Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৫ জুলাই ২০২১ ||  শ্রাবণ ১০ ১৪২৮ ||  ১৩ জিলহজ ১৪৪২

 ‘টেস্ট বিশ্বকাপ ফাইনালের’ মহারণে ভারত-নিউ জিল্যান্ড

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:৫৯, ১৭ জুন ২০২১  
 ‘টেস্ট বিশ্বকাপ ফাইনালের’ মহারণে ভারত-নিউ জিল্যান্ড

২০১০ সালে আইসিসির মাথায় আসে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ধারণা। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির উত্তেজনায় ‘মৃতপ্রায়’ টেস্টকে বাঁচিয়ে তোলার প্রচেষ্টা থেকে এই উদ্যোগ। কিন্তু ২০১৩ ও ২০১৭ সালে দুইবার শুরু হতে গিয়েও হয়নি। প্রায় এক দশক পর ২০১৯ সালের ১ আগস্ট অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের অ্যাশেজ সিরিজ দিয়ে মাঠে গড়ায় ‘টেস্ট বিশ্বকাপ’ হিসেবে পরিচিতি পাওয়া এই টুর্নামেন্ট। এই প্রতিযোগিতার বহুল প্রতিক্ষীত ফাইনাল মাঠে গড়াচ্ছে শুক্রবার (১৮ জুন)। বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে তিনটায় শুরু হবে টেস্ট শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই।

সাউদাম্পটনের রোজ বোলে শিরোপার লড়াইয়ে নামছে দুই তারকা কেন উইলিয়ামসন ও বিরাট কোহলির নিউ জিল্যান্ড ও ভারত। লম্বা পথ পাড়ি দিয়ে ফাইনালে নিজেদের জায়গা করে নিয়েছে তারা। সুদর্শনীয় ট্রফিটা কার হাতে উঠবে, ১৬ লাখ ডলার কোন দল পাবে না ড্র কিংবা টাই হয়ে ট্রফি-প্রাইজমানি ভাগাভাগি হবে সেটাই জানতে অধীর অপেক্ষায় থাকবেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। বায়ো-বাবল ভেন্যু হিসেবে প্রতিষ্ঠিত পাওয়া এই রোজ বোলে ধারণক্ষমতার ২৫ শতাংশ মানে ৪ হাজার দর্শক উপস্থিত থাকবেন দুই দলকে উৎসাহ দিতে।

২০১৯ সালের আগস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজে স্বাগতিকদের ২-০ তে হোয়াইটওয়াশ করে চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু করে ভারত। এরপর দক্ষিণ আফ্রিকা ও বাংলাদেশকে দেশের মাটিতে পর্যদুস্ত করে পাঁচ ম্যাচের সবগুলো জিতে। কিন্তু নিউ জিল্যান্ডে গিয়ে ২-০ তে হোয়াইটওয়াশ হয় তারা। সেখান থেকে অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে ঐতিহাসিক সিরিজ জয় তাদের ফাইনালের পথে আরও এগিয়ে দেয়। ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট কেটে ফেলে তারা।

ভারতের সঙ্গেই নিউ জিল্যান্ড তাদের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের মিশন শুরু করে শ্রীলঙ্কায় দুই ম্যাচের সিরিজ দিয়ে। প্রথম ম্যাচ কিউইরা হেরে গেলেও দ্বিতীয়টি জিতে সিরিজে সমতা ফেরায়। এরপর পাঁচ সিরিজ খেলে কেবল অস্ট্রেলিয়ার কাছেই হারে তারা। ফাইনালে ওঠার পথে ব্ল্যাক ক্যাপদের কাছে পরাজিত হয় ইংল্যান্ড, ভারত, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তান।

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে জীবনযাত্রার মতো থমকে গিয়েছিল ক্রিকেটও। তাতে ব্যাঘাত ঘটে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রতিযোগিতায়। বেশ কয়েকটি সিরিজ স্থগিত হলে ফাইনালিস্ট চূড়ান্তে সর্বোচ্চ মোট পয়েন্টের বদলে সংগৃহীত পয়েন্টের শতকরা হারের নিয়ম চালু করে আইসিসি। যাতে শীর্ষে থেকেও পিছিয়ে পড়ে ভারত। শেষ দিকে ফাইনালের দৌড়ে সমান তালে লড়াই হয়েছে ভারত, নিউ জিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের মধ্যে। তবে অস্ট্রেলিয়ায় ভারতের ঐতিহাসিক সিরিজ জয় এবং অজিদের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর স্থগিত হিসাব-নিকাশ সহজ করে দেয়। সবার আগে নিউ জিল্যান্ড নিশ্চিত করে ফাইনাল, পরে ইংল্যান্ডকে ৩-১ এ সিরিজ হারিয়ে তাদের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা নিশ্চিত করে ভারতও।

এক বছরেরও বেশি সময় পর নিউ জিল্যান্ড ও ভারত টেস্টের লড়াইয়ে নামছে। সবশেষ পাঁচ দেখায় তিনটি জিতেছে ভারত, হেরেছে দুটি। সাম্প্রতিক হেড টু হেডে কিউইরা পিছিয়ে থাকলেও তাদের প্রস্তুতি কিন্তু হয়েছে দারুণ। ফাইনালের আগে ইংল্যান্ডকে তাদের মাটিতে দুই ম্যাচের সিরিজে হারিয়েছে ১-০ তে। ১৯৯৯ সালের পর ইংল্যান্ডের মাটিতে জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে ভারতকে মোকাবিলা করতে যাচ্ছে নিউ জিল্যান্ড।

গত দুটি ওয়ানডে বিশ্বকাপের রানার্স আপ নিউ জিল্যান্ড। অল্পের জন্য দুইবারই হাতছাড়া হয়েছে শিরোপা। এবার সেই আক্ষেপ কি ঘুচাতে পারবে তারা! এজন্য অপেক্ষা করতে হবে পাঁচ দিন পর্যন্ত। তবে ভারত তাদের পূর্ণ শক্তির দল নিয়ে যে কঠিন চ্যালেঞ্জ জানাবে তা না বললেও চলে।

ঢাকা/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়