Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ১৮ অক্টোবর ২০২১ ||  কার্তিক ২ ১৪২৮ ||  ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

একশও করতে পারেননি সৌম্য, মাহমুদউল্লাহরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৪৬, ১৬ জুন ২০২১   আপডেট: ২২:১৪, ১৬ জুন ২০২১
একশও করতে পারেননি সৌম্য, মাহমুদউল্লাহরা

সৌম্য, মেহেদী, মাহমুদউল্লাহ, মুমিনুল, আকবর, ইয়াসিরদের নিয়ে গড়া গাজী গ্রুপের ব্যাটিং অর্ডারের এমন ভরাডুবি হবে, তা ভাবতে পেরেছিল কেউ! জাতীয় দলের নিয়মিত প্রায় পাঁচ ক্রিকেটার একই দলে। অথচ তাদের দলীয় রান একশও ছুঁতে পারলো না।

লক্ষ্য বড় ছিল না। মিরপুর শের-ই-বাংলায় আগে ব্যাটিং করে মাত্র ১০৭ রানে গুটিয়ে যায় শাইনপুকুর। গাজী গ্রুপ আটকে যায় ৯৯ রানে। ৮ রানে ম্যাচ হেরে যায় তারা।

টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুতে হোঁচট খায় শাইনপুকুর। মাহমুদউল্লাহর বল উইকেট থেকে সরে খেলতে গিয়ে এলবিডব্লিউ হন তানজিদ (৩)। সঙ্গী হারানোর পর সাব্বির হোসেন রুদ্রমূর্তি ধারণ করেন। মাত্র ২৬ বলে ৪১ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলেন। তার তোপে পোড়েন স্পিনার মেহেদী হাসান। তৃতীয় ওভারে কভার দিয়ে দুটি চার ও মিড উইকেট দিয়ে ছক্কা হাঁকান। এক ওভার পর মহিউদ্দিন তারেকের বল টানা দুইবার পাঠান গ্যালারিতে।

তবে বরাবরের মতো এবারও তার ইনিংসটি থেমে যায় বাজে এক শটে। গাজী গ্রুপকে উইকেটের ফের স্বাদ দেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। তার শর্ট বল পুল করতে গিয়ে এলবিডব্লিউ হন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। সাব্বিরের ৪১ রানের ইনিংসে ছিল ৪ চার ও ৩ ছক্কা। 

এরপর সাজ্জাদ হোসেন রিপন ১৫ বলে ৩ চার ও ১ ছক্কায় ২৫ রান করলে শাইনপুকুরের রান কোনোমতে একশ পেরিয়ে যায়। বল হাতে মাহমুদউল্লাহ ১৪ রানে ৩ উইকেট নিয়ে গাজী গ্রুপের সেরা। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন মেহেদী হাসান ও মহিউদ্দিন তারেক।

লক্ষ্য তাড়ায় গাজী গ্রুপের ব্যাটিং ছিল একেবারেই হতশ্রী। কোনও ব্যাটসম্যান দায়িত্ব নিতে পারেননি। প্রায় প্রত্যেক ব্যাটসম্যান নিজেদের উইকেট উপহার দিয়ে এসেছেন। সৌম্য পেসার মোহর শেখের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন ২ রানে। মেহেদী ৮ রানে আউট হন আরেক পেসার সুমন খানের বলে। ১৭ রানে দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানকে হারানোর পর মুমিনুল হক ও আকবর আলী জুটি বেধে খানিকটা প্রতিরোধ গড়েছিলেন। কিন্তু পরপর দুই ওভারে তারা ফিরলে হোঁচট খায় গাজী গ্রুপ।

৪৫ থেকে ৬২ পর্যন্ত যেতেই ৫ উইকেট হারায় গাজী গ্রুপ। সেখানেই ম্যাচ হেরে বসে তারা। শেষ দিকে নাসুম আহমেদের ব্যাটে লড়াই করলেও তার রান পরাজয়ের ব্যবধান কমায় মাত্র। শেষ ওভারে জয়ের জন্য ১৯ রান লাগতো গাজী গ্রুপের। প্রথম বল ওয়াইডের পর দ্বিতীয় বলে ২ রান নেন নাসুম। তৃতীয় বল মিড উইকেট দিয়ে ছক্কা। তৃতীয় বল আবার ওয়াইড। শেষ ৪ বলে লাগত ৯ রান। কিন্তু তৃতীয় বল আবার ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ডিপ মিড উইকেটে ক্যাচ দেন নাসুম। ৮ রানে ম্যাচ হেরে যায় গাজী গ্রুপ। 

লিগে এটি তাদের চতুর্থ পরাজয়। ম্যাচ হারলেও সুপার লিগ নিশ্চিত তাদের। ১০ ম্যাচে ৬ জয়ে ১২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষ ছয় নিশ্চিত করেছে তারা। অন্যদিকে শাইনপুকুর নিজেদের চতুর্থ জয়ে রেলিগেশন এড়ানোর পথে।

ঢাকা/ইয়াসিন/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়