামেডানের জয়। ঢাকার ক্লাব ক্রিকেটের যে ঐতিহ্য তা মাথায় আনলে মোহামেডানের জন্য আজকের দিনটি অনেক স্মরণীয়, অনেক আনন্দের। কিন্তু বিতর্কিত ঘটনায় দিনটা বিষাদময় হয়ে উঠল।

ঢাকা/ইয়াসিন/রিয়াদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়